সংবাদ শিরোনাম :
শ্রীমঙ্গলে ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় আটক কৃষকের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন পাকিস্তানে ট্রেনের ধাক্কায় মিনিবাসে থাকা ২০ শিখ তীর্থযাত্রী নিহত ওয়ানডেতে শতাব্দীর সেরাদের তালিকায় ২য় সাকিব লক্ষ্মীপুরে ট্রাক-পিকআপ সংঘর্ষে প্রাণ গেল দুই চালকের বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ১২ লাখ ছুঁইছুঁই ঠাকুরগাঁওয়ে টাংগন নদীর পানি বৃদ্ধি দুঃশ্চিন্তায় রয়েছে নদী পারের মানুষ । করোনা কালে শায়েস্তাগঞ্জে বিয়ে সাদীর ধুম পড়েছে করোনায় হবিগঞ্জে এ পর্যন্ত ৬৩ জন পুলিশ সদস্য আক্রান্ত ও সুস্থ হয়েকরোছে ২২ জন হবিগঞ্জের মাধবপুরে ইয়াবাসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার হবিগঞ্জে বাস-সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে ৫ জন আহত নিহত ১
হবিগঞ্জের প্রতি উপজেলায় ২টি করে মাদ্রাসা করবে সরকার

হবিগঞ্জের প্রতি উপজেলায় ২টি করে মাদ্রাসা করবে সরকার

lokaloy24.com

লোকালয় ডেস্কঃ  প্রকল্পের আওতায় ৬৪ জেলার ৫০৫টি উপজেলায় দু’টি করে মোট এক হাজার ১০টি দারুল আরকাম ইবতেদায়ী মাদ্রাসা চালু করতে যাচ্ছে সরকার। প্রতিটি মাদ্রাসায় পাঁচজন করে মোট পাঁচ হাজার ৫০ জন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। নতুন করে প্রকল্পের আওতায় এমন উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। সে হিসেবে হবিগঞ্জের প্রতিটি উপজেলাতেও দুইটি করে মাদ্রাসা চালু করা হবে। যেখানে নিয়োগ পাবেন ৯০ জন শিক্ষক।

জুন ২০২০ থেকে ডিসেম্বর ২০২৪ মেয়াদে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। প্রকল্পের আওতায় প্রতিটি উপজেলায় দু’টি করে মাদ্রাসা চালু করা হবে। সরকার উন্নয়ন প্রকল্প তৈরি করছে। একটি জাতীয় অনলাইন সংবাদমাধ্যম সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সংবাদে বলা হয়- ইসলামিক ফাউন্ডেশন (ইফা) জানিয়েছে প্রথম শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদানের জন্য কওমি ও আলিয়া নেসাবের পাঁচজন করে শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। নতুন কারিকুলাম অনুযায়ী ধর্মীয় বিষয়ে আরবি ভাষায় পাঠদানের যোগ্যতা থাকতে হবে। মাসিক বেতন ১২ হাজার ৫০০ টাকা। বছরে দু’টি উৎসব ভাতা দেওয়া হবে। শিক্ষাগত যোগ্যতা দাওয়ারে হাদীস ও ফাজিল। প্রকল্পের আওতায় পাঁচ বছরের জন্য অস্থায়ীভাবে নিয়োগ দেওয়া হবে। মাদ্রাসার স্থান নির্বাচন করা হবে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের মাধ্যমে।

ইফা সচিব নজরুল ইসলাম বলেন, নতুন করে প্রতিটি উপজেলায় দু’টি করে মাদ্রাসা পুনরায় চালু করতে যাচ্ছি। প্রতিটি মাদ্রাসায় পাঁচজন করে মোট পাঁচ হাজার ৫০ জন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে। আমরা শুধু শিক্ষকদের বেতন দেবো। অবকাঠামো সুবিধা করে দেওয়া হবে।

‘আগ্রহী আলেমদের জন্য দ্বীনি দাওয়াতভিত্তিক কর্মসংস্থান ও সাক্ষরতার হার আরও বাড়ানোর জন্য নতুনভাবে প্রকল্পটি চালু হবে। প্রতিটি উপজেলায় দু’টি করে সারাদেশে এক হাজার ১০টি ইবতেদায়ী মাদ্রাসায় পাঠদান করবে ইফা। এ ব্যবস্থায় দারুল আরকাম মাদ্রাসার জন্য কোরআন হিফজসহ শিশু শ্রেণি থেকে অনার্স পর্যন্ত খসড়া কারিকুলাম প্রণয়ন করা হয়েছে।’

ইফা সূত্র জানায়, প্রতিটি উপজেলায় দু’টি করে মাদ্রাসায় আইসিটি ল্যাব স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এখনও আইসিটি ল্যাব স্থাপন করা হয়নি, সেসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের উন্নয়নের কথা বিবেচনা করে আইসিটি ল্যাব স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়। প্রতিটি উপজেলার নির্বাচিত দু’টি মাদ্রাসার নাম, মোট শিক্ষার্থী সংখ্যা, আলাদাভাবে ছাত্র ও ছাত্রী সংখ্যা, একাডেমিক স্বীকৃতিপ্রাপ্তির তারিখ ও প্রতিষ্ঠান প্রধানের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য তার মোবাইল নম্বর ও ই-মেইলের ঠিকানা মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদফতরে পাঠানো হবে।

প্লে থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের বই, খাতা বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। প্রতি শ্রেণি কক্ষে ২০ থেকে ২৫ জন শিক্ষার্থী থাকতে হবে। মাদ্রাসার অবকাঠামো নির্মাণ ও ফার্নিচার প্রকল্পের আওতায় করা হবে। সম্পূর্ণভাবে নতুন প্রকল্পের আওতায় এমন উদ্যোগ নেওয়া হবে। জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০-এর আলোকে পবিত্র কোরআন সুন্নাহরভিত্তিতে প্রকৃত নায়েব রাসুল তৈরি করার লক্ষ্যে প্রকল্প নেওয়া হচ্ছে। শিশুর শারীরিক, মানসিক, নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধ শেখানো হবে। গাণিতিক ধারণা ও দক্ষতা অর্জনে জোর দেওয়া হবে। বিদেশি ভাষা হিসেবে ইংরেজি শেখানো হবে। দেশের আইন-কানুন ও ধর্মীয় বিশ্বাসের বাধ্যবাধকতায় স্বাধীন ও মুক্তচিন্তায় উৎসাহী করা হবে। গণতান্ত্রিক রীতি অনুশীলন করানো হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com