৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি  হবিগঞ্জে যুবলীগ নেতার কম্পিউটার ল্যাব স্থাপনে জালিয়াতি তদন্তে নামছে টিম।

৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি  হবিগঞ্জে যুবলীগ নেতার কম্পিউটার ল্যাব স্থাপনে জালিয়াতি তদন্তে নামছে টিম।

৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি

হবিগঞ্জে যুবলীগ নেতার কম্পিউটার ল্যাব

স্থাপনে জালিয়াতি তদন্তে নামছে টিম

 

মোঃ সনজব আলীঃ  লাখাই উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকরামুল মজিদ চৌধুরী শাকিলের ডিজিটাল ল্যাব স্থাপনের নামে জালিয়াতির অভিযোগে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এসিল্যান্ড ইয়াসিন আরাফাত রানাকে আহবায়ক করে ৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি। কমিটির অন্যন্যা সদস্যরা হলেন- মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জীবন কুমার দেব ও সহকারী পোগ্রামার মোঃ আব্দুর রহিম। তাদেরকে ৩ কার্যদিবসের প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা লুসিকান্ত হাজং শুক্রবার রাতে তদন্ত কমিটি গঠনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৩০ এপ্রিল জাইকা’র অর্থায়নে পরিচালিত উপজেলা পরিচালন ও উন্নয়ন প্রকল্পের তৃতীয় ধাপের কর্মসূচীতে লাখাই উপজেলার দুটি উচ্চ বিদ্যালয়ে ২০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে কম্পিউটার, টেবিল ও চেয়ার দিয়ে ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন, ১০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে লাখাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মেডিক্যাল সামগ্রী প্রদান ও ১০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে করাব ইউনিয়নে বড় গোপাটের খাল থেকে আজদার মিয়ার বাড়ি পর্যন্ত আরসিসি উন্মুক্ত ড্রেন নির্মাণ, দরপত্র আহবান করে এলজিইডি। এক প্রভাবশালী নেতার আর্শীবাদে এ তিনটি কাজেরই ঠিকাদার নিযুক্ত হন ইকরামুল মজিদ চৌধুরী শাকিল। দরপত্র অনুসারে গত অক্টোবরে উপজেলার রাঢ়িশাল করাব উচ্চ বিদ্যালয় ও তেঘরিয়া এসইএসডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করেন। দরপত্র অনুযায়ি ‘ডেল কোম্পানীর অপটিপ্লেক্স-৩০২০, কোরআই-৩ মডেলের’ ৪৮টি কম্পিউটার সরবরাহ করেন দুই বিদ্যালয়ে ঠিকাদার শাকিল চৌধুরী। সরবরাহের কয়েকদিন পর তেঘরিয়া এসইএসডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৪টি ও রাঢ়িশাল করাব উচ্চ বিদ্যালয়ে ৫টি কম্পিউটার নষ্ট হয়ে যায়। ঠিকদারী প্রতিষ্ঠানের সরবরাহকৃত সবকটি কম্পিউটার বিশ্বখ্যাত ব্রা- ডেল কোম্পানীর। কিন্তু সবগুলো কম্পিউটার কমপক্ষে ৪ বছর পূর্বে আমদানী বন্ধ করে দিয়েছেন বাংলাদেশের আমদানীকারকরা। এমনটাই জানা গেছে ষ্টার টেক ও গ্লোবাল ব্যান্ড নামের দুইটি আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান সাথে আলাপ করে। ডেল’র ওয়েবসাইটে গিয়ে দেখা যায় সরবরাহকৃত কম্পিউটারগুলোর মধ্যে ২ঋছঔ১০২, ২ঠচঔ১০২ ও ৩ত৮ক১০২ সার্ভিস ট্যাগ যাচাই করে করে দেখা যায়, এগুলো ২০১৪ সালে বাংলাদেশে আমদানী করা হয় আর বিক্রয় করা হয় ২০১৬ সালে। সার্ভিস ওয়ারেন্টি মেয়াদ ছিল ২০১৭ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত। এদিকে, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের দাখিলকৃত কম্পিউটার ক্রয়ের রশিদ থেকে জানা যায় শাকিল চৌধুরী ‘রিয়েল ওয়ান’ নামক একটি প্রতিষ্ঠান থেকে কম্পিউটার ক্রয় করেন। রশিদে প্রতিষ্ঠানের যে ঠিকানা উল্লেখ করা হয়েছে, সেখানে গিয়ে বাস্তবে এমন কোন প্রতিষ্ঠানের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। পরে তাদের মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগ করা হলে শিহাব আহমেদ নামে এক ব্যক্তি ফোন রিসিভ করেন। সে জানান, তিনি মূলত কম্পিউটার সার্ভিসিংয়ের কাজ করেন। তবে কম্পিউটার সাপ্লাইয়ের অর্ডার পেলে তিনি ঢাকার বিভিন্ন দোকান থেকে সংগ্রহ করে দেন। তিনি আরো জানান, বিক্রয়গত কম্পিউটারের নিজে ১ বছরের ওয়ারেন্টি দেন। নষ্ট হলে তিনি নিজে ঠিক করে দেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com