“আগে ঈমান”

“আগে ঈমান”

lokaloy24.com
lokaloy24.com

lokaloy24.com

lokaloy24.com

সালেহ্ আব্দুর রাজ্জাক ॥ ঈমান শব্দের আভিধানিক অর্থ হচ্ছে বিশ্বাস বা আস্তা স্থাপন করা এবং ইসলামি পরিভাষায় তার অর্থ হচ্ছে মুখের স্বীকারোক্তিসহ আল্লাহ্ তায়ালা ও তার গুণাবলী সম্পর্কে অন্তরে বিশ্বাস স্থাপন করা এবং রাসুলুল্লাহ (ছাঃ) ও আল্লাহ্ তায়ালার তরফ হতে তার বান্দাদের কাছে যাকিছু পৌঁছেছে তা সমস্থই সত্য ধারণ করতঃ বিশ্বাস স্থাপন করা এবং তদানুযায়ী আমল করা। একেই সাধারণ অর্থে ঈমান বা সংপ্তি ঈমান বলা হয়। ইসলামী শরীয়ত একে ঈমানে মুজমাল নামে আখ্যায়িত করেছে। ঈমান অর্থ বিশ্বাস, পরিপুর্ণ মু’মিন সেই যে শরীয়তের বিষয়গুলোকে আন্তরীকভাবে বিশ্বাস করে এবং এগুলোর মৌখিক স্বীকৃতিসহ বাস্তব জীবনে পরিপুর্নভাবে মেনে চলে। ঈমানে মৌলিক বিষয়সমুহ পবিত্র কোরআন ও হাদিসে বর্ণিত আছে ও ঈমানে মুফাসসালে সে বিষয়গুলোরই সহজ বর্ণনা পাওয়া যায় যেমনঃ উচ্চারণঃ-আ-মানতু বিলল্লা-হি ওয়া মালা-ই কাতিহী ওয়া কুতুবিহী ওয়া রসুলিহী ওয়াল্ ইয়াওমিল আ-খিরি ওয়াল্ ক্বাদরি খাইরিহী ওয়া শাররিহী মিনালল্লা-হি তা’আ-লা- ওয়াল্ বা’ছি বা’দাল মাওত্।
অর্থঃ-আমি ঈমান আনলাম (এক) আল্লাহর প্রতি, তাঁর ফেরেশতাদের প্রতি, তাঁর কিতাব সমূহের প্রতি, তাঁর রাসুলদের প্রতি, আখিরাতের প্রতি, তাকদীরের ভাল-মন্দ সব কিছু আল্লাহর ইচ্ছায় হয়-এর প্রতি, এবং মৃত্যুর পর পুনরুত্থিত হওয়ার পদ্ধতি। উল্লেখিত মৌলিক বিষয়গুলোর প্রতি দৃঢ় বিশ্বাস ব্যতীত কখনও ঈমান পরিপুর্ন হবে না। যিনি এগুলোতে আন্তরিক বিশ্বাস রাখবেন তাকেই মুমিন বলা হয়।
তবে মনে রাখার বিষয় হল; অধিকাংশ মানুষ আল্লাহ্র প্রতি ঈমান আনার পরেও শিরিক করে। (সুরা ইউসুফ আয়াত নং-১০৬)

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com