সংবাদ শিরোনাম :
ঠাকুরগাঁওয়ে পীরগঞ্জে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে বাড়িছাড়া হিন্দু পরিবার ঠাকুরগাঁওয়ে রাণীশংকৈলে ইয়াবাসহ দুই যুবক আটক হবিগঞ্জে শিকলে বেঁধে গৃহবধূকে নির্যাতনের ঘটনায় স্বামী ভিংরাজ গ্রেফতার হবিগঞ্জে বঙ্গবন্ধু কর্ণার উদ্বোধন হবিগঞ্জ শহরে মুন হাসপাতাল এবং চিকিৎসককে জরিমানা ঠাকুরগাঁওয়ে ধনীর মেয়েকে বিয়ে করার দায়ে গরিবের ছেলেকে গাছে বেধে নির্যাতন পর্তুগাল বিএনপির সভাপতি মাফিয়া ওলিউর দু’পুত্র ও সহোদর সহ পর্তুগাল পুলিশের খাঁচায় বন্দী হবিগঞ্জ বাহুবল উপজেলা চেয়ারম্যান খলিলুর রহমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্তে বিভাগীয় কমিশনার ইসলামে দান-সদকার সওয়াব অপরিসীম ৬ ঘণ্টা নয়, ৪ ঘণ্টা বন্ধ থাকবে সিএনজি ফিলিং স্টেশন
শহীদ মিনার ভেঙে বাবার মুর‌্যাল বানালেন এমপি

শহীদ মিনার ভেঙে বাবার মুর‌্যাল বানালেন এমপি

শহীদ মিনার ভেঙে বাবার মুর‌্যাল বানালেন এমপি
শহীদ মিনার ভেঙে বাবার মুর‌্যাল বানালেন এমপি

পাবনা- পাবনায় একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভাষা শহীদদের স্মরণে নির্মিত মিনার ভেঙে স্থানীয় সংসদ সদস্যের বাবার মুর‌্যাল তৈরি করা হয়েছে।

সুজানগর উপজেলার সাতবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজ প্রাঙ্গণে এই ম্যুরালের নির্মাণকাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। শহীদ মিনার ভেঙে এমপির বাবার ম্যুরাল নির্মাণের ঘটনায় স্থানীয় শিক্ষক, ছাত্রছাত্রী, ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন মহলে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

সাতবাড়িয়া ডিগ্রি কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ফজলুল হক বলেন, কলেজ পরিচালনা কমিটি জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের পরামর্শে জায়গা নির্ধারণ করে স্থানীয় সংসদ সদস্য আহমেদ ফিরোজ কবিরের নিজ অর্থায়নে ম্যুরালটি নির্মাণ করা হচ্ছে। শহীদ মিনারটি জীর্ণ দশায় ছিল। আগামী ২১ ফেব্রুয়ারির আগেই কলেজ মাঠের দক্ষিণ পাশে বড় পরিসরে শহীদ মিনার নির্মাণ করা হবে।

সাতবাড়িয়া কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল বাছেত বাচ্চু বলেন, পাবনা-২ আসনের এমপি আহমেদ ফিরোজ কবিরের বাবা মরহুম আহমেদ তফিজ উদ্দিন তিনবারের এমপি এবং দুবারের উপজেলা চেয়ারম্যান ছিলেন। ১৯৬৬ সালে সাতবাড়িয়া কলেজ প্রতিষ্ঠায় তার অবদান রয়েছে। তার স্মৃতি রক্ষায় ম্যুরালটি তৈরি হচ্ছে।

তিনি বলেন, পুরনো শহীদ মিনারটির ডিজাইন ভুল ছিল এবং এটি ছিল কলেজের মূল গেটসংলগ্ন। শিক্ষার্থীদের এতে ফুল দেয়ায় সমস্যা হতো। এ জন্য ২০১৮ সালের জুন মাসের পরিচালনা পরিষদের সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়, কলেজ ক্যাম্পাসের দক্ষিণ পাশে নতুন শহীদ মিনার নির্মাণ করা হবে। তবে টেকনিক্যাল ভুল হয়েছে, শহীদ মিনার নির্মাণকাজ শুরুর পর ম্যুরাল নির্মাণ করা উচিত ছিল।

এদিকে, বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী, ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন মহলে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে তারা জানান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মতো স্থানে ভাষা শহীদদের স্মরণে নির্মিত শহীদ মিনার ভেঙে ব্যক্তি বিশেষের ম্যুরাল তৈরি করা চরম নিন্দনীয়। কলেজ কর্তৃপক্ষ ব্যক্তি স্বার্থ চরিতার্থ করার অসৎ উদ্দেশেই এই কাজটি করেছে। যা সরাসরি বাংলাদেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের প্রতি আঘাত করে।

এ ব্যাপারে পাবনার জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, শহীদ মিনার পাবনা জেলার ব্র্যান্ডিংয়ের বিষয়। এ জেলার শতভাগ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নির্মাণ করা হয়েছে। ভুল বোঝার অবকাশ নেই।

তিনি বলেন, পরিচালনা পরিষদের নেয়া আগের সিদ্ধান্ত মোতাবেক আজই ক্যাম্পাসে নতুন শহীদ মিনার নির্মাণের কাজ শুরু করার জন্য ইউএনওকে নির্দেশ দিয়েছি।

বিষয়টি নিয়ে পাবনা-২ আসনের সংসদ সদস্য আহমেদ ফিরোজ কবিরের সাথে মুঠোফোনে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি। সংবাদ লেখা অবদি তার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com