সংবাদ শিরোনাম :
শুল্ক ফাঁকির শতাধিক বিলাসবহুল গাড়ি এখন সিলেটে! দুবাইয়ে চাকরি দেয়ার কথা বলে টাকা আত্মসাত ॥ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা অবশেষে আবর্জনামুক্ত হচ্ছে হবিগঞ্জ শহরে আধুনিক স্টেডিয়ামের পাশ হবিগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে জামায়াত নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা অপরাধ কর্মকাণ্ড রোধে সতর্ক পুলিশ শাহজীবাজার মাজারে প্রশাসনের আদেশ অমান্য করে কাফেলার আয়োজন সংবাদ প্রকাশের পর গার্নিং পার্কে মিনি পতিতালয়ের সন্ধান ডিবির অভিযানে ৫ কলগার্লসহ ৩ খদ্দর আটক কোরেশনগরে হোটেল যুবরাজ থেকে লাশ উদ্ধার ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে ফাইনালে আর্জেন্টিনা ছেলের বিয়ের দাওয়াতে বের হয়ে বাড়ি ফেরা হলো না মায়ের
অপরাধ কর্মকাণ্ড রোধে সতর্ক পুলিশ শাহজীবাজার মাজারে প্রশাসনের আদেশ অমান্য করে কাফেলার আয়োজন

অপরাধ কর্মকাণ্ড রোধে সতর্ক পুলিশ শাহজীবাজার মাজারে প্রশাসনের আদেশ অমান্য করে কাফেলার আয়োজন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মাধবপুর উপজেলার শাহজীবাজারে ঐতিহ্যবাহী শাহ সুলেমান ফতেহ গাজী (রাঃ) এর মাজার প্রাঙ্গনে ৩দিন ব্যাপী ওরস শুরু হচ্ছে আজ বুধবার থেকে।
তবে অভিযোগ উঠেছে মাজারের পবিত্রতা নষ্ঠ করার জন্য গান বাজনা, সার্কাস, চড়কিঘোড়া, ডেঞ্জারগেইম, জুয়াসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি নিচ্ছে আয়োজকরা। এতে করে শাহ সুলেমান ফতেহ গাজী (রাঃ) ওরসের পবিত্রতা নষ্ট হবে বলে মনে করছেন ভক্তবৃন্দরা।
এদিকে ১১ ডিসেম্বর জেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত হয় মাজার প্রাঙ্গণে কোনো কাফেলা, গান বাজনা, এমনকি দোকানপাট কিংবা অপরাধমূলক কাজ চলবে না। কিন্তু এ আদেশ উপেক্ষা করে স্থানীয় প্রভাবশালী এক জনপ্রতিনিধির নেতৃত্বে এসবের আয়োজন করা হয়েছে। ইতোমধ্যেই বিভিন্ন জেলা থেকে বাউলসহ গানের নারী শিল্পীরা মাজারে আসতে শুরু করেছে।
খবর নিয়ে জানা গেছে মাজার প্রাঙ্গণে প্রায় ২ শতাধিক কাফেলা ও দোকান বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। আর এসব দোকান থেকে ৩ দিনের জন্য দোকান প্রতি ১০ হাজার থেকে শুরু করে ৫০ হাজার টাকা নেয়া হচ্ছে।
এ ছাড়া সন্ধ্যা থেকেই গভীররাত পর্যন্ত মাজারের পাশে গানের আয়োজন ও কাফেলা বসানো হবে। সেখানে টাকার বিনিময়ে নাচঁ গান শুরু হবে। এতে মাজারের পবিত্রতা নষ্ট হবে।
শুধু তাই নয়, আয়োজক কমিটির লোকজন মাজারের পাশে জুয়া, মাদক সেবনসহ অপরাধমূলক কর্মকান্ডের সুযোগ করে দিচ্ছেন। গতকাল সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, এসবের প্রস্তুতি নিচ্ছে কমিটির কিছু লোক। এমনকি কাফেলা ও দোকান পাট নির্মাণ করা হচ্ছে।
কয়েকজন জানান, গান-বাজনা না থাকলে মাজারে ওরস জমে না। সেজন্য তারা গানবাজনার আয়োজন করেছেন। তবে ভক্তবৃন্দরা মনে করছেন সরকারি আদেশ অমান্য করে এসব করা হয় তবে মাজার প্রাঙ্গণে অপ্রীতিকর ঘটনাসহ পবিত্রতা নষ্ট হবে।
এ বিষয়ে মাধবপুর থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক জানান, মাজার কমিটিকে বলা হয়েছে গান বাজনা নিষেধ। তবে দোকান কিছু রয়েছে সেগুলো লোক থাকার জন্য। যদি আদেশ অমান্য করে এসব করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com