সংবাদ শিরোনাম :
‘হাওয়া’ ছবিতে বন্য প্রাণী আইন লঙ্ঘিত হয়েছে, দাবি বন্য প্রাণী অপরাধ দমন ইউনিটের আগামীতে সিলেট-নিউইয়র্ক সরাসরি ফ্লাইট: বিমান প্রতিমন্ত্রী কাতার বিশ্বকাপ একদিন এগিয়ে আনলো ফিফা ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত সমুদ্রবন্দরে, বৃষ্টির পূর্বাভাস শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সাপ্তাহিক ছুটি বাড়ানোর বিষয়ে ভাবছে সরকার : শিক্ষামন্ত্রী অটোরিকশা থেকে লাফ দিয়ে পড়ে মারা গেলেন শায়েস্তাগঞ্জে স্কুল শিক্ষিকা সুপ্তা বৈশ্বিক মন্দায়ও অন্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ ভালো আছে : সিলেটে পররাষ্ট্রমন্ত্রী পদ্মা সেতু হয়ে টুঙ্গিপাড়ায় গেলেন প্রধানমন্ত্রী নবীগঞ্জে গ্রামীণফোনের নেটওয়ার্ক বিড়ম্বনায় গ্রাহকরা মাকে খুন করে লাশের পাশেই রাত কাটালেন ছেলে
রাজীবের মৃত্যুতে সড়ক নয়, পরিবহন অব্যবস্থাপনা দায়ী: সেতুমন্ত্রী

রাজীবের মৃত্যুতে সড়ক নয়, পরিবহন অব্যবস্থাপনা দায়ী: সেতুমন্ত্রী

রাজীবের মৃত্যুতে সড়ক নয়, পরিবহন অব্যবস্থাপনা দায়ী: সেতুমন্ত্রী
রাজীবের মৃত্যুতে সড়ক নয়, পরিবহন অব্যবস্থাপনা দায়ী: সেতুমন্ত্রী

লোকালয় ডেস্কঃ দুই বাসের রেষারেষিতে কলেজছাত্র রাজীব হোসেনের হাত বিচ্ছিন্ন হওয়া এবং পরে তার মৃত্যুর জন্য সড়ক ব্যবস্থাপনা দায়ী নয় বলে মনে করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তার মতে, পরিবহন অব্যবস্থাপনার জন্য দুর্ঘটনাটি হয়েছে। চালকদের অসচেতনতা ও রেষারেষির কারণেই এটি হয়েছে।

বুধবার (১৮ এপ্রিল) রাজধানীর হাতিরঝিল এলাকায় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিদর্শনকালে কাদের সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছিলেন।

একটি দৈনিকে রাজীবের দুর্ঘটনার জন্য সড়ক ব্যবস্থাপনাকে দায়ী করা হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এটা তো সড়ক ব্যবস্থাপনার কারণে হয়নি। খারাপ রাস্তা বা সড়ক অব্যবস্থাপনার কারণে নয়, এটা হয়েছে পরিবহন অব্যবস্থানার কারণে। হয়েছে চালকদের অসচেতনতা ও রেষারেষির কারণে। সুতরাং চালকদের আরও সচেতন হতে হবে।

আসন্ন খুলনা ও গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েনে বিএনপির দাবি প্রসঙ্গে কাদের বলেন, নির্বাচন কমিশন তো বলেছে স্থানীয় নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের দরকার নেই। আর তারা (বিএনপি) যখন ক্ষমতায় ছিল তখন তো এমন সেনা মোতায়েন চায়নি।

গত ৩ এপ্রিল রাজধানীর কারওয়ান বাজারে পান্থকুঞ্জ পার্কের সামনে বিআরটিসির একটি বাসের সঙ্গে স্বজন পরিবহনের একটি বাসের টক্করে দুই বাসের চাপায় পড়ে ডান হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় রাজীবের। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে নিকটস্থ হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও পরদিন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে সরকারের তত্ত্বাবধানে তার চিকিৎসা চলছিলো।  কিন্তু গত সোমবার (১৬ এপ্রিল) দিনগত রাত ১২টা ৪০ মিনিটে তাকে মৃত ঘোষণা করেন ঢামেকের চিকিৎসকরা।

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার বাসিন্দা রাজীব তৃতীয় শ্রেণীতে পড়াকালে মাকে এবং অষ্টম শ্রেণীতে পড়াকালে বাবাকে হারান। এরপর মতিঝিলে খালা জাহানারা বেগমের বাসায় থেকে এসএসসি ও এইচএসসি পাস করেন। মহাখালীর তিতুমীর কলেজে স্নাতকে ভর্তি হওয়ার পর যাত্রাবাড়ীতে মেসে ভাড়ায় থেকে পড়াশোনা করছিলেন রাজীব। পাশাপাশি তিনি একটি কম্পিউটারের দোকানেও কাজ করছিলেন। নিজের পড়াশোনার পাশাপাশি ছোট দুই ভাইয়ের খরচও চালাতে হতো রাজীবকে।

মৃত্যুর পর মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) বাদজোহর হাইকোর্ট মসজিদে রাজীবের প্রথম নামাজে জানাজা সম্পন্ন হয়। রাতে তার মরদেহ গ্রামের বাড়ি বাউফলের দাসপাড়ায় পৌঁছায়। সকাল ৯টায় বাউফল সদরের পাবলিক মাঠে রাজীবের দ্বিতীয় নামাজে জানাজা সম্পন্ন হয়। এরপর নানা-নানীর কবরের পাশেই চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয় রাজীবকে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com