‘আমি জন্ম থেকে মুসলিম’ মাথায় সিঁদুর নিয়ে বললেন নুসরাত

‘আমি জন্ম থেকে মুসলিম’ মাথায় সিঁদুর নিয়ে বললেন নুসরাত

‘আমি জন্ম থেকে মুসলিম’ মাথায় সিঁদুর নিয়ে বললেন নুসরাত
‘আমি জন্ম থেকে মুসলিম’ মাথায় সিঁদুর নিয়ে বললেন নুসরাত

বিনোদন ডেস্ক- ইস্কনের আমন্ত্রণ রাখতে বৃহস্পতিবার তাদের আয়োজিত রথযাত্রায় সামিল হলেন বসিরহাটের সাংসদ তথা অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। অভিনেত্রীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন তার স্বামী নিখিল জৈন।

নুসরাতের ফেসবুক লাইভে ধরা পড়ে রথযাত্রা উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের ভিডিও। ট্রাডিশনাল শাড়ি, গলায় মঙ্গলসূত্র, মাথায় সিঁদুর, হাতে চূড়া ও মেহেন্দি পরে এক্কেবারেই নব বিবাহিত বধূর বেশেই রথযাত্রার অনুষ্ঠানে দেখা যায় অভিনেত্রীকে।

সোস্যাল মিডিয়ায় এই নিয়েও বিতর্কে পড়েন নুসরাত। আবার প্রশ্ন উঠে তিনি মুসলিম না জৈন? এ ঘটনার পর তাকে নিয়ে একাধিক ফতোয়াও জারি হয়।

ফতোয়া প্রসঙ্গে এদিন নুসরাত বলেন, “এই ধরনের ভিত্তিহীন বিষয়ে মাথা ঘামাতে চাই না। আমার ধর্ম আমি জানি। জন্ম থেকে আমি মুসলিম। এখনও তাই। এটা বিশ্বাসের ব্যাপার। হৃদয় দিয়ে অনুভব করতে হবে। মাথা খাটালে চলবে না”।

সংসদে সিঁদুর ও মঙ্গলসূত্রা পরায় নুসরতকে ফতোয়া দিয়েছিলেন উত্তরপ্রদেশের দেওবন্দের ইমাম মুফতি আসাদ ওয়াসমি।

এর জবাবে নুসরাত জবাব দিয়েছিলেন, “আমরা নতুন প্রগতিশীল ভারতে বাস করি, যেখানে সব ধর্ম ও সংস্কারকে শ্রদ্ধা করা হয়। ঈশ্বরের নামে ভেদাভেদ কেন? হ্যাঁ, আমি একজন মুসলিম। আমি ধর্মনিরপেক্ষ ভারতবর্ষের নাগরিক। আমার ধর্ম আমাকে মানুষের মধ্যে ভেদাভেদ করতে শেখায় না।”

বৃহস্পতিবার রিসেপশনের সকালে শত ব্যস্ততার মধ্যে ইস্কনের আমন্ত্রণে তাদের রথযাত্রা অনুষ্ঠানে নতুন বর নিখিল জৈনকে নিয়েই সামিল হয়েছিলেন বসিরহাটের সাংসদ অভিনেত্রী। সেখান থেকে ফিরেই সেজেগুজে তার আর নিখিলেন রিসেপশন পার্টিতে পৌঁছান নুসরাত জাহান।

অনুষ্ঠানের ভেন্যু ছিল কলকাতার ইস্টার্ন মেট্রোপলিটন বাইপাসের ধারের সাত তারা হোটেলে। বাদামী রঙের লেহেঙ্গায় এদিন দারুণ লেগেছে নুসরাত। সঙ্গে ছিল মানানসই গয়না। আর নিখিল পড়েছেন কালো রঙের পাঞ্জাবি। গোটা অনুষ্ঠানে তাদের উৎফুল্ল দেখা গেছে। সবার সঙ্গে কথা বলেছেন, মিশেছেন, কুশল বিনিময় করেছেন। অনুষ্ঠানে ইতালিয়ান কুইজিনের পাশাপাশি ছিল বাঙালি মেনুও।

