সংবাদ শিরোনাম :
শুল্ক ফাঁকির শতাধিক বিলাসবহুল গাড়ি এখন সিলেটে! দুবাইয়ে চাকরি দেয়ার কথা বলে টাকা আত্মসাত ॥ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা অবশেষে আবর্জনামুক্ত হচ্ছে হবিগঞ্জ শহরে আধুনিক স্টেডিয়ামের পাশ হবিগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে জামায়াত নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা অপরাধ কর্মকাণ্ড রোধে সতর্ক পুলিশ শাহজীবাজার মাজারে প্রশাসনের আদেশ অমান্য করে কাফেলার আয়োজন সংবাদ প্রকাশের পর গার্নিং পার্কে মিনি পতিতালয়ের সন্ধান ডিবির অভিযানে ৫ কলগার্লসহ ৩ খদ্দর আটক কোরেশনগরে হোটেল যুবরাজ থেকে লাশ উদ্ধার ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে ফাইনালে আর্জেন্টিনা ছেলের বিয়ের দাওয়াতে বের হয়ে বাড়ি ফেরা হলো না মায়ের
সেবা পাওয়া জনগণের অধিকার, কারও দয়া নয়: পুলিশকে রাষ্ট্রপতি

সেবা পাওয়া জনগণের অধিকার, কারও দয়া নয়: পুলিশকে রাষ্ট্রপতি

তিনি বলেছেন, “মনে রাখতে হবে, এ দেশের শান্তিপ্রিয় জনগণ সাধারণত থানা-পুলিশের কাছে যেতে চায় না। একান্ত নিরুপায় হয়েই তারা পুলিশের শরণাপন্ন হয়। তাই পুলিশের নিকট আশ্রয়প্রার্থী ও সেবা প্রত্যাশীরা যাতে কোনো রকম হয়রানি ছাড়াই সেবা পেতে পারে, তা নিশ্চিত করতে হবে।”

সোমবার পুলিশ সপ্তাহ-২০১৮ উপলক্ষে এক নৈশভোজে রাষ্ট্রপতি আরও বলেন, “মনে রাখতে হবে, সেবা পাওয়া দেশের জনগণের সাংবিধানিক অধিকার, কারও দয়া বা দান নয়। বিপদে জনগণ যখন পুলিশকে বন্ধু ভাবতে পারবে, প্রত্যাশিত সেবা পাবে, তখনই পুলিশের প্রতি পরিপূর্ণভাবে জনগণের আস্থা আসবে।”

রাজারবাগে পুলিশ অডিটোরিয়ামের ওই অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি বলেন, দেশের তৃণমূল পর্যায়সহ সর্বত্র আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়নে বাংলাদেশ পুলিশের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ দায়িত্ব পালনে বাংলাদেশ পুলিশের প্রতিটি সদস্যকে আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করতে হবে।

সন্ত্রাসী ও জঙ্গি তৎপরতা দমন, অপরাধীদের গ্রেপ্তার, চাঞ্চল্যকর মামলার দ্রুত অভিযোগপত্র দেওয়াসহ সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়নে পুলিশের প্রয়াসের কথাও বলেন তিনি।

“তা সত্ত্বেও আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির কাঙ্ক্ষিত উন্নয়নে পুলিশ বাহিনীকে আরও দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে।”

পুরনো ধারণার পরিবর্তে পুলিশ বাহিনীকে আধুনিক কলাকৌশল প্রয়োগের আহ্বান জানান রাষ্ট্রপ্রধান।

 “পত্রপত্রিকায় আমরা লক্ষ্য করছি সাইবার অপরাধ ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। কিশোর, তরুণ ও উঠতি যুবরাই এ অপরাধের দিকে বেশি ঝুঁকছে। মাদকাসক্তি ও মাদকের অপব্যবহারও যুব সমাজকে অপরাধ প্রবণ করে তুলছে। তাই মাদকের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি গ্রহণ করতে হবে।”

অনুষ্ঠানে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, পুলিশের আইজি এ কে এম শহীদুল হক উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com