ড. ইউনূসকে ৭ নভেম্বরের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

ড. ইউনূসকে ৭ নভেম্বরের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

ড. ইউনূসকে ৭ নভেম্বরের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ
ড. ইউনূসকে ৭ নভেম্বরের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

তিন মামলায় নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূসকে আগামী ৭ নভেম্বরের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে বিমানবন্দরে নামার পর থেকে তাকে এই সময়ের মধ্যে (৭ নভেম্বর পর্যন্ত) গ্রেফতার বা হয়রানি না করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এ-সংক্রান্ত আবেদন শুনানি নিয়ে সোমবার হাইকোর্টের বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও খোন্দকার দিলুরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আজ ড. ইউনূসের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ। তাকে সহযোগিতা করেন ব্যারিস্টার মোস্তাফিজুর রহমান খান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সাইফুদ্দিন খালেদ।

এর আগে নিজের প্রতিষ্ঠিত গ্রামীণ কমিউনিকেশনস নামের প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীদের চাকরিচ্যুত করার অভিযোগে দায়ের করা তিন মামলায় গত ৯ অক্টোবর তাকে গ্রেপ্তারে পরোয়ানা জারি করেন ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতের চেয়ারম্যান রহিবুল ইসলাম।

এ আদালতের কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুজ্জামান জানিয়েছেন, এ বছরের জুলাই মাসে দায়ের করা মামলা তিনটিতে ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে সমন জারি করা হয়েছিল। সমনের জবাব দিতে আদালতে হাজির না হওয়ায় এ পরোয়ানা জারি করা হয়।

আদালত সূত্র জানায়, ইউনূস প্রতিষ্ঠিত গ্রামীণ কমিউনিকেশনসে ট্রেড ইউনিয়ন গঠন করার চেষ্টা করেন প্রস্তাবিত গ্রামীণ কমিউনিকেশনস শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আবদুস সালাম, একই সংগঠনের প্রচার সম্পাদক শাহ আলম ও সংগঠনটির সদস্য এমরানুল হক। তখন তাদেরসহ বেশ কয়েকজন কর্মচারীকে চাকরিচ্যুত করে প্রতিষ্ঠানটি। এতে তারা ক্ষতিগ্রস্ত হন।

গত ৩ জুলাই তারা তৃতীয় শ্রম আদালতে ড. ইউনূস, প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজনীন সুলতানা ও উপ-মহাব্যবস্থাপক খন্দকার আবু আবেদীনকে বিবাদী করে মামলা করেন। আদালত তাদের ৯ অক্টোবর হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। কিন্তু ড. ইউনূস বাদে বাকি দুজন আদালতে হাজিরা দেন।

ড. ইউনূসের আইনজীবী রাজু আহম্মেদ আদালতকে বলেন, যেহেতু বর্তমানে তিনি (ড. মুহাম্মদ ইউনূস) ব্যবসার কাজে বিদেশ অবস্থান করছেন, তাই তার পক্ষে আদালতে উপস্থিত হওয়া সম্ভব ছিল না। তিনি দেশে এলে আদালতে উপস্থিত হবেন।

অবসর গ্রহণের সময়সীমা নিয়ে এক বিতর্কের পর ২০১১ সালে গ্রামীণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পদ থেকে ড. মুহাম্মদ ইউনূসকে অপসারণ করা হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com