সাহায্যের হাত বাড়ালেন শচিন

সাহায্যের হাত বাড়ালেন শচিন

lokaloy24.com

লোকালয় ডেস্ক: পৃথিবীব্যাপী চলমান করোনা সংকটে ভারতের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান শচিন টেন্ডুলকার সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। করোনার প্রাদুর্ভাব ঠেকানোর লড়াইয়ে সামিল হয়ে ৫০ লাখ রুপি (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৫৬ লাখ ১৯ হাজার টাকা) দান করেছেন শচিন। ভারতের প্রথম সারির ক্রীড়া তারকাদের মধ্যে তার দান এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম ‘ইন্ডিয়া টুডে’।

মরণ ভাইরাস করোনা পৃথিবীজুড়ে খেলার মাঠ স্তব্ধ করলেও সংকটের মুহূর্তে একাট্টা হয়ে লড়াই করছেন ক্রীড়াঙ্গনের তারকা থেকে শুরু করে স্পোর্টস ক্লাব ও ফেডারেশনগুলো। অনেক ক্রীড়া তারকা নিজেদের বেতনের সমপরিমাণ কিংবা অর্ধেক বেতনের অর্থ দান করেছেন, আবার অনেকেই মেডিকেল সরঞ্জাম কিনে দিয়েছেন। সে লড়াইয়ে এবার নাম লেখিয়েছেন শচিন।

করোনা ভাইরাসের কারণে সবচে বেশি ভুগতে হচ্ছে নিম্ন আয়ের মানুষদের। বিশ্বের বড় বড় ক্রীড়াবিদরা তাদের সাহায্যে এগিয়ে এসেছেন। লিওনেল মেসি, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, রজার ফেদেরারদের মতো গ্রেটদের পথ ধরে অসহায়দের পাশে দাঁড়ালেন শচিন টেন্ডুলকার। ক্রিকেট ছাড়ার পর ভারতের এই ব্যাটিং গ্রেট বিভিন্ন চ্যারিটির সঙ্গে নিজেকে যুক্ত করেন। এর আগেও এসব সংস্থার মাধ্যমে জনসচেতনতামূলক কাজ করেছেন তিনি। অনেক মানুষকে আর্থিক সাহায্য করেছেন। আর মানুষের কল্যাণে পাশে দাঁড়ানোর খবরগুলো সব সময় আড়াল করতে চান। এবারো তিনি গোপনে দান করেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সূত্র ভারতীয় সংবাদসংস্থা পিটিআইকে দেয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়েছে, ‘মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর এবং প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ২৫ লাখ রুপি করে দান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন শচিন। উভয় ফান্ডে দান করার সিদ্ধান্ত টেন্ডুলকার নিজেই নিয়েছেন।’

এদিকে ভারতের অন্যান্য ক্রীড়া তারকাদের মধ্যে দুই ভাই ইরফান পাঠান ও ইউসুফ পাঠান মিলে বারোদা পুলিশ ও স্বাস্থ্য বিভাগকে ৪ হাজার মাস্ক দিয়েছেন। বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি পুনেভিত্তিক একটি এনজিওকে ১ লাখ রুপি দিয়েছেন। এছাড়া পশ্চিমবঙ্গে করোনার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের সহায়তায় ৫০ লাখ রুপির চাল দান করেছেন ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতি ও সাবেক অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি।
করোনা পরিস্থিতি দিনকে দিন খারাপ হচ্ছে ভারতেও। এখন পর্যন্ত ৭৫৩ জন আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। মারা গেছে ২০ জন। ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে পুরো দেশকে ২৪ মার্চ থেকে ২১ দিনের লকডাউন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এই অবস্থায় খেটে খাওয়া মানুষদের রোজগার বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন তারা। সারা বিশ্বে আক্রান্তের সংখ্যা ৫ লাখ ৩২ হাজার ২৬২ এবং মৃতের সংখ্যা ২৪ হাজার ৯০।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com