ইমরান খানকে গ্রেফতারের হুমকি, বাসভবনে নিরাপত্তা জোরদার

ইমরান খানকে গ্রেফতারের হুমকি, বাসভবনে নিরাপত্তা জোরদার

ইমরান খানকে গ্রেফতারের হুমকি, বাসভবনে নিরাপত্তা জোরদার
ইমরান খানকে গ্রেফতারের হুমকি, বাসভবনে নিরাপত্তা জোরদার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও তার সরকারকে হটাতে দেশটির বিরোধী দলগুলি বিক্ষোভে নেমেছে। তাদের অভিযোগ, ২০১৮ সালে ভোটে ব্যাপক কারচুপির করে ক্ষমতায় এসেছেন ইমরান খান। এমন ভুয়া সরকারের ক্ষমতায় থাকার কোনও অধিকার নেই।

এদিকে ইমরান খান স্বেচ্ছায় প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ না করলে বিরোধী দলীয় বিক্ষোভকারীরা তাকে গ্রেফতার করবেন বলে হুমকি দিয়েছেন পাকিস্তানের রাজনৈতিক দল জমিয়ত-ই-ইসলামের (জেইউআই-এফ) প্রধান মাওলানা ফজলুর রেহমান।

তার এই হুমকির পর রোববার ইসলামাবাদে ইমরান খানের বাসভবনে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে বলে দেশটির ইংরেজি দৈনিক এক্সপ্রেস ট্রিবিউন এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, গত বছরের নির্বাচনে জালিয়াতি করে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার অভিযোগ এনে ইমরান খানকে পদত্যাগ করতে দুই দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছেন ইসলামাবাদে বিক্ষোভরত বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীরা। পাকিস্তানের এই প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের জন্য গত দুই দিন ধরে ইসলামাবাদে টানা বিক্ষোভ করছেন তারা।

বিক্ষোভের নেতৃত্বে থাকা দেশটির বিরোধী দল জেইউআই-এফ প্রধান মাওলানা ফজলুর রেহমান হুমকি দিয়ে বলেছেন, দুদিনের আল্টিমেটাম শেষ হওয়ার আগে যদি ইমরান খান পদত্যাগ না করেন, তাহলে বিরোধীদলীয় বিক্ষোভকারীরা প্রধানমন্ত্রীকে গ্রেফতার করবেন। মাওলানা রেহমানের এই হুমকির পর ইসলামাবাদে ইমরান খানের বানি গালার বাসভবনে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

স্থানীয় প্রশাসন বলছে, তারা যেকোনো ধরনের পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য প্রস্তুত আছে। রাজধানী বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক ভবন ও স্থাপনা সুরক্ষায় এলিট ফোর্স ও প্যারামিলিটারি র্যাঞ্জার্সের সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে।

দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় বলছে, সংসদ ভবনসহ স্পর্শকাতর বেশ কিছু এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য ও সাঁজোয়া যান মোতায়েন করা হয়েছে। মাওলানা ফজলুর রেহমানের হুমকির পর ইসলামাবাদের বানি গালাতে অবস্থিত প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের চারপাশের রাস্তায় ব্যারিকেড দেয়া হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো সড়কই একেবারে বন্ধ করে দেয়া হয়নি।

ইমরান খানকে উৎখাতে গত বুধবার লাহোর থেকে শুরু হয় ‘আজাদি মার্চ’। এর নেতৃত্বে আছেন দেশটির জামায়াতে উলামায়ে ইসলাম (জেইউআই) পার্টির আমির প্রধান মাওলানা ফজলুর রহমান। আজাদি মার্চের মিছিলে শামিল হয় পাকিস্তান পিপল’স পার্টি (পিপিপি), আওয়ামি ন্যাশনাল পার্টির (এএনপি) নেতারা। ইমরান খান সরকারকে উৎখাতের সংকল্প নিয়ে এই মহামিছিল বৃহস্পতিবার রাজধানী ইসলামাবাদে এসে পৌঁছায়। জানা যায়, মিছিল যত দেশটির রাজধানীর দিকে পৌঁছায়, ততক্ষণে হাজার হাজার জনতা যোগ দেয়।

শুক্রবার কয়েক হাজার মানুষের জমায়েতে পাকিস্তান মুসলিম লীগের (পিএমএল) সভাপতি শেহবাজ শরিফ বলেন, এই ভুয়া সরকারকে উৎখাতের সময় এসেছে। প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা না দেওয়া পর্যন্ত আমরা ইমরান খানকে শান্তিতে থাকতে দেব না।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com