আন্দোলন সাহসী ছিল, এখন ঘরে ফেরো: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আন্দোলন সাহসী ছিল, এখন ঘরে ফেরো: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক : নিরাপদ সড়কের দাবিতে রাজধানীর বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের পাঁচ দিনের আন্দোলনকে সাহসী অভিহিত করে এতে সমর্থন জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তবে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা বিবেচনায় এখন তাদের নিজেদের ঘরে ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফিরে যাওয়ার আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি। এই আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর নিজেরও বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।
তিনি আরও বলেন, অশুভ শক্তি সক্রিয় হয়ে উঠেছে। তাদের চক্রান্তে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের বড় ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। এ কারণেই তাদের ঘরে ফিরে যাওয়া উচিত।
আজ বৃহস্পতিবার ধানমন্ডির বাসায় ডাকা এক সংবাদ সম্মেলনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমরা দেখছি, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। ২০১৩ সালের ছবিকে এই সময়ের ছবি বলে চালিয়ে দেওয়া হচ্ছে। অথচ ওই ছবিতে পুলিশের যে সহকারী উপপরিদর্শককে দেখা যাচ্ছে, তার চাকরিও গেছে। আবার রুয়ান্ডার গণহত্যার বিভিন্ন ছবি কেটে ফেসবুকে দেওয়া হচ্ছে। নানা ধরনের অশ্রাব্য উক্তি ফেসবুকে দেওয়া হচ্ছে। তারা কোমলমতি শিক্ষার্থীদের উসকে দিচ্ছে। এর পেছনে রাজনৈতিক অভিলাষ, রাজনৈতিক উদ্দেশ্য ইন্ধন জোগাচ্ছে বলে আমরা মনে করছি।
তিনি বলেন, ফেসবুকে আমরা ভিডিও দেখেছি। সেখানে ছাত্রশিবির অংশ নিয়েছে এবং বিএনপি নেতারাও তাদের উৎসাহ দিচ্ছে। খাদ্য সরবরাহ করছে। এ ঘটনা ভিন্ন দিকে মোড় নিতে পারে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা বিশেষভাবে অনুরোধ করব, শিক্ষার্থীরা যেন ঘরে ফিরে যায়। এখন যে পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে তারা যাচ্ছে, তাতে করে একটা স্যাবোটেজ ঘটতেই পারে। যেকোনো দুর্ঘটনরা ঘটে যেতে পারে। এমন কোনো দুর্ঘটনা ঘটলে তার দায়-দায়িত্ব নিরাপত্তা বাহিনী নিতে পারবে না। কারণ আপনারা দেখেছেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও মার খাচ্ছে, কিন্তু তারা কিছুই করছে না। তারা চরম ধৈর্যের সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবিলা করছে। তাদের অ্যাকশন নেওয়ার আগেই যেকোনো দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। তাই তাদের নিরাপত্তার জন্য, তাদের যেন কিছু না ঘটে সে জন্য প্রধানমন্ত্রী আহ্বান জানিয়েছেন, তারা যেন নিজ নিজ শিক্ষালয়ে ফিরে যায়, তারা যেন নিজ নিজ বাসায় ফিরে যায়।’
তিনি আরও বলেন, তারা আমাদের দেশের ভবিষ্যত। তারা রাস্তায় যে সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছে, তাকে আমরা সমর্থন করি। তারা সঠিক কথা বলেছে। তবে আমরা মনে করি, যথেষ্ট হয়েছে। তারা ফিরে যাবে, সেটাই আশা করি।
শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেওয়া হয়েছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এখন থেকে প্রতিটি গণপরিবহন যখন রাস্তায় বের হবে, তখন ফিটনেস পরীক্ষা থেকে শুরু করে সব ধরনের পরীক্ষা করেই রাস্তায় বের করা হবে। এখন থেকে রাস্তায় সবখানে চেকপোস্ট বসানো হবে।
এক প্রশ্নের জবাবে আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘তারা তো সবাই ছোট ছোট ছেলেমেয়ে। এরা স্কুলে পড়ে, মাত্র ইন্টারমিডিয়েটে পড়ে। তাদের ওপর ব্যবস্থা নেওয়ার কিছু নেই। তারা তো তাদের সহপাঠী হারানোর বেদনা নিয়ে এসেছে। তাদের জন্য আমরাও ব্যথিত, আমরা সবাই ব্যথিত।’
তিনি বলেন, ‘কিন্তু শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে ঘিরে ফেসবুকে যারা অপপ্রচার করছেন, তাদের বলব, এই অপপ্রচার বন্ধ করেন। যারা উদ্দেশ্যমূলকভাবে নোংরা কথা অপপ্রচার করছেন, আপনারা এই অপপ্রচার বন্ধ করেন। কারণ তাদের অপপ্রচারের কারণে শিক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। সে জন্যই বলব, এটা বন্ধ করেন। তবে কারা এটা করছে, আমরা চিহ্নিত করেছি। আমরা এটা বন্ধ করার ব্যবস্থা করছি। আপনারা দেখেছেন, এই যে দুই ভিকটিম, তাদের মধ্যে দিয়ার বাবা জাহঙ্গীর আপনাদের মাধ্যমে দেশবাসীকে আহ্বান জানিয়েছেন, দিয়ার মতো হত যেন কেউ না হয়। দিয়ার জন্য যারা রাস্তায় দাড়িয়েছে, তাদের প্রতি তিনি আকুল আবেদন জানিয়েছেন।’
মিরপুরে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের মারধরের বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আপনারা খবর পেয়েছেন, আমিও পেয়েছি। আমার কাছে যে খবর এসেছে, তার সঙ্গে আমার কাছে আসা খবরের ডিফারেন্স থাকতে পারে। আমরা খবর পেয়েছি, যারা নাকি বিএনপি সমর্থিত, ছাত্রদল সমর্থিত, তারা আন্দোলনকারীদের উত্তেজিত করার জন্য ওইখানে জড়ো হয়েছিল। তখন স্বাভাবিক কারণে ওই এলাকায় জনগণ যারা তাদের পছন্দ করছেন না, তাদের সঙ্গে বচসা। তারাই দৌড়ানি দিয়েছে।
শিক্ষার্থীদের রাজপথ থেকে ফিরিয়ে নিতে বাবা-মা, শিক্ষক, প্রতিবেশীরা ভূমিকা রাখবেন বলে আশাবাদ জানান আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, ‘তাদের তো বয়স অনেক কম। আমি মনে করি, তাদের বাবা-মা ও শিক্ষকরা ভূমিকা রাখবেন। এসব শিক্ষার্থীদের প্রতিবেশীরাও ভূমিকা রাখবেন, যেন তারা বৃষ্টি ভিজে কষ্ট না পায়, তারা যেন রোদে পুড়ে কষ্ট না পায়।’
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এই আন্দোলনকে যৌক্তিক বলেছেন। কিন্তু এই আন্দোলনে অংশ নেওয়ায় শিক্ষার্থীদের স্কুল থেকে ট্রান্সফার সার্টিফিকেট (টিসি) দেওয়া হচ্ছে— সে বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘প্রথমেই বলব, এগুলো হয়তো আপনারা ফেসবুকে দেখেছেন। সেখানেই হয়তো প্রচার হয়েছে। তবে আমি এটুকু বলতে পারি, এই আন্দোলনে রাস্তায় দাঁড়িয়েছে এ কারণে কোনো স্কুলের ছাত্রকে দুর্ভোগ পোহাতে হবে না বলে আমি বিশ্বাস করি।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

 
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com