আফগানিস্তানে মার্কিন ড্রোন হামলায় ‍‘আইএস জঙ্গি’ নিহত

আফগানিস্তানে মার্কিন ড্রোন হামলায় ‍‘আইএস জঙ্গি’ নিহত

http://lokaloy24.com
http://lokaloy24.com

আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলে ইসলামিক স্টেট (আইএস) গোষ্ঠীকে লক্ষ্য করে ড্রোন হামলা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এ হামলায় গোষ্ঠীটির একজন সদস্য নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে সেনা কর্মকর্তারা। কাবুল বিমানবন্দরে হামলার ঘটনায় দেশটির সেনাবাহিনীর ১৩ সদস্যসহ ১৭৫ জন নিহত হওয়ার ঘটনার পর এমন হামলা চালালো যুক্তরাষ্ট্র।

হামলার ঘটনা নিশ্চিত করে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় কমান্ডের ক্যাপ্টেন বিল আরবান বলেছেন,‘আফগানিস্তানের নানগাহার প্রদেশে মনুষ্যবিহীন ড্রোন হামলা চালানো হয়েছে এবং এতে কাবুলে হামিদ কারজাই বিমানবন্দরে হামলার পরিকল্পনাকারীদের একজন নিহত হয়েছে। আমরা জানি, এ হামলায় কোন বেসামরিক নাগরিক মারা যায়নি।’

আজ শনিবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, আফগানিস্তানের নানগাহার প্রদেশে অবস্থানরত আইএস-কে গ্রুপের একজন ‘পরিকল্পনাকারীকে’ লক্ষ্য করে গতকাল শুক্রবার এই অভিযান চালায় যুক্তরাষ্ট্র। প্রাথমিক তথ্য বলছে, নানগাহারে যে ব্যক্তিকে লক্ষ্য করে ড্রোন হামলাটি চালানো হয়েছে, তার মৃত্যু হয়েছে।  তবে কোন বেসামরিক লোক নিহত হয়নি বলে দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের হামিদ কারজাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আত্মঘাতী হামলা চালানো হয়। এ হামলায় ১৩ জন মার্কিন সেনাসহ ১৭৫ জন প্রাণ হারায়।  কাবুলে হামলার পরপরই আইএসের খোরাসান শাখা আইএস-কে হামলার দায় স্বীকার করে। যুক্তরাষ্ট্র জানায়, আবারও হামলার ইঙ্গিত পাওয়ার পর আইএস-কে টার্গেট করে এ হামলা চালায় তারা।

বৃহস্পতিবারের হামলার পর মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছিলেন, ‘যারা এ হামলা চালিয়েছে, একই সঙ্গে যারা আমেরিকার ক্ষতি করতে চায়, তারা এটা জেনে রাখুক যে আমরা ক্ষমা করব না। আমরা ভুলব না। আমরা তোমাদের ধরব। এ হামলার জন্য দায়ীদের মূল্য চোকাতে হবে।’

বাইডেনের ওই প্রতিশ্রুতির পর গতকাল শুক্রবার আফগানিস্তানে হামলা চালায় মার্কিন বাহিনী। আফগানিস্তানে এমন সময়ে এ হামলা চালানো হলো, যখন কাবুল থেকে লোকজন সরিয়ে নেওয়ার কাজ অব্যাহত রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র।

আগামী ৩১ আগস্টের মধ্যে আফগানিস্তানে মার্কিন অভিযান শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। দেশটি ছাড়তে এখনো প্রায় ৫ হাজার মার্কিন সেনা কাবুল বিমানবন্দরে অবস্থান করছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

উল্লেখ্য, আফগানিস্তানের কাবুলে হামলা চালানো আইএস-কে সংগঠনটির পূর্ণ নাম ইসলামিক স্টেট অব খোরাসান। জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) এর আঞ্চলিক সহযোগী শাখা হিসেবে কাজ করছে তারা। বর্তমান আফগানিস্তান ও পাকিস্তান নিয়ে প্রাচীন আমলে যে অঞ্চল সেটিই খোরাসান নামে পরিচিত ছিল। বর্তমানে আইএস-কে আফগানিস্তান ও পাকিস্তানে সক্রিয় রয়েছে বলে জানা গেছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com