মুমিনুলই কি বাংলাদেশের ‘নতুন’ তিন নম্বর হচ্ছেন?

মুমিনুলই কি বাংলাদেশের ‘নতুন’ তিন নম্বর হচ্ছেন?

খেলাধুলা প্রতিবেদক: ওয়ানডে ক্রিকেটে ফেরার জন্য নিজেকে আগের চেয়ে অনেক বেশি প্রস্তুত মনে করছেন মুমিনুল হক। সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটের ক্রিকেটে নিজের শট খেলার ক্ষমতা আগের চেয়ে বেড়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেছেন যে, বাংলাদেশ ‘এ’ দলের সঙ্গে আয়ার‍ল্যান্ড সফরে তিনি বেশ উন্নতি করেছেন এবং তা ওয়ানডে দলে ফিরতে তাকে সহায়তা করবে।

ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই মুমিনুল হক কেবল একজন টেস্ট ব্যাটসম্যান হিসেবে আখ্যায়িত হয়েছেন। অথচ সেই তিনিই এবার ‘এ’ দলের হয়ে আয়ারল্যান্ড সফরে ১৮২ রানের অসাধারণ এক ইনিংস খেলেছেন। যা বিদেশের মাটিতে কোনো বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ লিস্ট-এ ইনিংস।

আয়ারল্যান্ডে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের হয়ে যারা মনে রাখার মতো পারফর্ম করেছেন মুমিনুল তাদের অন্যতম। মুমিনুলের এই পারফর্ম বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্টের জন্য হয়ে এসেছে দারুণ এক স্বস্তি। কারণ ওয়ানডের তিন নম্বরে যে একজন নির্ভরতা দেয়া ব্যাটসম্যানের সন্ধান মিলছে না কিছুতেই। মুমিনুল হতে পারেন সেই নির্ভরতার অন্য নাম।

আপাতত তিন নম্বরে ব্যাটিং করতে দেখা যাচ্ছে সাকিব আল হাসানকে। কিন্তু এই পজিশনে তার ব্যাটিংটা আপাতকালীন এক দায়িত্ব। এই পজিশনে তিনি যদি দীর্ঘদিন ব্যাটিং করে যান, তাহলে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে তার বোলিং। সাকিবকে তিন নম্বরে খেলানো ছাড়া আপাতত কোনো বিকল্পও ছিলো না বাংলাদেশের সামনে। কারণ যে তিনজনকে এই পজিশনে সুযোগ দেয়া হয়েছে, সেই সাব্বির রহমান, ইমরুল কায়েস ও লিটন দাস সুবিধা করতে পারেননি মোটেই।

এই পরিস্থিতিতে তিন নম্বর পজিশনে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার দারুণ সুযোগ আছে মুমিনুল হকের সামনে। যদিও এই ব্যাটসম্যান মনে করেন যে, এখনই অতোটা ভাবার সুযোগ নেই।

তিনি বলেন, ‘আয়ারল্যান্ড সফরটা আমার জন্য দারুণ ছিলো। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে কীভাবে সফল হওয়া যায়, সে বিষয়ে সেখানে অনেক কিছু শিখেছি। আশা করি, এই শিক্ষা আমার সামনের দিনগুলোতে দারুণ কাজে লাগবে।’

বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান আরো বলেন, ‘আমার শিখতে হবে কিভাবে আরো আগ্রাসী ক্রিকেট খেলতে হবে। সে হিসেবে আয়ারল্যান্ড সফর আমার জন্য দারুণ অভিজ্ঞতা অর্জনের সুযোগ ছিলো। এক দিক থেকে সিরিজটা আমার জন্য স্বস্তিদায়ক ও প্রশান্তিময় ছিলো। কারণ এই সিরিজে আমি প্রচুর শট খেলেছি। আমার ভাণ্ডারে খুব শট ছিলো। সম্ভবত তা আমার সীমিত ওভারের ক্রিকেটকে ক্ষতিগ্রস্ত করছিলো।’

এশিয়া কাপের প্রাথমিক দলে রাখা হয়েছে মুমিনুলকে। ২৭ তারিখ থেকে শুরু হবে সেই অনুশীলন। সেখানে কোচের নজর কাড়তে পারলে মূল দলে তার জায়গা প্রায় নিশ্চিত। মুমিনুল অবশ্য সে চিন্তা করছেন না।

তিনি বলেন, ‘আমি যদি মূল দলে সুযোগ পাই, অবশ্যই এটি খুবই আনন্দের ব্যাপার হবে। যদি সুযোগ পাই, চেষ্টা করবো নিজের জায়গা পাকা করে নিতে। এটাই আমার কাছে এখন এক নম্বর লক্ষ্য।’

ওয়ানডে দলে মুমিনুলের অন্তর্ভুক্তি নিয়ে কথা বলেছেন বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নুও। তিনি বলেন, ‘মুমিনুল সব সময়ই আমাদের ওয়ানডে ভাবনায় ছিলো। এ জন্যই ওকে আমরা আয়ারল্যান্ড সফরের ওয়ানডে দলের অধিনায়কত্ব দিয়েছিলাম। দেখা যাক সামনে কী হয়।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com