সংবাদ শিরোনাম :
হবিগঞ্জে প্রশাসনের উদ্যোগে বিশ্ব নদী দিবসে বর্ণাঢ্য র‍্যালি অনুষ্ঠিত বালু উত্তোলনে অস্তিত্ব সংকটে নদী : খোয়াই, করাঙ্গী, সুতাং ও ইছামতী হুমকির মুখে পঞ্চগড়ে নৌকাডুবিতে মৃত্যু বেড়ে ৩১ : স্বজনদের আহাজারি শহরে অবৈধভাবে প্যাকেটজাত সরিষার তেল ও নকল বিড়ি মজুদের দায়ে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড ৪২টি চোরাই মোবাইলসহ চোরচক্রের মূলহোতা জগলু নবীগঞ্জে আটক মাধবপুরে বিএনপি নেতা কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে ওসিসহ আহত ১০ : আটক ৩ আগামীকাল রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা দখলমুক্তের দাবিতে সাইকেল র‍্যালি ওয়াশিংটন ডিসি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার যুবকের ইশাতের ছবি ব্যবহার করে প্রতারণা আটক করেছে ভোলা জেলা সিআইডি যৌতকের টাকা নিয়ে গৃহবধুকে নির্যাতন: নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন গৃহবধু
সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ডের বক্তব্য প্রত্যাহার ছাড়া উপায় নেই: হাইকোর্ট

সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ডের বক্তব্য প্রত্যাহার ছাড়া উপায় নেই: হাইকোর্ট

সুইস ব্যাংকগুলোতে বাংলাদেশিদের অর্থ জমার বিষয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ডের বক্তব্যে রাষ্ট্র বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছে বলে উল্লেখ করেছেন হাইকোর্ট। আদালত বলেছেন, তার বক্তব্য প্রত্যাহার করা ছাড়া কোনো উপায় নেই।

রোববার (১৪ আগস্ট) বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

আদালত সূত্র জানায়, রোববার (১৩ আগস্ট) সকালে বিএফআইউ-এর প্রতিবেদন হাইকোর্টে আসে। সেখানে জানানো হয়, সুইজারল্যান্ডের বিভিন্ন ব্যাংকে বাংলাদেশিদের অর্থ জমা সংক্রান্ত তথ্য বিভিন্ন সময়ে দেশটির আর্থিক গোয়েন্দা সংস্থা এফআইইউয়ের কাছে চাওয়া হয়েছিল।

সর্বশেষ গত ১৭ জুন এফআইউয়ের কাছে এ সংক্রান্ত তথ্য চায় বাংলাদেশ। এছাড়া ২০১৩ সালের জুলাইতে ইএসডব্লিউ’র সদস্য হওয়ার পর চলতি বছরের জুলাই পর্যন্ত ৬৭ জন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে তথ্য চায় বাংলাদেশ।

ইএসডব্লিউ’র মাধ্যমে সুইজারল্যান্ডের এফআইইউকে এ তথ্য দিতে অনুরোধ করা হয়। কিন্তু একজন ছাড়া অন্যদের বিষয়ে কোনো তথ্য নেই বলে জানায় সুইজারল্যান্ড। আর এ একজনের তথ্য দুদককে দিয়েছে বিএফআইইউ।

ওই প্রতিবেদনের আলোকে আদালত বলেন, রাষ্ট্রদূত কীভাবে বললেন বাংলাদেশীদের অর্থ জমার বিষয়ে কোনো তথ্য চাওয়া হয়নি তা আমাদের বোধগম্য নয়।

এ সময় রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদকের আইনজীবীকে উদ্দেশ করে আদালত বলেন, আপনারা যে তথ্য উপস্থাপন করেছেন তাতে প্রমাণিত রাষ্ট্রদূতের বক্তব্য সাংঘর্ষিক।

আদালতে বিএফআইউ-এর প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক।

তিনি বলেন, সুইস রাষ্ট্রদূত যে বলেছেন, তাদের কাছ থেকে বাংলাদেশিদের অর্থ জমা রাখার বিষয়ে কোনো তথ্য চাওয়া হয়নি। তার এ বক্তব্য সঠিক নয়।

পরে আদালত বলেন, আপনারা যে তথ্য উপস্থাপন করেছেন তা দেখে সুইস রাষ্ট্রদূতের বক্তব্যর সত্যতা পাইনি। আপনাদের (দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষ) বক্তব্য জাতিকে বিব্রতকর অবস্থা থেকে মুক্ত করবে।

এরপর আদালত রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদককে হলফনামা আকারে তাদের বক্তব্য দাখিল করতে বলেন এবং আদেশের জন্য আগামী রোববার দিন ধার্য করেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com