সংবাদ শিরোনাম :
দশ টাকায় টিকিট কেটে চক্ষু পরীক্ষা করালেন প্রধানমন্ত্রী বাহুবলে বেকারিতে অনুমোদনবিহীন বিএসটিআই লোগো ব্যবহার ২৫ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগের ফল ১৪ ডিসেম্বর হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে মাদরাসা ছাত্রীর মৃত্যু হবিগঞ্জ এসে পৌঁছেছে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া শীতবস্ত্র হাওর থেকে নামছে না পানি, বীজতলা তৈরি নিয়ে শঙ্কা সিলেট বোর্ডে পাসের হার কমেছে ১৭.৯৬ শতাংশ, ফেল বেশি মানবিকে : হবিগঞ্জে পাশের হার ৭৭ দশমিক ৮৬ শতাংশ নবীগঞ্জ উপজেলা মাসিক আইনশৃঙ্খলা কমিটির  সভা অনুষ্ঠিত  মাধবপুরে নবাগত ইউএনওর মতবিনিময় সভা  মৎস্য কর্মকর্তার ডিজিটাল আইনের মামলায় দুই সাংবাদিকের জামিন মঞ্জুর
৮ বছর ধরে মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ, অভিযুক্ত বাবাকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

৮ বছর ধরে মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ, অভিযুক্ত বাবাকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

রাজধানীর ওয়ারী থানায় ধর্ষণের অভিযোগে মেয়ের করা মামলায় বাবাকে ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই মামলায় চার সপ্তাহের আগাম জামিন দেওয়া হয়েছে দ্বিতীয় আসামি ভিকটিমের মাকে। মামলায় মায়ের বিরুদ্ধে ধর্ষণে প্রশ্রয় দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। রুদ্ধদ্বার আদালতে মেয়ে এবং মেয়ের স্বামীর বক্তব্য শুনেছেন আদালত।

মামলায় বাবা ও মা গত বৃহস্পতিবার আগাম জামিন নিতে এলে এ আদেশ দেন বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি মো. বশির উল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ। জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী পার্থ সারথী মন্ডল। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সারওয়ার হোসেন বাপ্পী ও মনিরুল ইসলাম। শুনানিতে আদালতকে সহযোগিতা করেন আইনজীবী মো. ওজি উল্লাহ, মাহাবুব উদ্দিন খোকন ও আইনজীবী মো. শিশির মনির।
শুনানিকালে আদালত বাবা-মায়ের কাছে মেয়ের এমন অভিযোগের বিষয়ে জানতে চান। জবাবে তারা বলেন, মেয়ের স্বামী এবং স্বামীর বাড়ির লোকজন তাদের সঙ্গে মেয়েকে যোগাযোগ করতে দিচ্ছে না। আর এ ধরনের অভিযোগের বিষয়ে তারা কিছু জানেন না। এরপর আদালত রাষ্ট্রপক্ষকে নির্দেশ দেন, মেয়ে (মামলার বাদী) ও তার স্বামীকে নিয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে আদালতে হাজির হতে। রাষ্ট্রপক্ষ তদন্ত কর্মকর্তাকে আদালতের নির্দেশ জানানোর আধাঘণ্টা থেকে পৌনে এক ঘণ্টার মধ্যেই তারা আদালতে হাজির হন। পরে রুদ্ধদ্বার আদালতে মেয়ে এবং মেয়ের স্বামীর বক্তব্য শোনেন আদালত।

এ মামলা নিয়ে আইনজীবী মো. ওজি উল্লাহ গণমাধ্যমকে বলেন, আট বছর ধরে বাবা এ পৈশাচিক কাজ করে আসছেন বলে অভিযোগ করেন মেয়ে। বিয়ের পরও মেয়েটি ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে আদালতকে জানান বাদী। আর এতে মায়ের সহযোগিতা আছে বলেও জানান মেয়ে।

আইনজীবী শিশির মনির গণমাধ্যমকে বলেন, প্রথমে আমরা ভেবেছিলাম স্বার্থসংশ্লিষ্ট বা মানসিক সমস্যার কারণে হয়তো এমন অভিযোগে বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন মেয়ে। কিন্তু আদালতের সামনে যখন তিনি অভিযোগের বিষয়ে বলছিলেন তখন বাবা-মা দুজনই আদালতে ছিলেন। সে সময় মেয়ের অভিযোগ অবিশ্বাস করার মতোও মনে হয়নি।

আইনজীবী পার্থ সারথী মন্ডল গণমাধ্যমকে বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, ২০০০ এর ৯(১) ও ৩০ ধারায় বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে গত ৩ নভেম্বর ওয়ারী থানায় মামলা করেন মেয়ে। বাবার বিরুদ্ধে ধর্ষণ এবং মায়ের বিরুদ্ধে ধর্ষণে সহায়তার অভিযোগ আনা হয়েছে মামলায়। আদালত মাকে চার সপ্তাহের আগাম জামিন দিলেও বাবাকে চার দিনের মধ্যে ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন। নির্দেশ অনুযায়ী সোমবার আত্মসমর্পণের কথা রয়েছে বাবার।

উল্লেখ্য, চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাসিন্দা বাবা-মা এখন থাকেন ঢাকার ওয়ারীতে। বাবা তার বড় ভাইয়ের এসি-ফ্রিজের দোকানে কাজ করেন। চলতি বছর জানুয়ারিতে মেয়েকে বিয়ে দেন। গত ৩ নভেম্বর ধর্ষণ মামলার পর গত বৃহস্পতিবার এ মামলায় আগাম জামিন চেয়ে আবেদন করেন বাদীর বাবা-মা। বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে মেয়ের মামলা শুনে আদালত মামলার বিবরণ শুনতে চান। তখন আইনজীবী এফআইআর থেকে মামলার বিবরণ আদালতের সামনে তুলে ধরেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com