সংবাদ শিরোনাম :
নবীগঞ্জে গরু ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে গরু রাখাল খুন ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ যুব সমাজ চুনারুঘাটের আহম্মদাবাদ ইউনিয়নজুড়ে জুয়া ও মাদকের ছড়াছড়ি মাধবপুরে মালিকানার জোর দেখিয়ে পথচলায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি!  চুনারুঘাটে শিক্ষা ব্যবস্থায় ধস, ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা লাখাইয়ে ডাকাতদলের সদস্য গ্রেপ্তার শায়েস্তাগঞ্জে পচাঁবাসি খাবার বিক্রির অভিযোগে ফার্দিন মার্দিন রেষ্টুরেন্টকে জরিমানা চুনারুঘাটে ৮ বছরের শিশু ধর্ষণের শিকার অনিয়মের দায়ে এয়ার লিংক ক্যাবল টিভি নেটওয়ার্ককে জরিমানা বানিয়াচংয়ে এক নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার হবিগঞ্জে অকৃতকার্য বেড়েছে ৩ গুণের বেশি
হবিগঞ্জে সবজির দাম আকাশছোঁয়া : ক্রয়ক্ষমতার বাইরে চলে যাচ্ছে ক্রেতার

হবিগঞ্জে সবজির দাম আকাশছোঁয়া : ক্রয়ক্ষমতার বাইরে চলে যাচ্ছে ক্রেতার

স্টাফ রিপোর্টার : হবিগঞ্জে সবজির দাম ক্রমাগত বাড়ছেই। দিন দিন সাধারণ ক্রেতাদের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে চলে যাচ্ছে সবজি। বিক্রেতারা বলছেন, টানা বৃষ্টি ও স্থানীয় সরবরাহ কমে যাওয়ায় বাজারে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি কেজি সবজিতে ২০-২৫ টাকা দাম বেড়েছে। কোনো কোনো সবজি দ্বিগুণ দামেও বিক্রি হচ্ছে।

জেলা শহরের চৌধুরী বাজার, বগলা বাজার, শায়েস্তানগর বাজার ও পৌরসভা বাজার ঘুরে দেখা যায়, ফুলকপি ৮০-১০০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। ছোট আকারের লাউ এক সপ্তাহ আগে ৩০-৩৫ টাকায় বিক্রি হলেও দাম বেড়ে হয়েছে ৫০-৬০ টাকা। এছাড়া ৬০-৮০ টাকার টমেটো ১২০-১৩০ টাকা, ৮০ টাকার শিম ১২০-১৩০ টাকা, ৪৫ টাকার বেগুন ৬০ টাকা, ৪০ টাকার ঢ্যাঁড়শ ৫০-৬০ টাকা, ৪০ টাকার পটল ৫০ টাকা, ৫০ টাকার গাজর ১২০ টাকা, পেঁপে ১৫-২০ টাকা, ২৬ টাকার আলু ৩০ টাকা, ৪০ টাকার চিচিঙ্গা ৫০ টাকা, ৪০-৪৫ টাকার বাঁধাকপি ৫০-৫৫ টাকা, ৪৫ টাকার শসা ৫৫-৬০ টাকা, ৫০ টাকার কাঁচা মরিচ ৮০ টাকা, ৩০ টাকার মুলা ৪৫-৫০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে।

এক সপ্তাহ আগে কচুর মুখি ৪০ কেজি বিক্রি হলেও এখন তার দাম বেড়ে হয়েছে ৫০-৫৫ টাকা। ঝিঙের দামও বেড়েছে। আগে ৫০ টাকা কেজি ঝিঙে বিক্রি হলেও এখন ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

কোর্ট স্টেশন এলাকার বাসিন্দা শেখ মাহবুবুর রহমান জাগো নিউজকে বলেন, ‘গত সপ্তাহে টমেটো কিনেছি ৮০ টাকা কেজি। বৃহস্পতিবার কিনলাম ১২০ টাকা কেজি। সপ্তাহের ব্যবধানে ৪০ টাকা দাম বেড়েছে। এখন সবজিও সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে চলে যাচ্ছে।’

সবজি বিক্রেতা মো. নোমান মিয়া বলেন, স্থানীয় বাজারগুলো থেকে পাইকারিভাবে কম সবজি সরবরাহ কম হচ্ছে। যা আসছে তা দিয়ে হবিগঞ্জের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব নয়। আমাদের দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বাড়তি দামে সবজি কিনতে হচ্ছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com