ভূঞাপুরে নৌকার কাজ না করায় আ’লীগ সভাপতিসহ দুজনকে মারধর

ভূঞাপুরে নৌকার কাজ না করায় আ’লীগ সভাপতিসহ দুজনকে মারধর

ভূঞাপুরে নৌকার কাজ না করায় আ’লীগ সভাপতিসহ দুজনকে মারধর
ভূঞাপুরে নৌকার কাজ না করায় আ’লীগ সভাপতিসহ দুজনকে মারধর

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি- টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকার পক্ষে কাজ না করায় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতিসহ বিদ্রোহী প্রার্থীর দুই নেতাকে মারধর করে গুরুতর আহত করার ঘটনা ঘটেছে।

আহত দুইজন হলেন, পৌরসভার ফসলান্দি গ্রামের হযরত আলী খানের ছেলে ও ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মান্নান (৪২) এবং উপজেলার রুহুলী গ্রামের আবু হানিফ মন্ডলের ছেলে আওয়ামী লীগ কর্মী আব্দুছ সামাদ (৩৮)। তাদের দুইজনকে ভূঞাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার (১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় ইউএনও’র কার্যালয়ে সামনে আব্দুল মান্নানের উপর নৌকার কর্মী-সমর্থকরা হামলা চালায়। এছাড়া মঙ্গলবার (২ এপ্রিল) উপজেলার গোবিন্দাসীর ছাগলহাটির সামনে মীম মেডিকেল হলের মালিক আব্দুছ সামাদের উপর হামলা চালানো হয়। পরে তার দোকান ভাঙচুর করা হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নৌকার পক্ষে কাজ না করায় আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোটরসাইকেল প্রতীকে নির্বাচন করায় পৌরসভার ফসলান্দির ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল মান্নানকে ইউএনও’র কার্যালয়ের সামনে বিজয়ী চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল হামিদ ভোলা, তাহেরুল ইসলাম তোতার উপস্থিতিতে মারধর করা হয়। পরে তাকে আহতবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অন্যদিকে মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার গোবিন্দাসীর ছাগলহাটি এলাকায় মীম মেডিকেল হলের মালিক আব্দুছ সামাদের উপর হামলা চালায় নৌকার কর্মী-সমর্থকরা।

পৌরসভার ফসলান্দির ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল মান্নান জানান, বাড়ি থেকে উপজেলা পরিষদের দিকে যাওয়ার সময় হামলার স্বীকার হতে হয়। এসময় আওয়ামীলীগ নেতা, আব্দুল হামিদ ভোলা, তাহেরুল ইসলাম তোতা, মাসুদুল হক টুকু, পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আব্দুর রাজ্জাক এবং জসিমসহ কয়েকজন এলোপাথারিভাবে মারধর করে। পরে আমি অজ্ঞান হয়ে পড়লে লোকজন সেখান থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

মীম মেডিকেলের মালিক আব্দুছ সামাদ জানান, নৌকার পক্ষে কাজ না করায় গোবিন্দাসী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইকরাম উদ্দিন তারা মৃধার কর্মী-সমর্থকরা হামলা চালায় দোকানে। পরে দোকান-পাট ভাঙচুরসহ আমাকে ব্যাপক মারধর করা হয়।

ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের দায়িত্বরত ফার্মাসিষ্ট এমএ রকিব জানান, দুইজনই গুরুত্বর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক তাহেরুল ইসলাম তোতা জানান, চেয়ারম্যান আব্দুল হালিমসহ আমরা কয়েকজন পরিষদে যাচ্ছিলাম। এসময় আব্দুল মান্নান চেয়ারম্যানের সাথে খারাপ আচরন করে। এসময় সেখানে উপস্থিত অজ্ঞাত দুইজনের সাথে হালকা ধাক্কা-ধাক্কি হওয়ার পরে মান্নানকে সেখান থেকে সরিয়ে দেয়া হয়।

ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ রাশিদুল ইসলাম জানান, দুইজনকে মারধরের ঘটনা জানার পরই হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com