সংবাদ শিরোনাম :
আজমিরিগঞ্জ কালনী কুশিয়ারা নদীতে ব্যাপক ভাঙ্গন বানিয়াচং ক্রিকেট ক্লাবের নয়া কমিটির অভিষেক ও পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত  ঠাকুরগাঁওয়ে জ্বালানি তেল  সংকট! পীরগঞ্জে ম্যাটস্ এন্ড নার্সিং ইনস্টিটিউটের উদ্বোধন করেন–বিচারপতি মোঃ নজরুল ইসলাম তালুকদার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মালদ্বীপ প্রবাসীদের ক্যাপ্টেন এ বি তাজুল ইসলাম (অব.) এম পি’র জন্মদিন পালন  সায়হাম গ্রুপের উদ্যোগে ২০ হাজার দরিদ্রের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরনের উদ্যোগ বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যেকূটনীতি এবং মানবাধিকার সংস্থার নেতা নির্বাচিত হলেন সিলেটের রাকিব রুহেল ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় ৩ ছাত্রের উপর মধ্যযুগীয় কায়দায় হামলা ব্র্যাথওয়েট হতে পারলেন না ‘ট্র্যাজিক হিরো’ পাওয়েল জলবায়ু অর্থ চুক্তিতে বাধা হতে পারে ভূরাজনীতি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি: হবিগঞ্জের ২ যুবক নিখোঁজ

ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি: হবিগঞ্জের ২ যুবক নিখোঁজ

ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি: হবিগঞ্জের ২ যুবক নিখোঁজ
ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি: হবিগঞ্জের ২ যুবক নিখোঁজ

নিজস্ব প্রতিনিধি, হবিগঞ্জ: আফ্রিকার তিউনিসিয়া উপকূলে ভুমধ্য সাগরে নৌকাডুবির ঘটনায় হবিগঞ্জের দুই যুবক নিখোঁজ হয়েছেন।

রোববার সন্ধ্যায় নিখোঁজ যুবকদের স্বজনদের সাথে কথা বলে বিষয়টি নিশ্চিত হয়া গেছে।

নিখোঁজ যুবকরা হলেন, হবিগঞ্জ সদর উপজেলার লোকড়া গ্রামের হাজী আলাউদ্দিনের পুত্র আব্দুল কাইয়ুম (২২) ও আব্দুল জলিলের পুত্র আব্দুল মোক্তাদির (২২)। দু’জনই হবিগঞ্জ সরকারি বৃন্দাবন কলেজে অনার্সে অধ্যয়রত ছিলেন।

জানা যায়, গত ৯ মে রাতে দালালদের মাধ্যমে অবৈধ পথে ইতালি যাওয়ার উদ্দেশে আব্দুল কাইয়ুম ও আব্দুল মোক্তাদির নৌকায় ওঠেন। তাদের সঙ্গে ছিলেন একই গ্রামের মামুন মিয়া (২২) এবং নূরুল আমীন (২৮)। যাত্রীদের নেয়া হচ্ছিল দু’টি নৌকায় ভাগ করে। প্রথম নৌকায় ওঠেন নূরুল আমীন। ওই নৌকাটি না ডুবায় তিনি ইতালিতে পৌঁছেন। পরবর্তী নৌকায় ওঠেন বাকি তিনজন। নৌকাটি আফ্রিকার তিউনিসিয়া উপকূলে ভূ-মধ্য সাগরে ডুবে যায়। এ সময় স্থানীয় জেলেরা হবিগঞ্জের মামুনসহ কয়েকজনকে উদ্ধার করেন। তবে হবিগঞ্জের অপর যুবক কাইয়ুম ও মোক্তাদির নিখোঁজ রয়েছেন।

এ ব্যাপারে লোকড়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মোঃ জাহির মিয়া জানান, উদ্ধার হওয়া মামুন মিয়া তার ভাগ্নে। মোবাইলে মামুন মিয়া জানিয়েছেন, নৌকাডুবির পর মোক্তাদিরের সঙ্গে তিনি হাত ধরে সাঁতার কেটেছেন অনেকক্ষণ। হাত ছেড়ে দেয়ার পর আর মোক্তাদিরকে দেখতে পাননি।

আব্দুল কাইয়ুমের বাবা হাজী আলাউদ্দিন জানান, গত বুধবার তার পুত্র বাড়িতে ফোন করে ইতালি যাওয়ার বিষয়টি জানায়। নৌকা ডুবির পর থেকে তাদের পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মুক্তাদিরও রওনা দেয়ার আগের দিন বাড়িতে ফোন করেন বলে জানিয়েছেন তার চাচা আব্দুল খালেক।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ফজলুল জাহিদ পাভেল জানান, বিষয়টি তিনি এখনও নিশ্চিত নন। তবে এ ব্যাপারে খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত ৯ মে গভীর রাতে লিবিয়া উপকূল থেকে ৭৫ জন অভিবাসীবাহী একটি বড় নৌকা ইতালি পাড়ি জমায়। নৌকাটি ভূ-মধ্য সাগরের তিউনিসিয়া উপকূলে ডুবে গেলে বেশির ভাগ যাত্রী নিহত হন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com