সংবাদ শিরোনাম :
শহরে অপহরণ মামলায় পিতা-পুত্রের জামিন ॥ প্রধান আসামি হিফজুর পলাতক

শহরে অপহরণ মামলায় পিতা-পুত্রের জামিন ॥ প্রধান আসামি হিফজুর পলাতক

পলাতক প্রধান আসামি মোঃ হিফজুর রহমান (ফাইল ছবি)

স্টাফ রিপোর্টার ॥ হবিগঞ্জ শহরতলীর আলমপুরে ওয়াসিম আলম চৌধুরী (২৭) নামের ব্যবসায়ী অপহরণের ঘটনায় এখনও পলাতক প্রধান আসামি মোঃ হিফজুর রহমান। তবে এ ঘটনায় গ্রেফতারকৃত তার ভাই নাহিন চৌধুরী (২২) ও পিতা আব্দুল মজিদ চৌধুরী (৬৬) জামিন আবেদন করলে প্রায় আড়াই মাস পর তাদের জমিন মঞ্জুর করেন আদালত।
পুলিশ ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, জমিজমা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে একই গ্রামের আব্দুল মজিদ চৌধুরীর সাথে ওয়াসিমের পিতার বিরোধ চলে আসছিলো। জের ধরে উভয় পরিবারের মাঝে প্রায় সময়ই তাদের মাঝে মারামারিসহ দাঙ্গা হাঙ্গামা হতো। স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বিরোধ নিষ্পত্তির লক্ষ্যে একাধিকবার সালিশ বৈঠক করে ব্যর্থ হন। মোঃ হিফজুর রহমান বিভিন্ন সময় ওয়াসিম আলম চৌধুরীকে হুমকি ধামকি দিতো। এমনকি তার পরিবারের সদস্যদের ওপর হামলা করে। তাদের আশংকা এই কারণেই মোঃ হিফজুর রহমান ও তার বাহিনী ওয়াসিম আলম চৌধুরীকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে গেছে। এ ঘটনায় ওয়াসিম আলম চৌধুরীর আত্মীয় তুহিন আলম চৌধুরী বাদি হয়ে হবিগঞ্জ সদর থানায় মামলা করলে মামলাটি এফআইরগণ্যে রুজু করা হয়।
গত ১০ এপ্রিল রাত ১২টার দিকে ওয়াসিম আলম চৌধুরী তার ব্যবসায়িক কাজ শেষে হবিগঞ্জ শহর থেকে কাগাপাশা ইউনিয়নের চান্দপুর তার গ্রামের বাড়িতে যাচ্ছিলেন। এ সময় আলমপুর নামকস্থানে পৌঁছলে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা বানিয়াচং উপজেলার কাগাপাশা ইউনিয়নের চান্দপুর গ্রামের আব্দুল মজিদ চৌধুরীর পুত্র মোঃ হিফজুর রহমান, নাহিন চৌধুরী, ও মৃত আব্দুল হাসিম চৌধুরীর পুত্র আব্দুল মজিদ চৌধুরীসহ একদল লোক ওয়াসিমের ওপর হামলা চালায়। তারা দেশীয় প্রাণনাশক অস্ত্র দিয়ে ওয়াসিমকে আহত করে এবং জোরপূর্বক তাকে গাড়িতে তুলে অজ্ঞাত স্থানের উদ্দেশ্যে নিয়ে যায়। রাতভর তাকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুজি করে না পেয়ে ১১ এপ্রিল সকালে হবিগঞ্জ সদর থানায় অভিযোগ করেন ওয়াসিমের আত্মীয় হবিগঞ্জ শহরের উত্তর শ্যামলী এলাকার বাসিন্দা আব্দুল মন্নান চৌধুরীর পুত্র তুহিন আলম চৌধুরী। এ ঘটনায় পুলিশ নাহিন চৌধুরী ও আব্দুল মজিদ চৌধুরীকে গ্রেফতার করে কারাগারে প্রেরণ করে। প্রায় আড়াই মাস কারাভোগের পর তারা আদালত থেকে জামিন লাভ করেন।
এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদর মডেল থানার এসআই ইয়াসির আহমেদ জানান, অচিরেই এ বিষয়ে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com