হবিগঞ্জে নদী সংরক্ষণে পর্যটনমন্ত্রীর কাছে ৭ দাবি

হবিগঞ্জে নদী সংরক্ষণে পর্যটনমন্ত্রীর কাছে ৭ দাবি

হবিগঞ্জে নদী সংরক্ষণে পর্যটনমন্ত্রীর কাছে ৭ দাবি
হবিগঞ্জে নদী সংরক্ষণে পর্যটনমন্ত্রীর কাছে ৭ দাবি

নিজস্ব প্রতিনিধি: হবিগঞ্জের খোয়াই নদী, পুরাতন খোয়াই নদী, সুতাং নদীসহ অন্যান্য নদী সংরক্ষণের জন্য সাতটি দাবী জানিয়ে বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মোঃ মাহবুব আলী এমপির স্মারকলিপি দেয়া হয়েছে।

শনিবার (৪ মে) সকাল ১১টায় জেলা সার্কিট হাউসে এই স্মারকলিপি দেন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) ও খোয়াই রিভার ওয়াটারকিপার এর একটি প্রতিনিধিদল।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- বাপার জেলা সভাপতি অধ্যাপক মোঃ ইকরামুল ওয়াদু, সেক্রেটারি ও খোয়াই রিভার ওয়াটারকিপার তোফাজ্জল সোহেল, নদী জলাশয় ও পুকুর রক্ষা আন্দোলনের সদস্য সচিব আহসানুল হক সুজা, বাপা সদস্য এডভোকেট বিজন বিহারী দাস, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

দাবিগুলোর মধ্যে-খোয়াই নদী খনন করে নদীর তলদেশ গড় উচ্চতা থেকে কমপক্ষে দশফুট গভীরে নিতে হবে। বাঁধের দুর্বল ও ক্ষয়ে যাওয়া অংশগুলো মেরামত এবং বাঁধের উভয় পাড়ে গজিয়ে উঠা সকল অবৈধ দখলদার ও স্থাপনা উচ্ছেদ করতে হবে।

খোয়াই নদী থেকে অপরিকল্পিত ও অনিয়ন্ত্রিত বালু/মাটি উত্তোলন বন্ধ করতে হবে এবং নদীর তীরে নিক্ষিপ্ত বর্জ্য অপসারণ করে বর্জ্য নিক্ষেপ বন্ধ করতে হবে। অবিলম্বে পুরাতন খোয়াই নদীর অবৈধ দখল উচ্ছেদ করতে হবে।

পুরাতন খোয়াই নদীকে পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে দখলকারীদের মাধ্যমে ভরাট অংশের মাটি সরিয়ে নিতে ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে এবং নদী দখলকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

নদীর পাড়ে ঘাষ লাগানো, গাছ রোপন, মানুষের বসার স্থান নির্মাণ করতে হবে।

কৃষিজমি বিনষ্ট করে কোন ধরণের কল-কারখানার অনুমোদন দেওয়া যাবে না। যে সকল কল
কারখানা ইতিমধ্যে গড়ে উঠেছে এগুলোর ‘উৎসে বর্জ্য পরিশোধন’ ব্যবস্থা (ইটিপি) নিশ্চিত না
হওয়া পর্যন্ত কোনভাবে চালু রাখা যাবে না এবং পরিবেশ দূষণকারী কারখানার বিরুদ্ধে প্রচলিত
আইনী ব্যবস্থা নিতে হবে।

সুতাং নদী পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে আনাসহ এলাকাবাসীর যথাযথ ক্ষতিপূরণ নিশ্চিত করতে হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com