চেয়ারম্যানকে ব্যানার টানিয়ে জনগণের কাছে ক্ষমা চাইতে নির্দেশ হাইকোর্টের

চেয়ারম্যানকে ব্যানার টানিয়ে জনগণের কাছে ক্ষমা চাইতে নির্দেশ হাইকোর্টের

চেয়ারম্যানকে ব্যানার টানিয়ে জনগণের কাছে ক্ষমা চাইতে নির্দেশ হাইকোর্টের
চেয়ারম্যানকে ব্যানার টানিয়ে জনগণের কাছে ক্ষমা চাইতে নির্দেশ হাইকোর্টের

লোকালয় ডেস্কঃ শতবর্ষী শ্মশান দখল করে স্থাপনা নির্মাণে চেষ্টা করার অভিযোগে বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান আজিজুল হককে ভর্ৎসনা করেছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে আগামী ২৬ মে’র মধ্যে তাকে শ্মশানে ব্যানার টানিয়ে জনগণের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতেও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

পাশাপাশি এ বিষয়ে আগামী ২৭ মে আদালত মামলার পরবর্তী আদেশের দিন ধার্য রেখেছেন।

রবিবার বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর ও বিচারপতি একেএম সাহিদুল হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এ সময় অভিযুক্ত আওয়ামী লীগ নেতা আজিজুল হক আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

আদালত রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। অন্যদিকে আজিজুল হকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী লায়েকুজ্জামান মোল্লা।

শুনানিতে আজিজুলের আইনজীবী বলেন, ওই শ্মশানের জায়গা দখল করার চেষ্টা করেছিল প্রায় দুই বছর আগে। পরবর্তীতে ওই জায়গা স্থানীয় হিন্দুদের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন সেখানে কোনও সমস্যা নেই। এটি একটি ভুল কাজ ছিল।

তখন আদালত বলেন,আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকার সময়ে, স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশ সুপারের তদন্তে ঘটনার সত্যতা উঠে এসেছে। তিনি উপজেলা সভাপতি পদে এখনও কিভাবে বহাল আছেন?

এরপর আদালত আজিজুলকে ‘সাম্প্রদায়িক’ বলে ভর্ৎসনাও করেন এবং ‘তার ভয়ে স্থানীয় হিন্দুরা দেশ ছাড়বেন’ বলে সংবাপত্রে প্রকাশিত খবর তুলে ধরেন। সাম্প্রদায়িক লোক আওয়ামী লীগের এরকম পদে থাকা উচিত নয় বলেও আদালত মন্তব্য করেন।

এরপর আদালত এ মামলায় আদেশ দেন। আদালত আজিজুল হককে ভর্ৎসনা করে আদেশে বলেন, স্থানীয় জনগণের কাছে শ্মশানে ব্যানার টানিয়ে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে। ব্যানারে লিখতে হবে, ‘শ্মশানের জায়গা দখল করে স্থাপনা নির্মাণ চেষ্টা করে আমি ভুল করেছি। এ ধরনের কাজ আর কোনোদিন করব না।’

আদেশে আরও  বলা হয়, ব্যানার টানিয়ে ক্ষমা চাওয়ার অনুষ্ঠানে ওই শতবর্ষী শ্মশানের কমিটিকে উপস্থিত রাখতে হবে। পরে ওই ক্ষমা চাওয়ার অনুষ্ঠানের ছবি আগামী রবিবারের (২৭ মে) মধ্যে হাইকোর্টে উপস্থাপন করতে হবে। নয়তো আজিজুল হকের বিরুদ্ধে ফৌজদারি আইনে ব্যবস্থা নেওয়ার আদেশ দেওয়া হবে।

শতবর্ষী শ্মশান দখলের অভিযোগে এর আগে গত ১৩ মে বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান আজিজুল হককে তলব করেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে সশরীরে আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়।

এছাড়াও আদালতের অপর এক আদেশে কেন তার বিরুদ্ধে ফৌজদারি অভিযোগ এনে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবেনা, সে বিষয়েও তার কাছে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়।

এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে জারি করা রুলের শুনানি নিয়ে বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর ও বিচারপতি একেএম সাহিদুল হকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে হিউম্যান রাইটস এন্ড পিচ ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে রুলের ওপর শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট রিপন বাড়ৈ।

প্রসঙ্গত, এর আগে ২০১৬ সালের ২৬ জুন একটি জাতীয় দৈনিকে বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চেয়ারম্যান আজিজুল হকের বিরুদ্ধে স্থানীয় শতবর্ষী শ্মশানের জায়গা দখল করা নিয়ে কবর প্রকাশিত হয়। পরে ওই প্রতিবেদন সংযুক্ত করে হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিচ ফর বাংলাদেশ (এইচআরপিবি) হাইকোর্টে রিট দায়ের করে। সে রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে ২০১৬ সালের ৩১ জুলাই আদালত রুল জারি করেন।

রুল জারির পাশাপাশি আদালত এক আদেশের মাধ্যমে শ্মশান দখল ও সেখানকার নির্মাণ কাজ বন্ধ করার নির্দেশ দেন। পাশাপাশি জেলা প্রশাসনকে বিষয়টি তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

পরে তদন্ত প্রতিবেদনে ঘটনার সত্যতা পেলেও এ সংক্রান্ত জারি করা রুলের শুনানি আদালতে চলমান থেকে যায়। কিন্তু বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়ায় আজিজুল হককে আজ  রবিবার (২০ মে) এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে আদালতে হাজির হতে নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com