শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে সিংহ পরিবারে এসেছে নতুন অতিথি

শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে সিংহ পরিবারে এসেছে নতুন অতিথি

শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে সিংহ পরিবারে এসেছে নতুন অতিথি
শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে সিংহ পরিবারে এসেছে নতুন অতিথি

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি: গাজীপুর শ্রীপুরে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে সিংহ পরিবারে এসেছে নতুন অতিথি। সিংহের নিরাপত্তা ও বিভিন্ন রকমের জটিলতার কারণে আড়াই মাস পর এই সুসংবাদটি গণমাধ্যমে আসলেও একে বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের সফলতা হিসেবে দেখছে সবাই।

সরেজমিনে দেখা যায়, মায়ের বুকের দুধ ছাড়া অন্য কিছু না খেলেও  মায়ের সাথেই ঘুরে বেড়াচ্ছে সিংহ শাবকটি। তবে সন্তানের ব্যাপারে বাড়তি সতর্কতা্য় মা সিংহী।  জানা যায়, চলতি বছরের ৪ মে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে সিংহ বেষ্টনীতে একটি ঘরের ভেতর একটি পুরুষ শাবকের জন্ম দেয় এক সিংহী। সিংহের নিরাপত্তা ও বিভিন্ন রকমের জটিলতার কারণে আড়াই মাস পর গণমাধ্যমের কাছে বিষয়টি জানান সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষ।  এ নিয়ে পার্কে সিংহের সংখ্যা হলো ১৫টি।

সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (সহকারী বন সংরক্ষক) মো.তবিবুর রহমান তথ্য নিশ্চিত করে জানান,  বাঘ ও সিংহ বেষ্টনীতে আলাদাভাবে রাস্তার কাজ চলছিল। এক পর্যায়ে গত ৪ মে বেষ্টনীতে একটি ঘরের ভেতর সিংহ শাবকটি জন্ম নেয়। এর আগেও এ পার্কে আরও সিংহ জন্ম নেয়। নতুন সিংহ শাবকটি আফ্রিকান জাতের। বর্তমানে সিংহ শাবকটির বয়স আড়াই মাস। সিংহ শাবকটি বর্তমানে সুস্থ এবং মায়ের সঙ্গেই আছে। শাবকটি এখনো বাড়তি কোনো খাবার খাওয়া শেখেনি, শুধু তার মায়ের দুধ পান করছে।

তিনি আরোও জানান, বর্তমানে এ পার্কে চারটি সাদা সিংহ রয়েছে। একটি মাদি ও তিনটি পুরুষ। এছাড়াও ব্রাউন সিংহ রয়েছে ১২টি।  তিনি বলেন, জন্মের সময় বাচ্চাদের সাধারণত চোখ ফুটে না। এদের চোখ ফুটতে ১০-১৩ দিন সময় লাগে। জন্মের সময় এদের ওজন ১-৫ কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে। এ সময় বাঘিনী বাচ্চাকে নিয়ে জঙ্গলের আড়ালে রেখে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখে। শাবকরা ১৫-২০ দিনে হাঁটতে শেখে। ৪-৫ মাস বয়স থেকে মায়ের দুধের পাশপাশি অন্য খাবার খাওয়ানো শেখানো হয়। এদের প্রধান খাদ্য গো মাংস। তিনি বলেন, এদের আয়ুকাল পুরুষ ১০-১২ বছর এবং মাদি ১২-১৩ বছর। পূর্ণ বয়ষ্ক মাদি সিংহের দৈর্ঘ ৪ ফুট, ওজন ১৫০-২০০ কেজি এবং পুরুষদের দৈর্ঘ ৬ ফুট ও ওজন ২০০-৩০০ কেজি পর্যন্ত হয়ে থাকে।

মো.তবিবুর রহমান  বলেন, বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে  প্রতিদিন পর্যটকরা সাফারি পার্কে থাকা এসব প্রাণি দেখতে ভিড় জমিয়ে থাকেন। দিন দিন এখানে প্রাণিরা শাবক জন্ম দিচ্ছে ফলে পর্যটকদের কাছে এর আকর্ষণ  আরও বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে জানান এ কর্মকর্তা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com