সংবাদ শিরোনাম :
হবিগঞ্জে আ’লীগের সভাপতি জাহির, সম্পাদক আলমগীর মিস ওয়ার্ল্ডে বাংলাদেশ ও ভারতের দুই সুন্দরীর লড়াই নাগরিকত্ব বিল ভারতের ধর্মনিরপেক্ষ অবস্থানকে দুর্বল করবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে বিনামূল্যে কুষ্ঠরোগের ওষুধ সরবরাহের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর টাকা দিয়ে প্রেমিক কিনছে চীনা মেয়েরা কাপড় কেচে রাতারাতি বিখ্যাত শিম্পাজি (ভিডিও) রোহিঙ্গা গণহত্যার উল্লেখই করলেন না সু চি বিচারপতির ছেলের বিরুদ্ধে সুমনের রিট শুনবেন না হাইকোর্ট সংখ্যালঘু নির্যাতনের রেকর্ড করেছিল বিএনপি: হবিগঞ্জে সম্মেলনে সেতুমন্ত্রী সরকারি নিষেধাজ্ঞা ভেঙে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাহাড় কাটার ধুম!
ভোট কারচুপি করায় ক্ষমতা ছাড়তে হলো বলিভিয়ার প্রেসিডেন্টকে

ভোট কারচুপি করায় ক্ষমতা ছাড়তে হলো বলিভিয়ার প্রেসিডেন্টকে

ভোট কারচুপি করায় ক্ষমতা ছাড়তে হলো বলিভিয়ার প্রেসিডেন্টকে
ভোট কারচুপি করায় ক্ষমতা ছাড়তে হলো বলিভিয়ার প্রেসিডেন্টকে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- ভোট কারচুপির অভিযোগে গণবিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করেছেন বলিভিয়ার প্রেসিডেন্ট ইভো মোরালেস। গত মাসে তার বিতর্কিত পুনর্নির্বাচনের বিরুদ্ধে শুরু হওয়া বিক্ষোভের মুখে শেষ পর্যন্ত পদত্যাগ করতে হলো তাকে।

রোববার (১০ নভেম্বর) দেশটির সেনাপ্রধান ও পুলিশ প্রধানের চাপে তিনি পদত্যাগ করলেন। এক টেলিভিশন ভাষণে পদত্যাগের ঘোষণা দেন সাম্রাজ্যবাদবিরোধী হিসেবে পরিচিত এই বাম রাজনীতিক। ভাষণে দেশে সহিংসতা ও নিরাপত্তাহীনতা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য সরকারবিরোধীদের তীব্র সমালোচনা করেন তিনি।

এর আগে সরকারবিরোধী বিক্ষোভে সেনাবাহিনী সাফ জানিয়ে দেয়, বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে কোনও সংঘাতে জড়াবে না তারা। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে মোরালেসকে পদত্যাগের আহ্বান জানান দেশটির সামরিক বাহিনীর কমান্ডার উইলিয়ামস কালিম্যান।

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী কার্লোস মেসাকে পরাজিত করে পুনরায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন ইভো মোরালেস। তবে কারচুপির অভিযোগ তুলে ওই নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করেন পরাজিত প্রার্থী কার্লোস মেসা। দেশজুড়ে সরকারবিরোধী আন্দোলনের ডাক দেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে মেসার সুসম্পর্ক রয়েছে বলে মনে করা হয়।

মোরালেস লাতিন আমেরিকার দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশিদিন ক্ষমতায় থাকা প্রেসিডেন্ট। তিনি বলিভিয়ার প্রথম অধিবাসী প্রেসিডেন্ট। ২০০৬ সাল থেকে বলিভিয়ার নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন ইভো মোরালেস (৬০)। বিরোধী নেতা কার্লোস মেসা-র ডাকে বিক্ষোভের মুখে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকেও তাকে পদত্যাগের আহ্বান জানানো হয়। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে রবিবার জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে ফের নির্বাচন দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। তবে এর কয়েক ঘণ্টার মাথায় ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন এই রাজনীতিক।

বলিভিয়ায় গত মাসে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ উঠে। কোনো সুনির্দিষ্ট কারণ ছাড়াই ভোট গণনা চব্বিশ ঘন্টার জন্য স্থগিত রাখা হয় ওই নির্বাচনে। বিরোধীদের দাবি, গণনা স্থগিতের আগে প্রতিপক্ষের চেয়ে সামান্য এগিয়ে ছিলেন ইভো মোরালেস। তবে চব্বিশ ঘণ্টা স্থগিত রাখার পর আবার গণনা শুরু হলে দেখা যায় ভোটে অনেকটাই এগিয়ে মোরালেস।

এর পরপরই নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ আনে বিরোধীরা। কারচুপির অভিযোগে লা পাজে শুরু হয় নির্বাচন বাতিলের আন্দোলন। তবে কারচুপির অভিযোগ শুরু থেকে অস্বীকার করে আসছিলেন ইভো মোরালেস।

ভোটে কারচুপির অভিযোগে লা পাজে বিক্ষোভ-অবরোধ দিন দিন বাড়তে থাকলে বেশ চাপে পড়েন মোরালেস। রোববার অর্গানাইজেশন অব আমেরিকান স্টেটস (ওএএস) এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০ অক্টোবরের নির্বাচনে কারচুপির পরিষ্কার প্রমাণ পেয়েছেন পর্যবেক্ষকরা। ওএএস ওই নির্বাচন বাতিল করার আহ্বান জানায় প্রেসিডেন্টকে।

আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকদের এ আহ্বানের পরপর রোববার দিনভর একে একে রাজনৈতিক জোটসঙ্গীরা সরকার থেকে সরে দাঁড়াতে শুরু করেন। এর পর প্রেসিডেন্টকে দেশটির সেনাপ্রধান ও পুলিশ প্রধান পদত্যাগ করার আহ্বান জানান।

রাজনৈতিক সঙ্গী ও সামরিক শক্তি হারিয়ে মোরালেস পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন। টেলিভিশনে প্রচারিত এক ভাষণে প্রেসিডেন্ট পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন তিনি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com