হবিগঞ্জে পালিত হচ্ছে কমিউনিটি পুলিশিং ডে ২০২০ মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার” মুজিববর্ষ র‌্যালি

হবিগঞ্জে পালিত হচ্ছে কমিউনিটি পুলিশিং ডে ২০২০ মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার” মুজিববর্ষ র‌্যালি

 

হবিগঞ্জে পালিত হচ্ছে কমিউনিটি পুলিশিং ডে ২০২০ পালিত।

মোঃ সনজব আলীঃ হবিগঞ্জ মুজিববর্ষের মূলমন্ত্র-কমিউনিটি পুলিশিং সর্বত্র” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে নিয়ে কমিউনিটি পুলিশিং ডে ২০২০ পালিত হচ্ছে।

শনিবার (৩১ অক্টোবর) সকাল ১০টায় গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির মাঝেও হবিগঞ্জ জেলা কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির উদ্যোগে হবিগঞ্জ সদর থানা থেকে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাসুক আলীসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও জেলা পুলিশিং কমিটিউনিটির নেতৃবৃন্দ।

পরে টাউন হল রুমে আলোচনা সভা । বক্তব্য রাখেন হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল হাসান, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আলমগীর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা, মোঃ রবিউল ইসলাম পিপিএম অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর হবিগঞ্জ অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাসুক আলী, পৌরসভার মেয়র মিজানুর রহমান মিজান , চৌধুরী, ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে হবিগঞ্জ জেলা পুলিশের সকল থানায় এ পুলিশিং ডে” পালন শুরু হয়েছে।

পুলিশের সাথে জনগণের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধির জন্য কমিউনিটি পুলিশিং বিশেষ ভূমিকা পালন করে আসছে। এর ধারাবাহিকতায় কমিউনিটি পুলিশিং এর কার্যক্রমকে আরো বেগবান ও গতিশীল করার জন্য প্রতি বছর অক্টোবর মাসের শেষ শনিবার “কমিউনিটি পুলিশিং ডে” পালিত হয়ে আসছে।

মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে কেন্দ্রীয়ভাবে কোন অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকছে না। শুধুমাত্র প্রতিটি ডিভিশনে অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দিবসটি পালিত হবে।

করোনার জন্য অতিরিক্ত লোকের সমাগম এড়াতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিটি অনুষ্ঠানে লোক সংখ্যা অনধিক ১০০ জনের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে।

কমিউনিটি পুলিশিং এর কার্যক্রমকে আরো তরান্বিত ও উৎসাহ-উদ্দীপনা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রতিটি বিভাগের সেরা কমিউনিটি পুলিশিং অফিসার ও সদস্যদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হবে।

“কমিউনিটি পুলিশিং ডে” উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে পুলিশ এবং জনগণের সম্পর্ক উন্নয়নের মাধ্যমে বিভিন্ন সামাজিক অপরাধ- ধর্ষণ, নারী ও শিশু নির্যাতন, জঙ্গি, মাদক, এসিড নিক্ষেপ, শিশু অপহরণ, নারী ও শিশু পাচার, বাল্য বিবাহ, ইভটিজিং এবং সন্ত্রাস দমন ও প্রতিরোধে গণসচেতনতা বৃদ্ধির উপর গুরুত্ব আরোপ করা হবে।

কার্যকরী বিট পুলিশিং এর মাধ্যমে পুলিশ ও জনতার মাঝে দূরত্ব কমিয়ে কিভাবে জনবান্ধব পুলিশিং নিশ্চিত করা যায় সে বিষয়ে অলোকপাত করা হবে।

এছাড়াও, কমিউনিটি ট্রাফিক পুলিশিং এর স্বার্থক ব্যবহারের মাধ্যমে প্রশিক্ষিত পরিবহন মালিক, চালক ও হেলপার তৈরি করে গণপরিবহনে শৃঙ্খলা আনয়ন ও দুর্ঘটনা প্রতিরোধ করতে গণসচেতনতা বৃদ্ধির কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে।

পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট সকল থানা এলাকায় ওপেন হাউজ ডে, সার্ভিস ডেলিভারী সেন্টার এবং ওয়ান স্টপ সার্ভিস সমূহের সুবিধা সংক্রান্তে সংশ্লিষ্ট এলাকার জনগণকে অবহিত করা হবে।

পালিত হচ্ছে কমিউনিটি পুলিশিং ডে ২০২০ পালিত।।

মোঃ সনজব আলী হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জে “মুজিববর্ষের মূলমন্ত্র-কমিউনিটি পুলিশিং সর্বত্র” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে নিয়ে কমিউনিটি পুলিশিং ডে ২০২০ পালিত হচ্ছে।

শনিবার (৩১ অক্টোবর) সকাল ১০টায় গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির মাঝেও হবিগঞ্জ জেলা কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির উদ্যোগে হবিগঞ্জ সদর থানা থেকে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাসুক আলীসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও জেলা পুলিশিং কমিটিউনিটির নেতৃবৃন্দ।

পরে টাউন হল রুমে আলোচনা সভা । বক্তব্য রাখেন হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ কামরুল হাসান, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আলমগীর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা, মোঃ রবিউল ইসলাম পিপিএম অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর হবিগঞ্জ অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাসুক আলী, পৌরসভার মেয়র মিজানুর রহমান মিজান , চৌধুরী, ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন,

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে হবিগঞ্জ জেলা পুলিশের সকল থানায় এ পুলিশিং ডে” পালন শুরু হয়েছে।

পুলিশের সাথে জনগণের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধির জন্য কমিউনিটি পুলিশিং বিশেষ ভূমিকা পালন করে আসছে। এর ধারাবাহিকতায় কমিউনিটি পুলিশিং এর কার্যক্রমকে আরো বেগবান ও গতিশীল করার জন্য প্রতি বছর অক্টোবর মাসের শেষ শনিবার “কমিউনিটি পুলিশিং ডে” পালিত হয়ে আসছে।

মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে কেন্দ্রীয়ভাবে কোন অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকছে না। শুধুমাত্র প্রতিটি ডিভিশনে অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দিবসটি পালিত হবে।

করোনার জন্য অতিরিক্ত লোকের সমাগম এড়াতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রতিটি অনুষ্ঠানে লোক সংখ্যা অনধিক ১০০ জনের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে।

কমিউনিটি পুলিশিং এর কার্যক্রমকে আরো তরান্বিত ও উৎসাহ-উদ্দীপনা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রতিটি বিভাগের সেরা কমিউনিটি পুলিশিং অফিসার ও সদস্যদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হবে।

“কমিউনিটি পুলিশিং ডে” উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে পুলিশ এবং জনগণের সম্পর্ক উন্নয়নের মাধ্যমে বিভিন্ন সামাজিক অপরাধ- ধর্ষণ, নারী ও শিশু নির্যাতন, জঙ্গি, মাদক, এসিড নিক্ষেপ, শিশু অপহরণ, নারী ও শিশু পাচার, বাল্য বিবাহ, ইভটিজিং এবং সন্ত্রাস দমন ও প্রতিরোধে গণসচেতনতা বৃদ্ধির উপর গুরুত্ব আরোপ করা হবে।

কার্যকরী বিট পুলিশিং এর মাধ্যমে পুলিশ ও জনতার মাঝে দূরত্ব কমিয়ে কিভাবে জনবান্ধব পুলিশিং নিশ্চিত করা যায় সে বিষয়ে অলোকপাত করা হবে।

এছাড়াও, কমিউনিটি ট্রাফিক পুলিশিং এর স্বার্থক ব্যবহারের মাধ্যমে প্রশিক্ষিত পরিবহন মালিক, চালক ও হেলপার তৈরি করে গণপরিবহনে শৃঙ্খলা আনয়ন ও দুর্ঘটনা প্রতিরোধ করতে গণসচেতনতা বৃদ্ধির কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে।


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com