সুজন স্যার রেগে গেলে বকেন!

সুজন স্যার রেগে গেলে বকেন!

বছরটা তেমন ভালো যায়নি তরুণ পেসার তাসকিন আহমেদের। তিন ফরম্যাটের ক্রিকেট মিলিয়ে ১৮ ম্যাচে ১৮ উইকেট পেয়েছেন। সর্বশেষ দক্ষিণ আফ্রিকা সফর বাজে কেটেছে তার। তবে নতুন বছরে ত্রিদেশীয় ও শ্রীলংকার বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে নতুন করে শুরু করতে চান এই ডানহাতি পেসার। এরই মধ্যে প্রস্তুতি ক্যাম্পে বোলিং নিয়ে কাজ করছেন তাসকিন। আজ অনুশীলন শেষে জানান, নতুন বছরে স্বরূপেই ফিরতে চান তিনি। টেকনিক্যাল ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজনের অধীনে চলছে বাংলাদেশের প্রাথমিক দলের প্রস্তুতি ক্যাম্প। তাসকিন জানান, শক্তির জায়গায় কীভাবে উন্নতি করা যায় এবং অ্যাকুরেসি কীভাবে বাড়ানো যায় তা নিয়ে কাজ করছি। সুজন স্যার স্পটে বোলিং করিয়ে দেখছেন কার অ্যাকুরেসি কেমন, ভিডিও করা হচ্ছে। ভিন্ন ধরনের অনুশীলন হচ্ছে। তাসকিন নিজেও জানেন শেষ দুটি সিরিজ ভালো হয়নি তার। বিশেষ করে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ হতাশায় কেটেছে। তাসকিন বলেন, আশা করি আমরা পরের সিরিজে ফিরে আসব। সবাই কঠোর পরিশ্রম করছে। তাগিদটাও সবার বেশি। সেজন্য ফলটাও ভালো হবে।

তাসকিন জানান, আউট সুইং নিয়ে বেশি কাজ করতে গিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে সেভাবে কার্যকর ছিল না তার বোলিং। তাসকিন বলেন, সুজন স্যারের সঙ্গে আমরা বোলাররা ছোটবেলা থেকেই কাজ করছি। তিনি জানেন, কার কী শক্তি। আমার সহজাত ইন সুইং রেখে হয়ত দক্ষিণ আফ্রিকায় আউট সুইং নিয়ে বেশি কাজ করতে গিয়ে মূল শক্তির জায়গায় ফোকাস করা হয়নি। এখন আবার সেটি করছি। স্যার সেখানেই ফোকাস করাচ্ছেন। আশা করি, ঠিক হয়ে যাবে। বাংলাদেশের ৩২ জনের প্রাথমিক দলে পেসার রয়েছেন ১১ জন। তাই চূড়ান্ত দলে জায়গা পেতে পেসারদের রীতিমতো লড়াই করতে হবে।

তাসকিন জানান, এটি তো শুধু এখন না, সব সময় চ্যালেঞ্জ অনুভব করতাম। দলে যারা আছেন, তাদের সবাই দক্ষ। সাবেক কোচ হাথুরুসিংহের প্রসঙ্গে তাসকিন বলেন, হাথুরুসিংহে অনেকদিন আমাদের কোচ ছিলেন। আসলে আমাদের ভালো-মন্দ, কার কী শক্তি-দুর্বলতা তিনি জানেন। এটি হয়ত ওদের (শ্রীলংকা) বাড়তি সুবিধা দিতে পারে। তবু আমার বিশ্বাস, দেশের মাটিতে নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী খেললে ভালো কিছুই হবে। হাথুরুসিংহে ও সুজনের দায়িত্ব পালনের প্রক্রিয়া অন্যরকম বলে মনে করেন তাসকিন। তিনি বলেন, একেকজনের বোঝানোর পদ্ধতি একেক রকম। উনি (হাথুরুসিংহে) হয়ত একটু বকেঝকে বলতেন, আর সুজন স্যার রেগে গেলে বকেন! তবে আদর করে বোঝান, যেন আমরা সহজে ধরতে পারি। বোলাররাও যাতে ব্যাটিংয়ে অবদান রাখতে পারেন। সেজন্য বোলারদের নিয়ে আলাদাভাবে কাজ করছেন সুজন। তাসকিন বলেন, অনেক কোজ ম্যাচে বোলারদেরও ব্যাট হাতে ভূমিকা রাখতে হয়। সেক্ষেত্রে অন্য দেশের লোয়ারঅর্ডার অনেক উন্নত। আমাদের সেই উন্নতিটা যে হয়নি, তা নয়। আগের থেকে উন্নতি হয়েছে। যদি ১৫-২০টি রান করতে পারি লোয়ারঅর্ডারে, দলেরই লাভ, জেতার সম্ভাবনাও বাড়বে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com