সংবাদ শিরোনাম :
সিলেটে মাছ ব্যবসায়ীর ঝুড়িতে এসিল্যাল্ডের লাথি: মীমাংসা করলেন এমপি

সিলেটে মাছ ব্যবসায়ীর ঝুড়িতে এসিল্যাল্ডের লাথি: মীমাংসা করলেন এমপি

সিলেটে মাছ ব্যবসায়ীর ঝুড়িতে এসিল্যাল্ডের লাথি: মীমাংসা করলেন এমপি
সিলেটে মাছ ব্যবসায়ীর ঝুড়িতে এসিল্যাল্ডের লাথি: মীমাংসা করলেন এমপি

লোকালয় ডেস্কঃ সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার পূর্ববাজার ডাকবাংলোর সামনে ব্যবসায়ীর মাছের ঝুড়ি লাথি দিয়ে ড্রেনে ফেলে দেওয়ার ঘটনাটি মীমাংসা করেছেন সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী। সোমবার (২০ মে) দুপুরে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে বৈঠকে বসে বিষয়টি মীমাংসা করা হয়।
বৈঠকে সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী বলেন, ‘আগামীতে মাছ ব্যবসায়ীদের জন্য জায়গা নির্ধারণ করে দেওয়া হবে। তারা যেন সেখানে বসে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারেন এজন্য সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়া হবে।’
বিষয়টি নিশ্চিত করে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ থানার ওসি আবুল বাসার মোহাম্মদ বদরুজ্জামান বলেন, ‘এমপি স্যার নিজে উদ্যোগ নিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করে দেন। বৈঠকে ব্যবসায়ী নেতা ও জনপ্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন। বিষয়টি সমাধানে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন মাছ ব্যবসায়ী হাসান মিয়া ও লায়েক আহমেদ।
ওই বৈঠকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আয়েশা হক, এসিল্যান্ড সঞ্চিতা কর্মকার, মাইজগাঁও ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল বাসিত, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম মুরাদ, ফেঞ্চুগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল বাসার মোহাম্মদ বদরুজ্জামানসহ ব্যবসায়ী নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
প্রসঙ্গত, গত রবিবার (১২ মে) সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জের পূর্ববাজার ডাকবাংসিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার পূর্ব বাজার ডাকবাংলোর সামনে ব্যবসায়ীর মাছের ঝুড়ি লাথি দিয়ে ড্রেনে ফেলে দেওয়ার ঘটনাটি মীমাংসা করেছেন সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী। সোমবার (২০ মে) দুপুরে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে বৈঠকে বসে বিষয়টি মীমাংসা করা হয়।
বৈঠকে সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী বলেন, ‘আগামীতে মাছ ব্যবসায়ীদের জন্য জায়গা নির্ধারণ করে দেওয়া হবে। তারা যেন সেখানে বসে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারেন এজন্য সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়া হবে।’
বিষয়টি নিশ্চিত করে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ থানার ওসি আবুল বাসার মোহাম্মদ বদরুজ্জামান বলেন, ‘এমপি স্যার নিজে উদ্যোগ নিয়ে বিষয়টি মীমাংসা করে দেন। বৈঠকে ব্যবসায়ী নেতারা ও জনপ্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন। বিষয়টি সমাধানে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন মাছ ব্যবসায়ী হাসান মিয়া ও লায়েক আহমেদ।
ওই বৈঠকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আয়েশা হক, এসিল্যান্ড সঞ্চিতা কর্মকার, মাইজগাঁও ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল বাসিত, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম মুরাদ, ফেঞ্চুগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল বাসার মোহাম্মদ বদরুজ্জামানসহ ব্যবসায়ী নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
প্রসঙ্গত, গত রবিবার (১২ মে) সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জের পূর্ববাজার ডাকবাংলোর সামনে বসে মাছ বিক্রি করছিলেন লায়েক আহমদ। এ সময় এসিল্যান্ড সঞ্চিতা কর্মকার তাকে মাছের ঝুড়ি সরিয়ে নেওয়ার জন্য নির্দেশ দিলে লায়েক তাকে ‘দিদি’ বলে ডাকেন। এতে এসিল্যান্ড ক্ষিপ্ত হয়ে তার মাছের ঝুড়ি লাথি দিয়ে ড্রেনে ফেলে দেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com