শিশু সন্তানের সামনেই গৃহবধূকে গণধর্ষণ, ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার

শিশু সন্তানের সামনেই গৃহবধূকে গণধর্ষণ, ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার

শিশু সন্তানের সামনেই গৃহবধূকে গণধর্ষণ, ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার
শিশু সন্তানের সামনেই গৃহবধূকে গণধর্ষণ, ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার

ভোলা- ভোলার মনপুরায় এক স্পিডবোট যাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় স্পিডবোটের মালিক ও সাকুচিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নজরুল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রবিবার (২৭ অক্টোবর) রাতে উপজেলার সাকুচিয়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এর আগে শনিবার উপজেলার চর পিয়াল এলাকায় ধর্ষণের এ ঘটনা ঘটে। পরে নির্যাতিতা বাদী হয়ে রবিবার মনপুরা থানায় পাঁচজনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করেন।

মনপুরা থানার ওসি সাখাওয়াত হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, চরফ্যাশনের দক্ষিণ আইচার বাবার বাড়ি থেকে স্পিডবোটে করে মনপুরায় শ্বশুরবাড়িতে যাওয়ার পথে গৃহবধূ প্রথমে গণধর্ষণ ও পরে ছাত্রলীগ নেতার ধর্ষণের শিকার হন। আড়াই বছরের সন্তানের সামনে তাকে গণধর্ষণ করা হয়।

গণধর্ষণে অভিযুক্ত অপর আসামিরা হলেন- মো. নজরুল ইসলাম, মো. শাহীন, মো. কিরণ, রাসেদ পালোয়ান, ও স্পিডবোট চালক রিয়াজ উদ্দিন। তাদের বাড়ি দক্ষিণ সাকুচিয়া ইউনিয়নের রহমানপুর গ্রামের ৭নং ওয়ার্ডে।

গৃহবধূ জানান, চরফ্যাশনের বেতুয়া লঞ্চঘাট থেকে মনপুরার উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া লঞ্চ না পেয়ে তিনি এক স্পিডবোটে ওঠেন। বোটে আরও দুজন যাত্রী ওঠে। পথিমধ্যে জনতার খালের পাড় থেকে আরও দুজন ওঠে। একপর্যায়ে ওই যাত্রীরা স্পিডবোট চালককে চরপিয়ালে নিয়ে যেতে বাধ্য করে। সেখানে তাকে চারজন ধর্ষণ করে।

এরপর জনতার খাল থেকে স্পিডবোট নিয়ে চালক ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নজরুলের কাছে নিয়ে যান। নজরুল তখন চারজনকে মারধর করে তিন হাজার টাকা নিয়ে তাদের ছেড়ে দেয়।

এর পর নজরুল চরে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে এবং এক হাজার টাকা দেয়। নাম না বলতে হুমকি দেয়। নাম বললে ধারণ করা ভিডিও ফেসবুকে ছেড়ে দেয়ারও হুমকি দেয় নজরুল।

এ ধর্ষণের ঘটনা স্বীকার করে স্পিডবোটের চালক রিয়াজ জানান, গৃহবধূকে চরপিয়ালে নিয়ে চারজন গণধর্ষণ করে। এর পর ঘটনাটি স্পিডবোটের মালিক নজরুলকে জানান। কিন্তু নজরুল স্পিডবোটে করে গৃহবধূকে আবার চরপিয়ালে নিয়ে ধর্ষণ করে। চরের ভেতর ওই গৃহবধূকে নিয়ে নজরুল এক ঘণ্টা থাকে।

এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান অলি উল্লাহ কাজল জানান, চরপিয়ালের গণধর্ষণের ঘটনাটি মোবাইল ফোনে মহিষ বাথানরা তাকে জানান। ঘটনাটি মনপুরা থানার ওসিকে জানানো হলে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার গৃহবধূকে চর থেকে উদ্ধার করা হয়।

ওসি সাখাওয়াত হোসেন আরো জানান, এ ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা নজরুল ইসলামকে রবিবার রাতে উপজেলার সাকুচিয়া এলাকা থেকে গ্রফতার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেফতার করতে পুলিশের একাধিক দল কাজ করছে।

ভোলার সিভিল সারজন ডা. রথিন্দ্রনাথ রায় জানান, ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা রবিবার রাতেই সমপন্ন হয়েছে। ভোলা সদর হাসপাতালের মেডিক্যাল অফিসার ডা. ফারজানা বেগম ভিকটিমকে পরীক্ষা করেন। আজ সোমবার এই রিপোর্ট ভোলার পুলিশ সুপারের নিকট পাঠানো হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com