আজমিরীগঞ্জে জামায়াত ইসলামের আমির গ্রেফতার

আজমিরীগঞ্জে জামায়াত ইসলামের আমির গ্রেফতার

আজমিরীগঞ্জ প্রতিনিধি- হবিগঞ্জের  আজমিরীগঞ্জে হেফাজতের পিকেটিং এর পুলিশ এসল্ট মামলায় জলসুখা ইউনিয়নের জামায়াত ইসলামের আমির কাজী এমদাদুর রহমান(৫০)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ মঙ্গলবার বিকাল আনুমানিক ৪ টায় একটি বাল্য বিয়ে পড়ানোর অপরাধে মুচলেকা দিতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) উত্তম কুমার দাশের ভ্রাম্যমাণ আদালতে আসেন ওই আমির। মুচলেখা দিয়ে ফেরার পথে আজমিরীগঞ্জ উপজেলা কমপ্লেক্সের সামনে আসলে আজমিরীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) আবু হানিফের নেতৃত্বে এ এস আই মহসিন কবির তাকে আটক করে আজমিরীগঞ্জ থানায় নিয়ে যান। আটক কাজী এমদাদুর রহমান জলসুখা ইউনিয়নের মাধবপাশা গ্রামের মাওলানা আব্দুল আহাদের পুত্র।

উল্লেখ্য গত ২৮ মার্চ বেলা ১২টায় হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জ-বানিয়াচং সড়কের নোয়াগড় এলাকায় হেফাজতে ইসলামের সমর্থকরা রাস্তায় সিসি ব্লক ফেলে অবরোধ করে রাখে। এ সময় পুলিশ বাঁধা দিলে পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুঁড়তে থাকেন তারা। একপর্যায়ে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে কর্তব্যরত পুলিশের উপর আক্রমন করে হেফাজতের সমর্থকরা। এতে আজমিরীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ নুরুল ইসলামসহ আরও পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হন। এ সময় হেফাজতের কর্মীরা পুলিশের একটি গাড়ি ভাংচুর করেন এবং দুটি মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে পুড়িয়ে দেন। এক পর্যায়ে হেফাজতের সমর্থকরা মাইকে ঘোষণা দিয়ে আবারও পুলিশের ওপর হামলা চালান। পুলিশ তখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৩৩টি রাবার বুলেট ছোড়ে। এতে হেফাজতের কর্মীরা পিঁছু হঠতে বাধ্য হয়।
এ প্রেক্ষিতে গত ২৯ মার্চ সকালে আজমিরীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক জয়ন্ত তালুকদার বাদী হয়ে ২৬ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও চার শতাধিক হেফাজত সমর্থকদের আসামি করে একটি পুলিশ এসল্ট মামলা দায়ের করেন। যার পরিপ্রেক্ষিতে এখন পর্যন্ত ১৮ জন হেফাজত কর্মীকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। এ বিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ নুরুল ইসলাম জানান, আজ মঙ্গলবার বিকালে সহকারী কমিশনার (ভুমি) মহোদয় উত্তম কুমার দাশ ফোনে আমাকে জানান বাল্য বিবাহ বন্ধ করার জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালতের ফোর্স পাঠাতে। আমি তখন ওসি (তদন্ত) আবু হানিফকে ফোর্স সহ পাঠাই। পর ফোনে জানতে পারি, যে কাজী বিয়ে পড়াচ্ছেন সেই কাজী এমদাদুর রহমান হেফাজতের পিকেটিংয়ের সময় মিছিলে ছিলেন। এবং উনি জলসুখা ইউনিয়নের জামায়াত ইসলামের আমির। এরপর উনাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। বর্তমানে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com