সংবাদ শিরোনাম :
পাকিস্তানে ট্রেনের ধাক্কায় মিনিবাসে থাকা ২০ শিখ তীর্থযাত্রী নিহত ওয়ানডেতে শতাব্দীর সেরাদের তালিকায় ২য় সাকিব লক্ষ্মীপুরে ট্রাক-পিকআপ সংঘর্ষে প্রাণ গেল দুই চালকের বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ১২ লাখ ছুঁইছুঁই ঠাকুরগাঁওয়ে টাংগন নদীর পানি বৃদ্ধি দুঃশ্চিন্তায় রয়েছে নদী পারের মানুষ । করোনা কালে শায়েস্তাগঞ্জে বিয়ে সাদীর ধুম পড়েছে করোনায় হবিগঞ্জে এ পর্যন্ত ৬৩ জন পুলিশ সদস্য আক্রান্ত ও সুস্থ হয়েকরোছে ২২ জন হবিগঞ্জের মাধবপুরে ইয়াবাসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার হবিগঞ্জে বাস-সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে ৫ জন আহত নিহত ১ এস,এ মাহফুজ সমর্থক গোষ্ঠীকে ফুলের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন অনন্তপুর এলাকাবাসী
২৩ লাখ ৮৯ হাজার শ্রমিকের বেতন পরিশোধ

২৩ লাখ ৮৯ হাজার শ্রমিকের বেতন পরিশোধ

lokaloy24.com

লোকালয় ডেস্কঃ  বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সদস্যভুক্ত ২ হাজার ১৫৩টি কারখানা মালিক তাদের ২৩ লাখ ৮৯ হাজার ৫০০ জন শ্রমিকের গত মার্চ মাসের বেতন-ভাতা পরিশোধ করেছেন।

বিজিএমইএ জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত মোট ৯৬ দশমিক ৬৪ শতাংশ কারখানা মালিক শ্রমিকের বেতন-ভাতা পরিশোধ করেছেন। আর বিজিএমইএ এর সদস্যভুক্ত ১২১টি কারখানার শ্রমিকদের বেতন বাকি আছে।

২১ এপ্রিল সকাল পর্যন্ত বিজিএমইএ সদস্যভুক্ত ২ হাজার ১৫৩টি কারখানায় ২৩ লাখ ৮৯ হাজার ৫০০ জন শ্রমিক গত মার্চ মাসের বেতন-ভাতা পেয়েছেন। যা মোট শ্রমিকের ৯৬ দশমিক ৬৪ শতাংশ। এখনো ১২১টি কারখানা মালিক বেতন-ভাতা পরিশোধ করতে পারেননি যা মোট হিসেবের ৩ দশমিক ৩২ শতাংশ।

বিজিএমইএ সদস্যভুক্ত মোট ২ হাজার ২৭৪ কারখানার মধ্যে ঢাকা মহানগর এলাকায় রয়েছে ৩৬০টি। এর মধ্যে গত মার্চের বেতন দিয়েছে ৩৩৯টি প্রতিষ্ঠান, বেতন হয়নি ২১টি কারখানায়।

গাজীপুরের ৮০৮টি কারখানার মধ্যে বেতন দিয়েছে ৭৬৪টি, বাকি রয়েছে ৪৪টি, সাভার ও আশুলিয়ায় ৪৭১টির মধ্যে বেতন দিয়েছে ৪৫৮টি বাকি রয়েছে ১৩টি, নারায়ণগঞ্জের ২৬৯টি পোশাক কারখানার মধ্যে বেতন দিয়েছে ২৬০টি বাকি রয়েছে ৯টি কারখানা। চট্টগ্রামের ৩২৪টি কারখানার মধ্যে বেতন দিয়েছে ২৯৩টি বাকি ৩১টির এবং প্রত্যন্ত এলাকার ৪২টি কারখানার মধ্যে বেতন দিয়েছে ৩৯টি বাকি রয়েছে ৪টির।

এ হিসেবে মোট ২ হাজার ১৫৩টি কারখানায় ২৩ লাখ ৮৯ হাজার ৫০০ জন শ্রমিক মার্চ মাসের বেতন-ভাতা পেয়েছেন। তবে বিজিএমইএ-এর সদস্য নয়। যারা সাব কন্টাক্ট-এ কাজ করে এমন কতগুলো কারখানার শ্রমিক বেতন পাননি। তবে এ ব্যাপারে বিজিএমই এর কিছু করার নেই বলে জানিয়েছে।

বিজিএমইএ সভাপতি রুবানা হক বলেন, সময়টা খুবই খারাপ যাচ্ছে। আমাদের বেশিরভাগ অর্ডার বাতিল হচ্ছে। পাওনা টাকা আদায় করা যাচ্ছে না। এরপরও আমাদের দেয়া সময়ে অধিকাংশ কারখানা শ্রমিকদের মজুরি পরিশোধ করেছে। বড় সব কারখানা তাদের বেতন পরিশোধ করলেও ছোট ও মাঝারি কিছু কারখানা তাদের বেতন পরিশোধ করতে পারিনি। আমরা তাদের সহযোগিতায় অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছি।

এদিকে বিকেএমইএ সদস্যভুক্ত ৮৩৩টি কারখানার মধ্যে ৮১৯টি কারখানা মালিক তাদের শ্রমিকদের বেতন পরিশোধ করেছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com