মুজিব শতবর্ষে প্রধানমন্ত্রী নয় স্বজনকে  ঘর দিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান।।

মুজিব শতবর্ষে প্রধানমন্ত্রী নয় স্বজনকে  ঘর দিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান।।

মুজিব শতবর্ষে প্রধানমন্ত্রী নয় স্বজনকে

ঘর দিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান!

 


।। বাহুবলে মুজিব শতবর্ষের যাবতীয় নীতিমালা ভঙ্গ করে আপন কন্যার ছেলেকে ঘর উপহার দিয়েছেন উপজেলা চেয়ারম্যান! সরকারীভাবে প্রণীত ঘরের নকশা পরিবর্তনসহ নীতিমালা উপেক্ষা করে আপন বোনের ছেলেকে ঘর প্রদান করায় খোদ উপজেলা প্রশাসন সহ সর্বত্র চলছে তোলপাড়।

 

জানা যায়, মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষ্যে সরকার ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য গৃহ প্রদান নীতিমালা ঘোষণা করে। এ হিসাবে ২০২০-২০২১ অর্থ বছরে সারাদেশে “ক” শ্রেণীর ২,৯৩,৩৬১টি পরিবার এবং “খ” শ্রেণীর (জমি আছে ঘর নেই) ৫,৯২,২৬১টি পরিবারসহ সর্বমোট ৮,৮৫,৬২২টি গৃহ প্রদানের উদ্যোগ গ্রহন করা হয়।

প্রথম পর্যায়ে সারাদেশে ৬৬১৮৯টি পরিবারকে একক গৃহ প্রদান করা হয়েছে।

তন্মধ্যে বাহুবল উপজেলায় ৫৭ টির মাঝে প্রথম পর্যায়ে প্রদান করা হয়েছে ৩০ টি গৃহ। তবে বাহুবল উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ খলিলুর রহমান উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহ সংশ্লিষ্টদের পাশ কাটিয়ে গৃহ নির্মাণ নীতিমালা লঙ্ঘন করে আপন কন্যার ছেলে অর্থাৎ নাতিকে প্রদান করেন ঘর। উপজেলার লোহাখলা গ্রামে ওই চেয়ারম্যানের বাড়িতে বসবাসরত সাবেক ইউপি সদস্যা রাজিয়া খাতুনের ছেলে সৈয়দ মামুনকে এ গৃহ প্রদান করা হয়। সৈয়দ মামুনের পিতার নাম নকির আলী।

এখানে লক্ষনীয় বিষয় হচ্ছে, গৃহটি সরকারিভাবে বরাদ্দ পেলেও নকশা পরিবর্তন করে মনগড়াভাব দুই দিকে দুই পটি দিয়ে উক্ত গৃহ তৈরি করা হয়েছে। এতে গৃহের মুল অংশ সরকারি গৃহ বলে দেখা গেলেও দুইটি পটি দেয়ায় এখন আর বুঝা যায় না এটি যে সরকারি ঘর।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্নিগ্ধা তালুকদার এ অনিয়মের ব্যাপারে জানান, চেয়ারম্যান সাহেব কিভাবে তার নিকটাত্মীয়ের নামে বরাদ্দ দিয়েছেন এর সঠিক বক্তব্য তিনি দিতে পারেননি।

 

উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ খলিলুর রহমান বলেন, সরকারি একটা ঘর অসহায় পরিবারকে দিয়েছি এতে কি হয়েছে? সরকারের কত টাকা কতদিকে যায় এর খবর কে রাখে।

 

উল্লেখ, মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার স্বরুপ প্রথম ধাপে২৩ জানুয়ারি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় গৃহহীনদের ঘর হস্তান্তর কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। ওইদিন বাহুবল উপজেলা হলরুমে সংক্ষিপ্ত আনুষ্ঠানিকতার মধ্যদিয়ে গৃহহীনদের হাতে ঘরের দলিল ও চাবি বুঝিয়ে দেওয়া হয়।

 

প্রথম ধাপে উপজেলার পুটিজুরী ইউনিয়নের ভবানীপুরে নির্মিত ৩০ টি ঘরের দলিল হস্তান্তর করা হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে বাকি ঘরগুলো তৈরী করে গৃহহীনদের মাঝে বুঝিয়ে দেওয়ার কার্যক্রম চলছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com