শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে হামলা : ২৮ আসামি কারাগারে

শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে হামলা : ২৮ আসামি কারাগারে

শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে হামলা : ২৮ আসামি কারাগারে
শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে হামলা : ২৮ আসামি কারাগারে

পাবনা প্রতিনিধি : ১৯৯৪ সালে পাবনার ঈশ্বরদীতে তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেতা শেখ হাসিনাকে বহনকারী ট্রেনে গুলি, বোমা হামলা মামলায় ২৮ আসামিকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

রোববার দুপুরে পাবনার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ রুস্তম আলী এ নির্দেশ দেন। এ মামলায় মোট আসামি ছিলেন ৫২ জন। বাকিদের নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৪ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর আওয়ামী লীগ সভানেত্রী সাংগঠনিক সফরে খুলনা থেকে রাজশাহী অভিমুখে বের হন। পথিমধ্যে তিনি বিভিন্ন স্থানে পথসভা করেন। ঈশ্বরদী স্টেশনে তার একটি নির্ধারিত পথসভা ছিল। তাকে বহনকারী ট্রেনটি পাকশী স্টেশনে পৌঁছার পরপরই ওই ট্রেনে ব্যাপক গুলিবর্ষণ ও বোমা হামলা চালানো হয়।

এ ঘটনায় ঈশ্বরদী জিআরপি থানার তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বাদি হয়ে ওই দিনই একটি মামলা দায়ের করেন। ৩ বছর পর ১৯৯৭ সালে ৩ এপ্রিল পুলিশ মোট ৫২ জনের নামে এ মামলার চার্জশিট দাখিল করে।

পাবনা জজকোর্টের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) ওবায়দুল হক জানান, মামলার ৫২ জন আসামির মধ্যে ৩০ জন  এজলাসে উপস্থিত হয়ে জামিন আবেদন করেন। বিচারক জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন এবং বাকি আসামিদের বিরুদ্ধে পরোয়ান জারি করেন। আগামীকাল সোমবার একই আদালতে উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করার কথা রয়েছে। আসামিদের পাবনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

কারাগারে পাঠানো আসামিরা হলেন- আব্দুল জব্বার, ফজলুর রহমান, শামসুল আলম, সেলিম আহমেদ, এনামুল কবির, হাফিজুর রহমান মুকুল, আনোয়ার হোসেন জনি, ইসলাম হোসেন জুয়েল, নেফাউর রহমান রাজু, শাহ আলম লিটন, মাহবুবুর রহমান পলাশ, আলমগীর হোসেন, তুহিন বিন সিদ্দিক, পলাশ, রেজাউল করিম শাহিন, ফিরোজুল ইসলাম পায়েল, কল্লোল, শ্যামল, এরাম, আটল, শামসুর রহমান শিমুয়া, বরকত আলী, আক্কেল আলী, আজমল হোসেন, মোক্তার হোসেন, মোকলেছুর রহমান, রবি, হাকিমুদ্দিন টেনু।

আসামিরা ঈশ্বরদী উপজেলা ও পৌর বিএনপি এবং এর অঙ্গ সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মী বলে জানা গেছে। ৫২ আসামির মধ্যে ৬ জন মারা গেছেন।

মামলার রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট আক্তারুজ্জামান মুক্তা ও অ্যাডভোকেট সালমা আহমেদ শিলু। আসামি পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম গ্যাদা।

এ বিষয়ে পাবনা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান তোতা বলেন, ‘এটা একটা রাজনৈতিক মামলা। আমরা আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মোকাবেলা করব।’

পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল আহাদ বাবু বলেন, ‘এ মামলা আসামিদের জামিন নামঞ্জুর করায় আমরা সন্তুষ্ট। আমরা ন্যায় বিচার পাব বলে আশা করি।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com