নতুন বিশ্বাসের খোঁজ পেলেন সাকিবরা

নতুন বিশ্বাসের খোঁজ পেলেন সাকিবরা

খেলাধুলা প্রতিবেদক : টি-টোয়েন্টির আগের সিরিজেই যে দলটা আফগানিস্তানের কাছে ‘ধবলধোলাই’ হওয়ার কলঙ্কে ডুবেছে, সেই দলটাই উড়িয়ে দিলো বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের! তাও আবার সিরিজের প্রথম ম্যাচ হারার পর!

টেস্ট সিরিজে যে দলটা প্রায় দাঁড়াতেই পারলো না, সেই দলটা একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে জিতলো সাদা বলের ক্রিকেটের পরপর দুই সিরিজ! তাও অসাধারণ সব প্রভাববিস্তারি পারফর্মে ভর করে!

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের পর এ রকম আরো বহু বিস্ময়জাগানিয়া বাক্য লেখা সম্ভব। কারণ আসলেই যে সাদা বলের ক্রিকেটের অসাধারণ পারফর্ম করলেন মাশরাফি-সাকিব-তামিমরা। ওয়ানডে সিরিজের পারফর্মটা ছিলো প্রত্যাশিত। কিন্তু টি-টোয়েন্টিতে কি এতোটা আশা করেছিলেন কেউ? না, সম্ভবত!

এতোটা প্রত্যাশিত না থাকলেও স্বীকৃত ক্রিকেটের এই সংক্ষিপ্ততম ফরম্যাটে বিশ্বাসের সাহসী পথ খোঁজার চেষ্টা বাংলাদেশের মধ্যে সব সময়ই ছিলো। কিন্তু নিদাহাস ট্রফির ফাইনাল থেকে শুরু করে সদ্য জেতা সিরিজের প্রথম ম্যাচ পর্যন্ত টানা পাঁচ হারে সেই আশা পূরণের চেষ্টার অস্তিত্ব দেখা যায়নি। এর মধ্যে আবার হজম করতে হয়েছে আফগানিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজে লজ্জার হার।

এই পরিস্থিতিতে এক ম্যাচ পিছিয়েও তিন ম্যাচের সিরিজ জেতার পর স্বভাবতই তৃপ্ত বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। এই তৃপ্তিটা যতোটা না সিরিজ জয়ের জন্য, তার চেয়ে ঢের বেশি টি-টোয়েন্টি জিততে পারার বিশ্বাসের খোঁজ পাাওয়ার জন্য।

ফ্লোরিডায় পরপর দুই ম্যাচ জিতে সিরিজ নিশ্চিত করার পর সাকিব বলেন, ‘আমরা যে টি-টোয়েন্টি খেলতে পারি, এই সিরিজ জেতার পর সবার মধ্যে এই বিশ্বাসটা তৈরি হবে। বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে পাওয়া এই জয় আমাদের করে তুলবে আত্মবিশ্বাসী।’

ওয়ানডেতে বাংলাদেশ এখন মাঠে নামে কেবলই জয়ের জন্য। অন্যান্য ফরম্যাটেও অবশ্য তাই। কিন্তু নিশ্চিত ভরসা থাকে কেবল ওয়ানডেতেই। টেস্টেও সেই ভরসা দৃঢ় হয়ে উঠছে ক্রমেই। কিন্তু টি-টোয়েন্টিটা কেনো যেনো হয়ে ছিলো এক দুর্বোধ্য ধাঁধা।

যে ধাঁধার উত্তর মেলানোর একটা আভাস পাওয়া গিয়েছিলো নিদাহাস ট্রফিতে। যেখানে শ্রীলঙ্কাকে পরপর দুই ম্যাচে হারায় বাংলাদেশ। কিন্তু সেই সাফল্য ম্লান হতে হতে বিস্মৃত হয়ে যায় আফগানিস্তানের বিপক্ষে টানা তিন হারে।

এবার সেই হারের স্মৃতিকে সুদূর অতীত বানিয়ে দিতে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে সিরিজ জয়টা বড্ড প্রয়োজন ছিলো। প্রয়োজনটা দারুণভাবে মেটালেন সাকিব-তামিম ও মোস্তাফিজরা। সিরিজ শেষে অবশ্য জয়ের চেয়ে বেশি বড় উঠলো ওই বিশ্বাসের খোঁজ পাওয়ার ব্যাপারটাই।

বাংলাদেশের পরবর্তী মিশন এশিয়া কাপ। এই আসরের গত পর্ব টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে হলেও এবার সেখানে খেলতে হবে ৫০ ওভারের ম্যাচ। ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের আগে ৫০ ওভারের সিরিজ জয়ের স্মৃতিও সাকিবদের মনে টাটকা। এই স্মৃতি কি এশিয়া কাপটা ঘরে তোলার কিছু বিশ্বাসও সাকিবদের দিলো?

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

 
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com