সংবাদ শিরোনাম :
আজমিরিগঞ্জ কালনী কুশিয়ারা নদীতে ব্যাপক ভাঙ্গন বানিয়াচং ক্রিকেট ক্লাবের নয়া কমিটির অভিষেক ও পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত  ঠাকুরগাঁওয়ে জ্বালানি তেল  সংকট! পীরগঞ্জে ম্যাটস্ এন্ড নার্সিং ইনস্টিটিউটের উদ্বোধন করেন–বিচারপতি মোঃ নজরুল ইসলাম তালুকদার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মালদ্বীপ প্রবাসীদের ক্যাপ্টেন এ বি তাজুল ইসলাম (অব.) এম পি’র জন্মদিন পালন  সায়হাম গ্রুপের উদ্যোগে ২০ হাজার দরিদ্রের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরনের উদ্যোগ বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যেকূটনীতি এবং মানবাধিকার সংস্থার নেতা নির্বাচিত হলেন সিলেটের রাকিব রুহেল ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় ৩ ছাত্রের উপর মধ্যযুগীয় কায়দায় হামলা ব্র্যাথওয়েট হতে পারলেন না ‘ট্র্যাজিক হিরো’ পাওয়েল জলবায়ু অর্থ চুক্তিতে বাধা হতে পারে ভূরাজনীতি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
মোবাইলেই ভাতা পেয়ে যাবেন মুক্তিযোদ্ধারা

মোবাইলেই ভাতা পেয়ে যাবেন মুক্তিযোদ্ধারা

মোবাইলে ভাতা পাবেন মুক্তিযোদ্ধারা
মোবাইলে ভাতা পাবেন মুক্তিযোদ্ধারা

লোকালয় ডেস্কঃ ভাতা নিতে মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধা পাবেন মুক্তিযোদ্ধারা। যাদের মোবাইল ফোন নেই প্রয়োজনে সরকার তাদের মোবাইল ফোন কিনে দেবে। ফলে মুক্তিযোদ্ধারা ঘরে বসেই ঝুটঝামেলা ছাড়াই তাদের ভাতা নিতে পারবেন। দীর্ঘক্ষণ ব্যাংকে গিয়ে নানা হয়রানি দূর করতে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য এ উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে বলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি কক্সবাজারের মহেশখালীতে  মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে পাঠিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে এ প্রক্রিয়া চালু করার কথা রয়েছে। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ে বসে এ ভাতা পাঠানো কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজ্জামেল হক। আগামী জুলাইয়ের মধ্যে সব মুক্তিযোদ্ধাকে মোবাইল ফোনে ভাতার আওতায় আনা হবে। এ জন্য সরকারের কমবেশি ২০০ কোটি টাকা খরচ হবে। পরীক্ষামূলক এ প্রকল্প চলার এক মাস পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন বলে জানা গেছে।
মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘অনেক মুক্তিযোদ্ধার অভিযোগ রয়েছে ব্যাংক থেকে টাকা তুলতে গেলে ভোগান্তি পোহাতে হয়। ভিড়ের কারণে ভাতা না নিয়ে ফেরত যেতে হয় অনেক সময়। মুক্তিযোদ্ধাদের বেশির ভাগই এখন অসুস্থ। বয়সজনিত দুর্বলতায় স্বাভাবিক চলাফেলা করতে পারেন না।’  ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বপূর্ণ অবদানের জন্য খেতাবপ্রাপ্ত, যুদ্ধাহত ও শহীদ পরিবার মিলিয়ে মোট ৮ হাজার ৫১৪ জনকে ভাতা দেওয়া হয়। খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা দেওয়া শুরু হয় ২০১৩ সাল থেকে।
প্রত্যেক সাধারণ মুক্তিযোদ্ধা মাসে ১০ হাজার টাকা করে ভাতা পান। এই হিসাবে তালিকাভুক্ত মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য প্রতিমাসে সম্মানী ভাতা বাবদ মোট ১৮৪ কোটি ৩৯ লাখ ৪০ হাজার টাকা ব্যয় হয়। এর বাইরে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের ভাতা ৩৫ হাজার টাকা। ‘বীরশ্রেষ্ঠ’ খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা মাসিক ৩০ হাজার টাকা, বীর উত্তমদের ভাতা ২৫ হাজার টাকা, বীর বিক্রমদের ভাতা ২০ হাজার টাকা এবং বীর প্রতীক খেতাবপ্রাপ্তদের ভাতা ১৫ হাজার টাকা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com