সংবাদ শিরোনাম :
ঠাকুরগাঁওয়ে পীরগঞ্জে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে বাড়িছাড়া হিন্দু পরিবার ঠাকুরগাঁওয়ে রাণীশংকৈলে ইয়াবাসহ দুই যুবক আটক হবিগঞ্জে শিকলে বেঁধে গৃহবধূকে নির্যাতনের ঘটনায় স্বামী ভিংরাজ গ্রেফতার হবিগঞ্জে বঙ্গবন্ধু কর্ণার উদ্বোধন হবিগঞ্জ শহরে মুন হাসপাতাল এবং চিকিৎসককে জরিমানা ঠাকুরগাঁওয়ে ধনীর মেয়েকে বিয়ে করার দায়ে গরিবের ছেলেকে গাছে বেধে নির্যাতন পর্তুগাল বিএনপির সভাপতি মাফিয়া ওলিউর দু’পুত্র ও সহোদর সহ পর্তুগাল পুলিশের খাঁচায় বন্দী হবিগঞ্জ বাহুবল উপজেলা চেয়ারম্যান খলিলুর রহমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্তে বিভাগীয় কমিশনার ইসলামে দান-সদকার সওয়াব অপরিসীম ৬ ঘণ্টা নয়, ৪ ঘণ্টা বন্ধ থাকবে সিএনজি ফিলিং স্টেশন
সারাবিশ্ব না থাকলেও কাশ্মীরিদের পাশে পাকিস্তান থাকবে: ইমরান

সারাবিশ্ব না থাকলেও কাশ্মীরিদের পাশে পাকিস্তান থাকবে: ইমরান

সারাবিশ্ব না থাকলেও কাশ্মীরিদের পাশে পাকিস্তান থাকবে: ইমরান
সারাবিশ্ব না থাকলেও কাশ্মীরিদের পাশে পাকিস্তান থাকবে: ইমরান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অহংকার ও ভুলের কারণে কাশ্মীরিদের স্বাধীনতার ঐতিহাসিক সুযোগ এসেছে বলে মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

কাশ্মীরের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে সোমবার জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে তিনি এ মন্তব্য করেন।

টেলি ভিডিও মাধ্যমে জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে ইমরান খান বলেন, ৮০ লক্ষ কাশ্মীরির পাশে আছেন তিনি। জম্মু কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহার নিয়ে ভারত সরকারকে এক হাত নিয়েছেন পাক প্রধানমন্ত্রী।

ইমরান খান বলেন, “কাশ্মীরিদের স্বায়ত্তশাসন প্রত্যাহার করে ঐতিহাসিক ভুল করেছেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ঔদ্ধত্য থেকে। কাশ্মীরে প্রচুর সেনা মোতায়েন করে কাশ্মীরকে আত্মসাৎ করেছে ভারত সরকার। ওরা নেহরুর কাশ্মীরকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি ভেঙেছে, ওরা নিজেদের আদালতের বিরুদ্ধে গিয়েছে, ওরা রাষ্ট্র সংঘের অনুমোদিত সিদ্ধান্তকে অমান্য করেছে। সারা দুনিয়া ৮০ লক্ষ কাশ্মীরিদের পাশে থাকুক বা না থাকুক, পাকিস্তান কাশ্মীরের পাশে রয়েছে।”

পুলওয়ামা হামলার পরবারত-পাক সম্পর্কের অবনতি নিয়েও মুখ খুলেছেন ইমরান। তিনি বলেন, “স্থানীয় কাশ্মীরি যুবকের এই হামলার পিছনে উদ্দেশ্য বা কারণ কী তা নিয়ে তদন্ত করার বদলে ভারত সরকার পাকিস্তানের উপর দোষ চাপিয়ে দিয়েছে।”

এদিনের ভাষণে আরএসএসকেও নিশানা করেন পাক প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, “মোদী নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকারকে আদর্শগত অনুপ্রেরণা জোগায় আরএসএস, যারা বিশ্বাস করে ভারত হিন্দুদের দেশ এবং সমস্ত সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক হিসেবে গণ্য করে। এই ভাবনা থেকেই কাশ্মীর নিয়ে পদক্ষেপ করেছে ভারত সরকার।”

ভাষণের শুরুতে ইমরান খান বলেন, আমি আজ শুধু কাশ্মীর নিয়েই কথা বলব। কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি কী? আমরা এ পর্যন্ত সংকট নিরসনে কী কী উদ্যোগ নিয়েছি।

ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকে ভারতের সঙ্গে আলোচনা করতে চেয়েছেন দাবি করে পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, ক্ষমতায় আসার পরই আমি ঘোষণা করেছি, ভারত যদি সম্পর্কোন্নয়নে এক কদম এগিয়ে আসে, তাহলে আমরা দু’কদম এগিয়ে যাব। কাশ্মীরের বিষয়েও আমরা আলোচনার কথা বলেছি। কিন্তু ভারত শুরু থেকেই আমাদের ওপর সন্ত্রাসবাদেরও অপবাদ আরোপ করছে।

জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে ইমরান খান বলেন, ৫ আগস্ট কাশ্মীরকে গোটা বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন করে মোদি সরকার বিশ্বকে এ বার্তা দিয়েছে যে, ভারত শুধু হিন্দুদের। বিজেপি ও আরএসএস এ মতাদর্শ নিয়ে কাজ করছে। নরেন্দ্র মোদিও আরএসএসের সদস্য ছিলেন। মুসলিম বিদ্বেষ নিয়েই তারা পরিকল্পিতভাবে কাজ করছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com