এর আগে ১৯ জুন তুরস্কের বোদরুমে নুসরাত জাহান এবং নিখিল জৈনের বিয়ের আসর হয়। টালিউড থেকে নুসরতের বন্ধু অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী ছাড়া আর কারও আমন্ত্রণ ছিল না সেখানে। তবে বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে টালিউড, বলিউডের অনেক সেলিব্রেটি আমন্ত্রিত ছিলেন। কালকের অনুষ্ঠানে অনেক নামিদামি অতিথি উপস্থিত ছিলেন।

তবে সবার চেয়ে বেশি মজা করেছেন মিমি। নুসরাতের বিয়ে নিয়ে মিমির উচ্ছ্বসিত বক্তব্য, দিদির বিয়েতেও এত সাজিনি। আমি আর নুসরাত চার-পাঁচ বছর আগে যখন নিজেদের বিয়ে নিয়ে কথা বলতাম তখন থেকে পরিকল্পনা করেছিলাম কেমন সাজব।

বিবাহোত্তর সংবর্ধনায় নুসরাত ও নিখিল ছিলে প্রাণচাঞ্চল্যে ভরা। নুসরাতের দিকে তাকিয়ে নিখিল বললেন, ‘ওর দায়িত্ব আমার। ওকে ভাল রাখব সবসময়।’ এ কথা শুনে সবাই হেসে উঠেন। বাইপাসের ধারের সাত তারা হোটেলের হাজার আলো বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় যেন আরও উজ্জ্বল হয়ে উঠল স্ত্রী নুসরত জাহানকে পাশে নিয়ে নিখিল জৈনের বলা এই কথায়।

কম যাননি নুসরাতও। মুচকি হেসে স্বামীর কথার জবাব দিলেন এভাবে, ‘সারা জীবন একই লোকের সঙ্গে কাটাতে হবে! বুঝতে পারছেন চাপটা? মিডিয়ার সামনে ও যা বলল সবাই মনে রাখবেন কিন্তু। এখানে সবাই কিন্তু আমার লোক, যা বলবে ভেবে বলো।

উল্লেখ্য, মুসলিম পরিবারের মেয়ে নুসরাত জাহান। বাবা হাজী মুহাম্মদ শাহজাহান। ১৯৯০ সালের ৮ জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তার মা-ও একজন অভিনেত্রী ছিলেন। ২০১০ সালে ফেয়ার ওয়ান মিস কলকাতা নামক একটি সৌন্দর্য প্রতিযোগীতায় বিজয়ী হন। তার সৌন্দর্যের কারণে তিনি মডেলিং-এ সুযোগ পান। এরপর তিনি কলকাতার সুপারস্টার জিৎ-এর বিপরীতে এবং রাজ চক্রবর্তীর পরিচালনায় ‘শত্রু’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে পশ্চিম বাংলায় সুপরিচিত হন। প্রথম ছবি শত্রুর পরেই তার ভক্তসংখ্যা প্রমাণ করে, ভবিষ্যতে সে অভিনয় জগতকে কাঁপাতে সক্ষম।

এর প্রায় দুই বছর পর মুক্তি পায় দেবের বিপরীতে এবং রাজিব বিশ্বাস পরিচালিত তার দ্বিতীয় ছবি ‘খোকা ৪২০’। এই চলচ্চিত্রটি অত্যধিক জনপ্রিয়তা তাকে সাফল্যের অন্যতম শিখরে নিয়ে যায়। এরপর মুক্তি পায় অঙ্কুশ হাজরার বিপরীতে ‘খিলাড়ি’ ছবিটি। তিনটি ছবিতেই এসকে মুভিজ প্রযোজনা করে। নুসরাত জাহান একের পর এক ব্লকবাস্টার দর্শকদের উপহার দিয়ে গেছেন।

২০১৯ জুড়ে নুসরাতের জীবনে শুধুই সফলতা। নির্বাচনে জয়ী হয়ে তিনি এখন সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসর বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রের বসিরহাট থেকে জয়ী একজন সংসদ সদস্য। আর এরই মধ্যে তিনি নিজের জীবনের নতুন অধ্যায় শুরু করেছেন। প্রেমিক নিখিল জৈনকে বিয়ে করেছেন তিনি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com