এবার টেলিভিশনের পর্দায় দেখা যাবে ডকুফিল্ম ‘হাসিনা : অ্যা ডটারস টেল’

এবার টেলিভিশনের পর্দায় দেখা যাবে ডকুফিল্ম ‘হাসিনা : অ্যা ডটারস টেল’

এবার টেলিভিশনের পর্দায় দেখা যাবে ডকুফিল্ম ‘হাসিনা : অ্যা ডটারস টেল’
এবার টেলিভিশনের পর্দায় দেখা যাবে ডকুফিল্ম ‘হাসিনা : অ্যা ডটারস টেল’

বিনোদন আপডেট ডেস্ক- বড় পর্দায় ব্যপক সাড়া জাগানোর পর এবার ছোট পর্দায় মুক্তি পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর নির্মিত বহুল আলোচিত ডকুফিল্ম ‘হাসিনা : অ্যা ডটারস টেল’। ডকুফিল্মটির ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হচ্ছে একসঙ্গে দেশের তিনটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ জানিয়েছেন, আগামী ১৫ ডিসেম্বর বিকাল ৩টায় চ্যানেল আই, মাছরাঙা ও গাজী টিভিতে এটি প্রচার হবে।
এছাড়াও আগামী ২১ ডিসেম্বর চলচ্চিত্রটি বিটিভি’তেও প্রচার করা হবে বলে জানা গেছে ।

এর আগে গত ১৬ নভেম্বর ঢাকা ও চট্টগ্রামের চারটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছিল রেজাউর রহমান খান পিপলুর পরিচালনায় ‘হাসিনা : অ্যা ডটারস টেল’। পরিবারের আদুরে মেয়ে কঠিন বাস্তবতা পেরিয়ে প্রধানমন্ত্রী হয়ে ওঠার এ গল্পটি বেশ ইতিবাচক সাড়া পেয়েছে। তাই বড় পরিসরে মুক্তির কথা ভাবছিল ডকুফিল্মটির অন্যতম প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই)। পরিকল্পনা ছিল সারাদেশের প্রেক্ষাগৃহে এটি প্রদর্শনের। তবে তার আগেই দর্শকদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে ছোট পর্দায় দেখা যাবে ডকুফিল্মটি এবার ।

আওয়ামী লীগের গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই) ও অ্যাপেলবক্স ফিল্মস’র যৌথ প্রযোজনায় ৭০ মিনিট দৈর্ঘের এ ডকু-ড্রামা বানিয়েছেন অ্যাপলবক্স’র প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক রেজাউর রহমান খান পিপলু।

নির্মাণ সংশ্লিষ্টরা জানান, এই ডকু-ড্রামায় একজন শেখ হাসিনার রান্না ঘর থেকে শুরু করে সরকারপ্রধানের দায়িত্ব পালন, বেঁচে থাকার সংগ্রামসহ ব্যক্তিগত, পারিবারিক, রাজনৈতিক জীবনের নানা দিক ফুঠে উঠেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার ছোট বোন শেখ রেহানার জীবনের কথাও উঠে এসেছে এতে।

নির্মাণ সংশ্লিষ্টরা জানান, শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানার আবেগঘন কণ্ঠ আর দৃশ্যায়নে ফুটে উঠেছে তাদের বাবা স্বাধীন বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা বঙ্গবন্ধুকে ১৯৭৫ সালে নৃশংস কায়দায় হত্যার পর বিষাদপূর্ণ সময় ও দুই বোনের নির্বাসিত জীবনসংগ্রামের চিত্রও।

নির্মাণ সংশ্লিষ্টরা আরও জানান, শেখ হাসিনা কখনো বঙ্গবন্ধু কন্যা, কখনো জননী, কখনো বোন, কখনো গণমানুষের ত্রাতা রূপে জায়গা পেয়েছেন দেশের মানুষের হৃদয়ে। সেই বিষয়টিও তুলে ধরা হয়েছে ডকু-ড্রামায়।

নির্মাতা পিপলু বলেন, ‘এই ডকু-ড্রামার মধ্য দিয়ে একটি সত্যনিষ্ঠ জীবনপ্রবাহকে পর্দায় হাজির করতে চেয়েছি মাত্র। এটি অলমোস্ট আমাদের পাঁচ বছরের পরিশ্রমের ফসল। যদিও শুরুতে এমন কিছু করব ভাবিইনি। শুরুতে আমরা চেয়েছি প্রধানমন্ত্রীর পারসোনাল অ্যাকটিভিটিগুলো রেকর্ড করে রাখতে। যার তেমন কোনো উদ্দেশ্য ছিল না। বছর দুই পর এসে মনে হলো, এটি নিয়ে অসাধারণ কিছু করা যায়। কারণ ওনার পুরো লাইফটা এত বেশি ড্রামাটিক, সেটি সবাই জানেন। এখানে আমি তার সেই ছোট ছোট জীবনের গল্পগুলোকে এক সুতোয় বাঁধার চেষ্টা করেছি।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com