বাঙ্গালী সংস্কৃতি প্রচারের আড়ালে তামাক কোম্পানীর প্রচারণা বন্ধ হোক

বাঙ্গালী সংস্কৃতি প্রচারের আড়ালে তামাক কোম্পানীর প্রচারণা বন্ধ হোক

বাঙ্গালী সংস্কৃতি প্রচারের আড়ালে জাপান টোব্যাকোসহ সকল তামাক কোম্পানীর প্রচারণা বন্ধ হোক
বাঙ্গালী সংস্কৃতি প্রচারের আড়ালে জাপান টোব্যাকোসহ সকল তামাক কোম্পানীর প্রচারণা বন্ধ হোক

হেলাল আহমেদঃ তামাকের ব্যবসা সম্প্রসারণে বিনিয়োগ ও সিগারেটের ব্রান্ড প্রমোশনে দেশীয় আইন লঙ্ঘণ করে আগ্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করছে জাপান টোব্যাকো কোম্পানি। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও বাঙ্গালীর সংস্কৃতিকে পুঁজি করে কোম্পানিটি তামাকের ব্রান্ড প্রমোশনের মাধ্যমে তামাকের ভোক্তা তৈরীর উদ্দেশ্যে কৌশলী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে জাপান টোব্যাকো কোম্পানি। যা অত্যন্ত দু:খজনক
“জাপানিজ কোয়ালিটি” স্লোগান, বিক্রয় কর্মীদের টি-শার্টে কোম্পানির ব্রান্ড কালার ও লোগো ব্যবহার, ভ্যানগাড়ীতেও ব্রান্ড কালার, স্লোগান ব্যবহার করছে জাপান টোব্যাকো কোম্পানি। এছাড়াও জাপান এক্সাটার্নাল ট্রেড অর্গানাইজেশনের ( (JETRO-Dhaka) এর পরিবেশনায় নির্মিত একটি অনুষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দেশের শীর্ষ স্থানীয় দৈনিক পত্রিকাগুলোতে প্রচার এবং সংশ্লিষ্ট ভিডিও বিভিন্ন ওয়েবসাইট, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করছে তারা। পাশাপাশি এ সময়ের জনপ্রিয় অভিনেতা ও সঙ্গীত শিল্পী তাহসান খান যোগ দিয়েছেন তামাক কোম্পানির অর্থায়নে পরিচালিত এই কার্যক্রমে। অত্যন্ত উদ্বেগের বিষয়, আইন লংঘন করে জনপ্রিয় ও অনুকরণীয় শিল্পীর এ ধরনের অনৈতিক কার্যক্রম তরুণ প্রজন্মকে তামাকজাত পণ্য সেবনে আরো উদ্বুদ্ধ করবে।
যেখানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জনস্বাস্থ্যকে গুরুত্ব দিয়ে ২০৪০ সালের মধ্যে “তামাকমুক্ত বাংলাদেশ” গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে এবং বাংলাদেশ সরকার জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বাধ্যবাধকতা বিবেচনায় তামাক নিয়ন্ত্রণে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে সেখানে বহুজাতিক তামাক কোম্পানির এমন প্রচারণা জনস্বাস্থ্য উন্নয়নে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করবে বলে বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোট মনে করে ।
সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোল (এসডিজি)সহ বিভিন্ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আমরা বহুবিধ কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করেছি যা বাস্তবায়নে জনস্বাস্থকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিতে হবে। তামাক কোম্পানিকে নয়! জনস্বাস্থ্যের ক্ষতি করে দেশে তামাকের ব্যবসা সম্প্রসারণে বহুজাতিক তামাক কোম্পানিগুলোকে কোন ধরনের ছাড় দেয়া উচিৎ নয়। ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইন অমান্যকারী সকল তামাক কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে কঠোর ও দৃষ্টান্তমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা প্রয়োজন। অন্যথায় তামাক কোম্পানীগুলোর এ সকল অবৈধ/অনৈতিক কার্যক্রম ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পেতে থাকবে। যা জনস্বার্থে তামাক নিয়ন্ত্রণে গৃহিত সরকারের পদক্ষেপসমূহকে প্রশ্নবিদ্ধ ও ব্যাপকভাবে ব্যহত করবে।
তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনের যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে অনতিবিলম্বে জাপান টোব্যাকোসহ সকল তামাক কোম্পানির প্রচারণা কার্যক্রম বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানাচ্ছে বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোট।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com