সংবাদ শিরোনাম :
সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিকে এগিয়ে নিতে সকলের এক যোগে কাজ করার আহ্বান : আবু জাহির রাজধানীর বস্তি থেকে হবিগঞ্জের শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার পার্কিং করা বাসে ৩০ কেজি গাঁজা, গ্রেফতার ৩ ‘বাবা নির্যাতন সহ্য করতে পারছি না, আমাকে উদ্ধার করো : সৌদি থেকে মেয়ের আকুতি ভারতের ত্রিপুরায় প্রচুর বৃষ্টিপাত হওয়ায় খোয়াই নদীর পানি বৃদ্ধি রাস্তায় পড়ে থেকে নষ্ট হচ্ছে টেলিফোন বক্স ॥ দেখার যেনো কেউ নেই শায়েস্তানগর হকার মার্কেট দখল করে ব্যবসা ॥ নেয়া হয়েছে অবৈধ বিদ্যুত সংযোগ হবিগঞ্জ শহরে ব্যাটারী চালিত রিকশার বিরুদ্ধে অভিযান বাধা দিলেই খুন করত শুক্কুর আলী-দিদার আগামী ৮ অক্টোবর হবিগঞ্জে শ্রমিক ইউনিয়ন নির্বাচনে সব গণপরিবহন বন্ধ
সুগন্ধীযুক্ত ‘জাম্বুরা ফুল’

সুগন্ধীযুক্ত ‘জাম্বুরা ফুল’

সুগন্ধীযুক্ত ‘জাম্বুরা ফুল’
সুগন্ধীযুক্ত ‘জাম্বুরা ফুল’

মৌলভীবাজার: ঋতুরাজ বসন্ত এসে পড়েছে প্রকৃতিতে। এরই রেশ ধরে ফুলেদের মেলা বসতে শুরু করেছে। গাছে গাছে, ডালে ডালে। প্রতিটি পাতায় পাতায় যেন সেই স্নিগ্ধতারই আমেজ।

এক্ষেত্রে নিজেকে আড়াল করে রাখতে পারেনি অম্ল স্বাদযুক্ত জাম্বুরাও। তার শরীরে মেলে ধরেছে স্বেতশুভ্র ফুলের বাহার। এর ফুলগুলো অনেকটা মৃদু গন্ধযুক্ত কামিনীর মতো। কামিনীও ফুলের দিক থেকে জাম্বুরা ফুলের মতো অনুরূপ।

চার পাপড়ির এ ফুলটি দারুণভাবে সুগন্ধীযুক্ত। গাছের নিচে দাঁড়িয়ে জাম্বুরা ফুলের সৌরভে এক মুহূর্তে ভরে উঠে মন-প্রাণ। চাঙ্গা হয়ে উঠে এর পারপাশের প্রকৃতি। পার্শ্ববর্তী সড়ক ধরে এগিয়ে যাওয়া সময় এ ফুলের সুগন্ধী নাকে আসা মাত্রই ফুলটিকে একপলক দেখার জন্য ব্যাকুল হয়ে যায় হৃদয়। জাম্বুরার ইংরেজি নাম Pomelo ও বৈজ্ঞানিক নাম Citrus maxima

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর এবং উদ্ভিদ গবেষক ড. মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন  বলেন, এটি নবীব বসন্তের আহ্বানকারী ফুল। এর সুগন্ধী অপূর্ব। সারাক্ষণ গাছের তলে দাঁড়িয়ে থাকতে ইচ্ছে করে। আমি মাঝে মধ্যে অফিস থেকে এসে জাম্বুরা গাছের তলায় দাঁড়িয়ে এর সৌরভ উপভোগ করি, দারুণ লাগে।আর কিছুদিন পরে এই গাছটি ফলে রূপান্তিত হবে। জাম্বুরা অত্যন্ত উপকারী একটি ফল। মানবদেহকে সুস্থ ও রোগমুক্ত রাখতে এই ফলটির জুড়ি মেলা ভার বলেও জানান ড. মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন।

তিনি ফুলটি সম্পর্কে বলেন, ফুলের পুংকেশর, গর্ভদন্ড, গর্ভমুন্ড, গর্ভাশয় প্রভৃতি অংশ থাকে। জাম্বুরা ফুলের মাথায় টিউবের মাথায় অনেকগুলো হলুদ হলুদ পুংকেশর অথবা পুষ্পরেণু থাকে। গোলাকার চাকতির মতো অংশটির নাম গর্ভমুন্ড। ওখান থেকে পুংরেণুগুলো গর্ভমুন্ডে পতিত হয়। চাকতির নিচের অংশটা হচ্ছে গর্ভদন্ড। আর নিচে ফল যেখানে হবে অর্থাৎ ডিম যেখানে থাকে ওটা হলো গর্ভাশয়।

মৌমাছি, প্রজাপতি বা পাখিরা এক ফুল থেকে আরেক ফুলের পুংকেশর অথবা পুষ্পরেণুতে সারাক্ষণ মুখগুজে মধু আহরণের মাধ্যমে ফুলের পরাগায়ন ঘটিয়ে চলেছে বলেও জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ও উদ্ভিদ গবেষক ড. মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com