দুই বছরে ২০ টেস্ট, ৩৫ ওয়ানডে, ৫৬ টি২০ খেলবে বাংলাদেশ

দুই বছরে ২০ টেস্ট, ৩৫ ওয়ানডে, ৫৬ টি২০ খেলবে বাংলাদেশ

http://lokaloy24.com/

লোকালয় ডেস্কঃ

এ বছর বিশেষ কোন খেলাই খেলতে পারল না বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। বছরের শুরুতে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে দুটি টি২০ ও এক টেস্ট এবং জিম্বাবুইয়ের বিরুদ্ধে একটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে ও দুটি টি২০ খেলেছে বাংলাদেশ। এরপর করোনাভাইরাসের প্রভাবে সব ওলট-পালট হয়ে যায়। মার্চের মাঝামাঝি সময় থেকে এখনও খেলার বাইরে আছেন তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মুমিনুল হকরা। অক্টোবরের শেষ সপ্তাহে প্রথম টেস্ট দিয়ে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। এরপর বছরটিতে আর কোন খেলা নেই। সূচী নেই। তবে ২০২১ ও ২০২২ সালে প্রচুর ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ দল। আগামী দুই বছরে ২০টি টেস্ট, ৩৫টি ওয়ানডে ও ৫৬টি টি২০ ম্যাচ খেলবে দল। এরমধ্যে ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থার (আইসিসি) সূচীর বাইরেও দ্বিপক্ষীয় সিরিজের ম্যাচ থাকছে।

এ বছর যেতেই ব্যস্ত সূচীর মধ্যে পড়বে বাংলাদেশ। ২০২১ সালে ১১টি টেস্ট, ১৫টি ওয়ানডে ও ৩১টি টি২০ খেলবে। ২০২২ সালে ৯টি টেস্ট, ২০টি ওয়ানডে ও ২৫টি টি২০ খেলবে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) আগামী দুই বছরের ক্রিকেটের ফিক্সচার অনুযায়ী আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ এবং ওয়ানডে সুপার লীগের বাইরেও বেশ কয়েকটি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। বিভিন্ন বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা করে অতিরিক্ত কয়েকটি সিরিজের সূচী করেছে বিসিবি।

আগামী বছর জানুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ঘরের মাটিতে তিনটি টেস্ট ম্যাচের সিরিজ রয়েছে। এরপর জুনে জিম্বাবুইয়ের মাটিতে দুটি টেস্ট, আগস্টে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ঘরের মাটিতে দুটি টেস্ট, নবেম্বরে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ঘরের মাটিতে দুটি টেস্ট, ডিসেম্বরে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে দুটি টেস্ট ম্যাচের সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। ২০০২ সালের মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে দুটি টেস্ট, মে মাসে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ঘরের মাটিতে দুটি টেস্ট, জুনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে দুটি টেস্ট, অক্টোবরে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ঘরের মাটিতে একটি টেস্ট ও নবেম্বরে ভারতের বিরুদ্ধে ঘরের মাটিতে দুটি টেস্ট ম্যাচের সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ।

ওয়ানডে ও টি২০ ম্যাচের সংখ্যা এদিক ওদিক হতে পারে। যেহেতু বোর্ডগুলোর সঙ্গে আলোচনায় দ্বিপক্ষীয় সিরিজ আয়োজন করার ব্যাপার থাকছে। আবার আইসিসির ইভেন্টগুলোও খেলতে হবে। সময় ও সূচী মেলানো অনেক সময় কঠিনও হয়ে পড়তে পারে। তবে বেশি খেলার চেষ্টা কখনই কম থাকেনি। ২০২১ ও ২০২২ সালে সব ফরমেট মিলিয়ে ১১১টি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

আগামী বছর ২০২১ সালের জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দেশের মাটিতে তিনটি ওয়ানডে, ফেব্রুয়ারি-মার্চে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে তিনটি ওয়ানডে, মে মাসে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে দেশের মাটিতে তিনটি ওয়ানডে, জুন-জুলাইয়ে জিম্বাবুইয়ের মাটিতে জিম্বাবুইয়ের বিরুদ্ধে তিনটি ওয়ানডে, সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে দেশের মাটিতে তিনটি ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ।

এরপর ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারি-মার্চে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে দেশের মাটিতে তিনটি ওয়ানডে, মার্চ-এপ্রিলে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে তিনটি ওয়ানডে, জুন-জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে তিনটি ওয়ানডে, জুলাই-আগস্টে জিম্বাবুইয়ের মাটিতে পাঁচটি ওয়ানডে, অক্টোবরে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে তিনটি ওয়ানডে, নবেম্বর-ডিসেম্বরে ভারতের বিরুদ্ধে দেশের মাটিতে তিনটি ওয়ানডে খেলবে বাংলাদেশ।

টি২০ ম্যাচ অনেক বেশি থাকছে। দুটি টি২০ বিশ্বকাপ, দুটি এশিয়া কাপ যে থাকছে এই দুই বছরে। ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি-মার্চে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে তিনটি টি২০, জুনে বিদেশের মাটিতে এশিয়া কাপ (৬টি টি২০), জুনে জিম্বাবুইয়ের বিরুদ্ধে তিনটি টি২০, সেপ্টেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দেশের মাটিতে তিনটি টি২০, সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে দেশের মাটিতে তিনটি টি২০, অক্টোবর-নবেম্বরে ভারতের মাটিতে টি২০ বিশ্বকাপ (৮টি টি২০), নবেম্বর-ডিসেম্বরে দেশের মাটিতে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে তিনটি টি২০ ম্যাচ থাকছে বাংলাদেশের। আর ২০২২ সালে ফেব্রুয়ারি-মার্চে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে দেশের মাটিতে দুটি টি২০, জুন-জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে তিনটি টি২০, জুলাই-আগস্টে জিম্বাবুইয়ের মাটিতে তিনটি টি২০, সেপ্টেম্বরে ঘরে বা বাইরের মাটিতে এশিয়া কাপ (৬টি টি২০), অক্টোবরে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দেশের মাটিতে তিনটি টি২০, নবেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টি২০ বিশ্বকাপ (৮টি টি২০) খেলবে বাংলাদেশ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com