সংবাদ শিরোনাম :
হবিগঞ্জে প্রশাসনের উদ্যোগে বিশ্ব নদী দিবসে বর্ণাঢ্য র‍্যালি অনুষ্ঠিত বালু উত্তোলনে অস্তিত্ব সংকটে নদী : খোয়াই, করাঙ্গী, সুতাং ও ইছামতী হুমকির মুখে পঞ্চগড়ে নৌকাডুবিতে মৃত্যু বেড়ে ৩১ : স্বজনদের আহাজারি শহরে অবৈধভাবে প্যাকেটজাত সরিষার তেল ও নকল বিড়ি মজুদের দায়ে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড ৪২টি চোরাই মোবাইলসহ চোরচক্রের মূলহোতা জগলু নবীগঞ্জে আটক মাধবপুরে বিএনপি নেতা কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে ওসিসহ আহত ১০ : আটক ৩ আগামীকাল রামনাথ বিশ্বাসের বসতভিটা দখলমুক্তের দাবিতে সাইকেল র‍্যালি ওয়াশিংটন ডিসি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার যুবকের ইশাতের ছবি ব্যবহার করে প্রতারণা আটক করেছে ভোলা জেলা সিআইডি যৌতকের টাকা নিয়ে গৃহবধুকে নির্যাতন: নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন গৃহবধু
টাইগাররা ভুল থেকে শিখবে কবে?

টাইগাররা ভুল থেকে শিখবে কবে?

এই ছবিই বলে দেয়, কতো বিষন্নতা ভর করেছে জিম্বাবুয়ের কাছে সিরিজ খোয়ানোর পর। তবু কথা থাকে, থাকে সমীকরণ মেলানোর দায়ভার। ঘুড়ির নিয়ন্ত্রণ রাখতে চাই সুতোর জোর সাথে নাটাই ধরার দারুণ দক্ষতা। সুতো পোক্ত না হলে যেমন তাল কেটে যাবে, তেমন নাটাই ঘোরানোর হাত শক্ত না হলেও হবে টাল না সামলাতে পারার দশা। সবশেষে আফসোস করে গান গাইতেই হবে, ‘ঘুড়ি তুমি কার আকাশে ওড়ো?’
টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের মাজা আর মেরুদণ্ড কোনটাই ঠিকঠাক শক্ত নয়, রিষ্টপুষ্টও নয়। একথা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড থেকে ক্রিকেট সমর্থক-বোদ্ধা সবাই কমবেশি জানেন এবং মেনেও নিয়েছেন। তাই অপেক্ষাকৃত কম শক্তিশালী জিম্বাবুয়ের কাছে টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারাতে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের নাক কাটা যায়নি, জাতের আঁতেও ঘা লাগেনি!তবে বিপত্তি ঘটেছে ওয়ানডে সিরিজ খোয়ানোয়। কারণ, বাংলাদেশ এই ফরম্যাটে ‘স্বঘোষিত’ শক্তিশালী দল। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচেই জিম্বাবুয়ের কাছে পাত্তাই পায়নি তামিম ইকবালের নেতৃত্বাধীন দল। টি-টোয়েন্টির পর ওয়ানডেতে দারুণ ছন্দে জিম্বাবুয়ে। সবাই এমন হারের কারণও খুঁজছেন হন্নতন্ন করে। দলের কাপ্তান তামিমও একটা কারণ আবিষ্কার করেছেন।তামিরে মতটা অনেকটা সোজসাপ্টা, তিনি বলেছেন ‘আমার মনে হয় পার্থক্যটা এখানে, ওদের চারটি সেঞ্চুরি, আমাদের নেই। এটাই বড় পার্থক্য। ভালো একটা স্কোর গড়েছিলাম (আজ)। শুরুটা ভালো হয়েছিল, কিন্তু চালিয়ে যেতে পারেনি। ছোটখাটো একটা ধসের পর মাহমুদউল্লাহ ও আফিফ ভালো করেছিল। ২৯১ রানও ভালো স্কোরই ছিল, আমার বোলিংয়ে লড়াই করার মতো কিছু পেয়েছিলাম।’লড়াই করার পুঁজি ব্যাটে এসেছে, আবার সেঞ্চুরি করতে না পারার আক্ষেপও ঝরেছে। বিপরীতে একটা কথা পরিষ্কার দুই ওয়ানডেতে জিম্বাবুয়ে চার সেঞ্চুরি করতে পেরেছে কেবল বাংলাদেশের নির্বিষ বোলিংয়ের কারণে। দেশের বাইরে বাংলাদেশের পেসাররা অনেক দিন ধরেই ভূমিকা রাখতে অনেকটাই ব্যর্থ। সাথে ঘূর্ণির বাঁক বুঝেশুনে কাজে লাগাতে পারেন না ক্যাপ্টেনরা সেই অভিযোগও আছে।তামিমের কথাও বলছে, সেই অভিযোগ একেবারে অহেতুক নয়। তামিমের দাবি, আজ স্পিনারদের বিপক্ষে খেলাটা খুব একটা সহজ ছিল না। তিনি বলেন ‘উইকেট শুরুতে ভালো ছিল। তবে প্রথম ম্যাচের মতো স্পিনারদের বিপক্ষে অতটা সহজ ছিল না। তবে সব কৃতিত্ব আসলে জিম্বাবুয়ের। এ সিরিজে ওরাই আমাদের চেয়ে ভালো খেলেছে। তাদের কৃতিত্ব দিতেই হবে।’কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও ভুল দেখছেন বোলিংয়ে। তিনি বলেন ‘দুটি ম্যাচেই ৬০/৩, ৪০/৪ ছিল। ছেলেরা চাপের সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারেনি। বেশি আলগা বল করে ফেলেছে, ভুল ফিল্ডিংয়ে বল করেছে। ভুল অপশন বেছে নিয়েছে। তারা চেষ্টা করছে অনেক, তবে ভুল থেকে শিক্ষা নিতে পারছে না। এটিই সবচেয়ে হতাশাজনক। ভালো দল আপনাকে শাস্তি দেবেই।’ভুলটা কোথায় পরিষ্কার, ওয়ানডে টি-টোয়েন্টি দুই জায়গাতেই কিন্তু রোগটা প্রায় একই। তালটা রেখে টালটা সামলে নেওয়ার মানসিকতার অভাব। তবুও শেষ কথা, জিম্বাবুয়ের কাছে সিরিজ হারলে জাত যায় না। তবে জাতটা যায় একই ভুলের পুনরাবৃত্তিতে, আজকের দিনের চেয়ে আগামী দিনটা ভাল না গেলে। সেই হিসেবে, বাংলাদেশের জাত বহু আগেই থেকেই যাচ্ছে দেশের বাইরে। এবারও সেই সনাতন প্রশ্ন, ‘টাইগাররা ভুল থেকে শিখবে আসলে কবে?’

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com