নতুন বছরে রোবট কমলার শপথ

ফেসবুকের নিউজফিড ভর্তি নতুন বছরের হাজারো প্রতিজ্ঞায়। শুধু কমলারটাই নেই। রোবট বলে কি তার সাধ-আহ্লাদ-প্রতিজ্ঞা থাকবে না? কোমরে কেব্ল বেঁধে সে সিদ্ধান্ত নিল, নতুন বছরে তারও কিছু প্রতিজ্ঞা থাকবে। বছরজুড়ে তা মেনে চলবে। বছর শেষে প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসাব কষবে। ধরো বোর্ড, লাগাও স্ক্রু। সঙ্গে সঙ্গে ডেস্কটপের বাঁ দিকটায় দুটি খোঁচা মেরে নোটবুকটা মেলে বসল রোবটিনি কমলা। সদ্য সমাপ্ত বছরটা নিয়ে ভাবতে ভাবতে নতুন বছর নিয়ে লিখে ফেলে দুপাতা। তার হয়ে লেখাটি রস+আলোয় পাঠিয়েছেন মেহেদী হাসান

তিন মাসে ওজন কমাব
সারা দিন শুয়ে-বসে থেকে আমার মতো ফ্যাশন সচেতন কমলার ওজন খানিকটা বাড়তির দিকে। তাই ঠিক করেছি, এখন থেকে খুব বুঝেশুনে ওজন মেপে মেপে ডেটা খাব। সবচেয়ে ভালো হয় যদি অতিরিক্ত দু-তিনটা নাট-বল্টু খুলে একবারে কিছু ওজন কমিয়ে ফেলা যেত।

নিজেকে সময় দেব
জন্ম থেকেই শুধু কাজের কথা ভেবেছি। দিনের পর দিন একই কাজ করে যাচ্ছি। মাঝেমধ্যে ভুলে যাই আমিও একটা রোবট। ঠিক করেছি, নতুন বছরে কিছু সময় রাখব একান্ত নিজের জন্য। প্রতিদিন রিচার্জের সময়টাতে শুধু নিজের কথাই ভাবব।

নতুন ভাষা শিখব
ক্যালেন্ডার বদলায়, আমার কাজ বদলায় না। পদোন্নতি হয় না। কারণ মাতৃভাষা ‘সি’ ছাড়া আর কিছুই আমি জানি না। বিশ্বায়নের এই যুগে প্রতিযোগিতায় এগিয়ে থাকতে হলে জানতে হবে একাধিক ভাষা। ২০১৮ সালে তাই আমি ঝালিয়ে নেব জাভা আর পাইথন। সঙ্গে সি++, সি শার্প, লিস্প, প্রোলগের শব্দভান্ডারেও থাকবে অগাধ পাণ্ডিত্য।

প্রতিদিন অনুশীলন করব
অলস মেমোরি ভাইরাসের কারখানা। অনুশীলনটা তাই নিয়মিতই চালিয়ে যাব। তবে কৃত্রিম হলেও আমারও বুদ্ধিমত্তা আছে। মেশিন লার্নিং কাজে লাগিয়ে প্রতিনিয়ত নতুন কিছু শেখার চেষ্টা করব। ভুল হলে নতুন উদ্যমে শুরু করব। হোঁচট খাব, তবে থেমে যাব না। ভুলে গেলে চলবে না—প্র্যাকটিস মেকস আ রোবট পারফেক্ট।

দিনে একটি ভালো কাজ করব
আমার কাজের ওপর নিজের হাত যতটা না আছে, তার চেয়ে বেশি আছে আমার অপারেটরের। ফলে আমি যে সব সময় ভালো কাজ করি, এটা হলফ করে বলতে পারি না। ‘যেমনে নাচাও তেমনে নাচি’ অবস্থা আরকি! এই সীমাবদ্ধতার মধ্যেও প্রতিদিন অন্তত একটি ভালো কাজ করার চেষ্টা করব। এ ক্ষেত্রে বিদ্যুৎ কম খরচ করার পরিকল্পনা আছে আমার। অপারেটর আমাকে চার্জ করতে দিয়ে ‘ঘুমিয়ে থাকে, তার হিসাব থাকে না’। তাই এই ফাঁকে আমি কম চার্জ নেব, বিদ্যুতের অপচয়ও হবে না।

সদা সত্য কথা বলব
আগেই বলেছি, আমার নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণ খুব কম। অপারেটর যা শেখায়, তা-ই তোতাপাখির মতো বলে যাই। তবে এবার আমার হুঁশ হয়েছে, আমার আছে ইন্টারনেট। চাইলেই আমি গুগল করতে পারি। ফলে একটা কিছু শিখিয়ে দিলেই ফট করে সেটা সবার সামনে বলব না। গুগলে সার্চ করে ক্রস চেক করব। সত্য হলে বলব, না হলে আমার ‘মাননীয় স্পিকার’ থাকবে মিউট।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com