বাহুবলে কারারুদ্ধ সাংবাদিকের মুক্তি ও প্রকৌশলীর অপসারণের দাবিতে মানববন্ধন

বাহুবলে কারারুদ্ধ সাংবাদিকের মুক্তি ও প্রকৌশলীর অপসারণের দাবিতে মানববন্ধন

বাহুবল (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি।। হবিগঞ্জের বাহুবলে সাংবাদিক আজিজুল হক সানু’র নিঃশর্ত মুক্তি এবং এলজিইডি’র উপজেলা প্রকৌশলী আফছার আহমেদ খন্দকার ও উপ-সহকারী প্রকৌশলী আলফাজ উদ্দিনের অপসারণ দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাহুবলে কর্মরত সাংবাদিকদের ব্যানারে আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে এলজিইডি’র উপ-সহকারী প্রকৌশলী আলফাজ উদ্দিনের অপসারণ ও সাংবাদিক আজিজুল হক সানু’র মুক্তির দাবি জানানো হয়।

মঙ্গলবার ২৯ জুন দুপুরে বিভিন্ন গণমাধ্যমে কর্মরত সংবাদকর্মীরা বাহুবল মডেল থানার সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। বাহুবলের সিনিয়র সাংবাদিক নূরুল ইসলাম নূর, সোহেল আহমেদ কুটি ও নূরুল ইসলাম মনি’র নেতৃত্বে আয়োজিত মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বাহুবলের সাংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও কর্মরত সংবাদকর্মীরা।

এ সময় বক্তব্য রাখেন সাপ্তাহিক হবিগঞ্জের সংবাদ পত্রিকার সম্পাদক সোহেল আহমেদ কুটি, বাহুবল মডেল প্রেসক্লাবের সভাপতি নূরুল ইসলাম নূর, মানবজমিন প্রতিনিধি ও সিনিয়র র্সাংবাদিক নূরুল ইসলাম মনি, দৈনিক তরফবার্তা’র বার্তা সম্পাদক এম সাজিদুর রহমান, শাহ্ রাসেল আহমেদ, বাহুবল উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সাঈদ আহমদ, আব্দুল মজিদ শেখ, মঈনুল ইসলাম, দৈনিক আজকের পত্রিকা প্রতিনিধি মনিরুল ইসলাম শামীম, আমার সংবাদের প্রতিনিধি জুবায়ের আহমেদ, আমার সিলেট নিউজ-এর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ইমন আহমদ ও গ্রীণবাংলা টোয়েন্টিফোরএর সম্পাদক সাদিকুর রহমান প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বাহুবল এলজিইডি’র উপ-সহকারী প্রকৌশলী আলফাজ উদ্দিন এক যুগেরও বেশি সময় ধরে এখানে কর্মরত আছেন। এ সুবাদে তিনি এখানে নানা অনিয়ম, দুর্নীতির মাধ্যমে হাতিয়ে নিচ্ছেন কোটি কোটি টাকা। তার তত্ত্বাবধানে কতিপয় অসাধু ঠিকাদারের সমন্বয়ে রয়েছে একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট। এ সিন্ডিকেট সরকারি উন্নয়ন প্রকল্পে হরিলুট চালিয়ে যাচ্ছে। বক্তারা বলেন, এ সিন্ডিকেটের অপতৎপরতা বন্ধ করতে হলে এলজিইডি’র প্রকৌশলী ও উপ-সহকারী প্রকৌশলী আলফাজ উদ্দিনকে অপসারণ করতে হবে।

উলে­খ্য, গত শুক্রবার দুপুর ২ টায় বাহুবল সদরস্থ করাঙ্গী ব্রীজের কাজে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহারের সংবাদ পেয়ে সেখানে উপস্থিত হন সাংবাদিক আজিজুল হক সানু। এ সময় তিনি চলমান কাজের ছবি তুলতে চাইলে উপস্থিত উপজেলা প্রকৌশল কার্যালয়ের লোকজন ছবি তুলতে বারণ করে।

এনিয়ে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে উপজেলা প্রকৌশলী আফসার উদ্দিন ও উপ-সহকারী প্রকৌশলী আলফাজ উদ্দিন ক্ষিপ্ত হয়ে আজিজুল হক সানু-কে শারীরিক নির্যাতন করেন। পরে তাকে টেনে হেচড়ে থানা পুলিশের সোপর্দ করেন এবং আলফাজ উদ্দিন বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। বর্তমানে সাংবাদিক আজিজুল হক সানু এ মামলায় জেলহাজতে আছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com