চাঁদার দাবিতে নির্মাণ কাজ বন্ধ নবীগঞ্জে বসুন্ধরা এলপি গ্যাস প্রজেক্টের

চাঁদার দাবিতে নির্মাণ কাজ বন্ধ নবীগঞ্জে বসুন্ধরা এলপি গ্যাস প্রজেক্টের

চাঁদার দাবিতে নির্মাণ কাজ বন্ধ নবীগঞ্জে বসুন্ধরা এলপি গ্যাস প্রজেক্টের
চাঁদার দাবিতে নির্মাণ কাজ বন্ধ নবীগঞ্জে বসুন্ধরা এলপি গ্যাস প্রজেক্টের

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রুস্তমপুর টোলপ্লাজা সংলগ্ন বসুন্ধরা এলপি গ্যাস প্রজেক্টের নির্মান কাজ ১৫ লক্ষ টাকা চাঁদার দাবিতে সন্ত্রাসীরা কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে একমাস যাবৎ কয়েক কোটি টাকার নির্মান কাজ বন্ধ রয়েছে।

বুধবার সকালে হবিগঞ্জ জেলা জজ আদালতে ৯জনের নাম উল্লেখ করে চাঁদাবাজির মামলা করেছেন বসুন্ধরা গ্রুপের সংশ্লিষ্ঠ ঠিকাদার। মামলাটি আদালত আমলে নিয়ে ১৫ দিনের মধ্যে সিআইডি পুলিশকে তদন্ত মুলক ব্যবস্থা নিতে আদেশ প্রদান করেছেন।

মামলার বিবরনে জানা যায়, গত ০৯ এপ্রিল ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স হৃদয় এন্টারপ্রাইজ নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউ/পির রুস্তমপুর টোলপ্লাজা সংলগ্ন বসুন্ধরা এলপি গ্যাস প্রজেক্টের ২ কোটি টাকার নির্মান কাজের অনুমতিপত্র পায়। উক্ত কাজের অনুমতিপত্র পাওয়ার পর থেকে মামলার ১নং আসামী রুস্তমপুর গ্রামের মৃত এরশাদ উল্লার পুত্র ফজলু মিয়ার নেতৃত্বে আসামীরা এ কাজ তাদের সমিতি শাহজালাল ট্রেড এন্ড কর্মাস লিমিটেড এর বরাবরে দিয়া দিতে হবে নতুবা কাজ করতে দিবে না বলিয়া হুমকি দিতে থাকে।

আসামীগন স্থানীয় লোক হওয়ায় সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার নিরুপায় হয়ে পড়েন। তাদের প্রস্তাবে সম্মত হয়ে এবং তাহাদের কথামত তাদের নামীয় উপরোক্ত সমিতির দ্বারা কাজ করাইতে আমার কোন আপত্তি নাই মর্মে একখানা অঙ্গীকারনামা প্রদান করেন। কিন্তু বসুন্ধরা কর্তৃপক্ষ আসামীদের সমিতির নামীয় কাগজপত্র যাচাই বাছাই করে তাহা গ্রহনযোগ্য না হওয়ায় তাহাদের কোম্পানীর মাধ্যমে কাজ করাতে সম্মত না হয়ে গত ৯ এপ্রিল পুনঃরায় মেসার্স হৃদয় এন্টারপ্রাইজ কে কাজ করতে ওয়ার্ক অর্ডার প্রদান করেন। এতে আসামীগন ক্ষিপ্ত হয়ে বলে তাদের এলাকায় যদি কাজ করতে হয় তাহা হইলে তাহাদেরকে ১৫,০০,০০০/- (পনের লক্ষ) টাকা চাঁদা হিসাবে দিতে হবে। অন্যতায় তাকে প্রাননাশের হুমকি দেয়া হয়।

