সুষ্ঠু বিচার ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে অভিভাবকরাও রাস্তায়

সুষ্ঠু বিচার ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে অভিভাবকরাও রাস্তায়

নিজস্ব প্রতিবেদক : বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের সুষ্ঠু বিচার ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে রাস্তায় নেমেছেন অনেক অভিভাবকও। কোথাও তারা নিরাপদ সড়কের দাবিতে ফেস্টুন ও ব্যানার বহন করেছেন।বৃহস্পতিবার পঞ্চম দিনের মতো রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে শিক্ষার্থীরা অবস্থান নিলে তাদের সঙ্গে অভিভাবকরাও শুকনো খাবার, পানি ও স্যালাইন নিয়ে হাজির হন। এতে আন্দোলনরত  শিক্ষার্থীদের মধ্যে উৎফুল্ল ও প্রেরণা সৃষ্টি হয়। বেশ কিছু এলাকায় শিক্ষার্থীদের মধ্যে খাবার, পানি, স্যালাইন এবং বিস্কুট বিতরণ করতে দেখা গেছে অনেক অভিভাবককে।

সাইন্সল্যাবের মোড়ে খাবার ও পানি নিয়ে আসা অভিভাবকদের একজন নার্গিস আক্তার। ধানমন্ডিতে থাকেন তিনি। তার সন্তানও নিরাপদ সড়কের দাবিতে রাস্তায় আন্দোলন করছে। তিনি জানান, ‘শুধু আমার ছেলেই না, আরও অনেক সন্তানই ন্যায্য দাবিতে রাস্তায় নেমেছে। আমি তাদের দাবির সঙ্গে একমত। আমি আশা করি, অন্য অভিভাবকরাও তাদের সন্তানের জন্য নিরাপদ সড়ক চান। এই ভ্যাপসা গরমে অসুস্থ হয়েও পড়তে পারে তারা, তাই নিজেই চলে আসলাম। তাদের জন্য পানির ব্যবস্থা তো অন্তত করা গেল।’
অন্যদিকে, একইস্থানে কয়েকজন তরুণীকে দেখা গেল খাবারের প্যাকেট নিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিতরণ করতে। পরিচয় জানতে চাইলে তারা বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশের নাগরিক এবং এই শিক্ষার্থীদের বড় বোন। আর কোনো পরিচয় নাই।’ শুধু অভিভাবকরাই নয়, সায়েন্স ল্যাবরেটরি এলাকার কয়েকটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানও নিজ উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের মাঝে খাবার পানি বিতরণ করে।
দুপুরে মহাখালী এলাকায় গিয়েও দেখা গেছে, সেখানে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে অভিভাবক রাস্তায় দাঁড়িয়ে আছেন। তেমনি একজন তমিজ উদ্দীন। বয়স ষাটের কাছাকাছি। নাখালপাড়া এলাকায় বাসা। কাছে গিয়ে জানতে চাই এখানে কী করছেন। কিছুটা ভাবলেশহীনভাবে বললেন- কিছ্ইু না। নাতির বয়সী ছেলেমেয়েরা যৌক্তিক দাবিতে আন্দোলন করছে। তাই তাদের দেখাশোনা করছি। আমার পক্ষ থেকে এক প্যাকেট চকলেট দিয়েছি। এতে তারা খুশি হয়েছে। এতটুকু করে আমারও শান্তি লাগছে। নাবিস্কো, সাত রাস্তার মোড়, বেইলি রোড, কাকরাইল মোড়েও আরও অনেক অভিভাবককে দেখা গেছে শিক্ষার্থীদের পাশে অবস্থান নিতে।
নাম প্রকাশ না করতে চেয়ে কাকরাইল মোড়ে একজন অভিভাবক বলছিলেন- ‘আমার সন্তান উইলস লিটলস ফ্লাওয়ার স্কুলে পড়ে। আমি তার মা হিসেবে রাজপথে সন্তানদের লাশ আর দেখতে চাই না।’ তাদের একজনের হাতে ফ্যাস্টুনে লেখা ছিল- ‘সন্তানের রক্ত আর না, প্রয়োজনে মায়েদের রক্ত নিন, তবুও ওদের বাঁচতে দিন।’
এদিকে শোবিজের তারকারা শিক্ষার্থীদের এমন আন্দোলনে প্রথমে ফেসবুকে সমর্থনের কথা জানালেও চতুর্থ দিন থেকে ছাত্রদের সঙ্গে রাজপথেও নামেন তারকারা। গতকাল পঞ্চম দিনেও শুটিং রেখে রাজপথে দেখা গেল তারকাদের। নিরাপদ সড়কের দাবিতে রাজপথে নেমে স্লোগানে স্লোগানে মুখর করল তারাও। বৃষ্টিতে ভিজেও আন্দোলনে সংহতি প্রকাশের জন্য উত্তরা হাউস বিল্ডিং চৌরাস্তায় দাঁড়ান শিল্পী, কলাকুশলীরা। তাদের মধ্যে ছিলেন অভিনেতা লুৎফর রহমান জর্জ, অভিনেত্রী মনিরা মিঠু, অর্ষা, নির্মাতা সাগর জাহান, চয়নিকা চৌধুরীসহ অনেকেই।
অভিনেত্রী মনিরা মিঠু বলেন, ‘আমি আছি আমাদের রক্তাক্ত বাচ্চাদের পাশে রাজপথে।’ এছাড়াও শোবিজের অনেক তারকাকে শাহবাগেও দেখা গেছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

 
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com