স্বামীর পিটুনিতে অন্যায় নেই, মনে করেন ৪৯% নারী!

স্বামীর পিটুনিতে অন্যায় নেই, মনে করেন ৪৯% নারী!

দুনিয়ার যেকোনো স্থানের নারী-পুরুষ নির্বিশেষে এই কথায় চমকাবেন, যদি শোনেন- স্বামীর পিটুনিকে অন্যায় মনে করেন না ৪৯ শতাংশ নারী! হ্যাঁ, এই তথ্য মহারাষ্ট্রে চালানো এক জরিপে উঠে এসেছে। পারিবারিক সহিংসতার ওপর ভারতের ন্যাশনাল ফ্যামিলি হেলথ সার্ভে ২০১৫-১৬-এর জরিপে চমকানো এই তথ্য জানা গেছে। এতে অংশ নেওয়া নারীদের শতকরা ৪৯ জনই কীভাবে এটা মানছেন যে একজন পুরুষ তার সহধর্মিণীকে মারপিট করতেই পারে এবং এটা অন্যায় না! এই প্রশ্ন সচেতন মহলকে হতবাক করে দিয়েছে। জরিপে অংশ নেওয়া কয়েকজন নারী মত প্রকাশ করে বলেন, স্বামীর কথা না মানলে সে তো বউ পেটাবেই।

স্বামীর পিটুনিকে ‘হালাল’ বলে মেনে নেওয়া এই নারীদের মতে- বউ যদি ঘরের কাজ ঠিক মতো না করে, সন্তানদের দেখভালে বেখেয়াল থাকে কিংবা স্বামীর শারীরিক সম্পর্কের ইচ্ছায় বাধা দেয়, তাহলে স্বামী মারপিট করলে এটা দোষণীয় নয়। ৩৬৭২ জন নারীর প্রায় ৭৫% জানান যে তাদের স্বামীরা মদ্যপ অবস্থায় ঘরে ফিরে রাগের বশে তাদের পেটায়। এদের মধ্যে ১৬ ভাগ নারীর স্বামী চা পান করে। তবে চায়ে আসক্ত স্বামীরা স্ত্রীদের ‘ধোলাই করে না’ ভাবলে ভুল হবে। জরিপ মতে, চা-পায়ী স্বামীরাও স্ত্রীদের পেটায়। আরো জানা গেছে, ২০% নারীর স্বামী তাদের চপেটাঘাত করে থাকে। জরিপে হতাশাজনক আরো একটি তথ্য হলো- শ্বশুরবাড়ির লোকজন এবং স্বামীর দ্বারা মানসিক, শারীরিক, আত্মিক নির্যাতন আর যৌন শোষণের পরও মাত্র ৯% নির্যাতন রোধে অন্যের সাহায্য নেয়। মহারাষ্ট্রে পরিচালিত ওই জরিপে ১৫ থেকে ৪৯ বছর বয়সী মোট ৪৬৫৮ জন নারী ৪৪৯৭ জন পুরুষ অংশ নেয়।এ প্রসঙ্গে মনোবিদ ডা. অদিতি আচার্য বলেন, অনেক নারী স্বামীর ওপর নির্ভরশীল হওয়ার কারণে তার বিরুদ্ধে কোনো প্রতিবাদী পদক্ষেপ নেয় না। শুধু এটাই নয়, অনেক নারী নিজে যখন অপর কোনো নারীর শ্বশুরপক্ষ হন, তখন তাদের দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টে যায়। দেখা যায় অনেক শাশুড়ি আছেন যিনি নিজে শ্বশুরবাড়ির নির্যাতনের শিকার হয়েও তার ছেলে যখন বউকে পেটায়- তার বিরোধিতা করেন না।

মহারাষ্ট্রের থানে শহরের মেয়র মীণাক্ষী শিন্দে বলেন, পারিবারিক হিংসার অনেক অভিযোগ পাই। কিন্তু নারীরা পারিবারিক সম্মান বা ঐতিহ্যের কাছে মাথা নত করে ফেলে। কিছু নারী আছেন যারা স্বামীর বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর আত্মবিশ্বাসই যোগাড় করতে পারেন না… নারীদের উচিত সমাজ নিয়ে না ভেবে তাদের জন্য কোনটা ঠিক তা নিয়ে ভাবনা চিন্তা করা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com