মেসার্স হৃদয় এন্টারপ্রাইজের ঠিকাদার তাদের কথামত চাঁদা না দিয়া এড়াইয়া চলিতে থাকেন এবং কাজ আরম্ভ করার প্রস্তুতি গ্রহন করিলে ৬ এপ্রিল বসুন্ধরা এল.পি গ্যাস কোম্পানীর প্রতিনিধি মাহবুব আলম এফ.সি.এ সরেজমিনে পরিদর্শনের জন্য আসেন এবং এ খবর পেয়ে সংশ্লিষ্ঠ ঠিকাদার এম,এ, আজাদ ঘটনাস্থলে যান। ঐ দিন বিকাল ৩ ঘটিকার সময় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কস্থ রুস্তমপুর টুল প্লাজার দক্ষিন পাশে বসুন্ধরা এল.পি গ্যাস প্রজেক্টে ফজলু মিয়ার নেতৃত্বে একদল লোক পরিকল্পিত্ব ভাবে এসে বলে “শালার বেটা তোর এত সাহস আমাদের দাবীকৃত ১৫,০০,০০০/- (পনের লক্ষ) টাকা চাঁদা না দিয়া প্রজেক্টে আসছস, এখন টাকা দেওয়ার ব্যবস্থা কর নতুবা কাজ করতে দিবনা এবং তোকে খুন করিয়া ফেলিব”। এসময় ঠিকাদার আজাদকে ঘেরাও দিয়া আটক করিয়া টানা হেছড়া করিয়া আসামী ফজলু মিয়ার ব্যক্তিগত অফিসে নিয়া আটকাইয়া রাখে এবং তাহাদের দাবীকৃত টাকা দেওয়ার জন্য আমাকে চাপ সৃষ্টি করিলে ঠিকাদার সম্মত না হইলে অফিসে রক্ষিত রামদা দিয়া আসামী ফজলু মিয়া ঠিকাদারকে প্রাণে হত্যার ভয় দেখাইয়া বাদী সাথে থাকা সাইড ব্যাগ জোর পূর্বক ছিনাইয়া নিয়া যায়।

এসময় সাইড ব্যাগে থাকা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মেসার্স হৃদয় এন্টারপ্রাইজ এর নামীয় ডাচ্ বাংলা ব্যাংক লিঃ শাখা এর একাউন্ট এর চেক বই হাতে নিয়া তাদের কোম্পানী শাহজালাল ট্রেড এন্ড কর্মাস এর নামে চেক লিখিয়া নেয়।

চেক দেওয়ার জন্য বলিলে ঠিকাদার সম্মত না হইলে আসামী কমলা মিয়া, আঃ মন্নান, লিটন, রিয়ান বাজে আচরণ করে হামলা করে তাকে আহত করে। এসময় আসামী ফজলু রামদা আমার গলায় ধরিয়া ফজলু মিয়া তার কথামত ১৫,০০,০০০/- (পনের লক্ষ) টাকার এক খানা চেক লিখিয়া নেয়। এসময় খবর পেয়ে পুলিশ এসে ঠিকাদার আজাদ কে উদ্ধার নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠান।

এব্যাপারে মেসার্স হৃদয় এন্টার প্রাইজের প্রোপাইটর এম,এ আহমদ আজাদ বলেন, আমি ১৫ লক্ষ টাকা চাঁদা না দেওয়াতে একমাস যাবত সন্ত্রাসীরা আমার কাজ বন্ধ করে রেখেছে। সন্ত্রাসীরা আমাকে আটক করে জোর পুর্বক ১৫ লক্ষ টাকার একটি চেক নিয়েছে।

এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানায় ওসি ইকবাল হোসেন বলেন, আমি জেনেছি ছোট খাটো ঝামেলা হয়েছে, থানায় অভিযোগ দিলে স্থানীয় এমপি স্যার বিষয়টি মিমাংসা করে দিবেন বলেছেন তাই মামলাটি রেকর্ড করা হয়নি।

এব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্য গাজী মোঃ শাহনওয়াজ মিলাদ, মারামারির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। তিনি বলেন একটা চেক আজাদ আরেকটি সমিতিকে দিয়েছে এনিয়ে ঝামেলা হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com