‘নারী কি মাংসের টুকরা’!

‘নারী কি মাংসের টুকরা’!

অভিনেত্রীদেরকে নিয়ে ট্রোলড হওয়ার ঘটনা নতুন নয়। খোলামেলা পোশাকে ছবি দিলেই ট্রোলড হতে হয় তাঁদের। শুধু অভিনেত্রী কেন, সাধারণ নারীদেরও একই অবস্থা। আর তাই আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষ্যে নারীদের খাদ্যপণ্য হিসেবে না দেখানোর দাবি জানিয়ে ক্যাম্পেন শুরু করলেন নেহা ধুপিয়া। তাঁর কথায়, নারীরা মাংসের টুকরো নয় যে তাদের জুসি, স্পাইসি, তিখি, গরমাগরম বলা হবে। শিগগিরই এটা বন্ধ করতে হবে।

আন্তর্জাতিক নারী দিবসের দিন নেহা ছবি শেয়ার করেন। হাতে একটি প্ল্যাকার্ড নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন নেহা। সেখানে লেখা, ‘#নট আ পিস অফ মিট।’ ছবিটি শেয়ার করার পাশাপাশি নেহা বলেন, নারীদের খাবারের মতো ব্যাখ্যা করাটা এখনই বন্ধ হওয়ার দরকার আছে। ফুডপান্ডার (খাদ্য সরবরাহকারী সংস্থা) নারীরা বলছেন যে একজন নারী ও খাবারের মধ্যে পার্থক্য কোথায়। এরজন্য একটি ক্যাম্পেন শুরু হয়েছে। নেহা সব নারীদের ক্যাম্পেনে যোগ দেওয়ার আবেদনও জানান।

কয়েকদিন আগে একটি ছবি শেয়ার করে ট্রোলড হয়েছিলেন নেহা। তারপর পালটা জবাবে বিকিনি পরা ছবি পোস্ট করেছিলেন অভিনেত্রী। লিখেছিলেন, সমুদ্র সৈকতে গিয়ে মানুষ যা করে আমিও তাই করছি। বিকিনি পরেছি। সেলফি তুলেছি, পোস্ট করছি। অবশ্য এরপর অনেকে ছবি নিয়ে কাটাছেঁড়া করবে। অসম্মান করার চেষ্টা করবে। আমি তাদের ব্লক করে দিতে পারি। ডিলিট করে দিতে পারি। কিন্তু করব না। কারণ, আমি বোঝাতে চাইছি তোমরা যদি সম্মান না করতে পারো, তাহলে চাইলেই ছবিটি এড়িয়ে যেতে পারো। নিজের শক্তি ও সময় নষ্টের থেকে এড়িয়ে যাওয়া অনেক ভালো।

তবে নেহা নয়, সোশাল মিডিয়ায় রাধিকা আপ্তে , দীপিকা পাডুকোন, বিদ্যা বালান সহ একাধিক বলিউড অভিনেত্রীকে বডি শেমিংয়ের মতো ঘটনায় পড়তে হয়েছে। আবার তাঁদের দেখেই অনেকে জুসি, স্পাইসি, তিখি, গরমাগরমের মতো শব্দ ব্যবহার করে থাকে। সে সব শব্দেই আপত্তি তুলেছেন নেহা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com