সংবাদ শিরোনাম :
নবীগঞ্জে গরু ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে গরু রাখাল খুন ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ যুব সমাজ চুনারুঘাটের আহম্মদাবাদ ইউনিয়নজুড়ে জুয়া ও মাদকের ছড়াছড়ি মাধবপুরে মালিকানার জোর দেখিয়ে পথচলায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি!  চুনারুঘাটে শিক্ষা ব্যবস্থায় ধস, ক্ষুব্ধ অভিভাবকরা লাখাইয়ে ডাকাতদলের সদস্য গ্রেপ্তার শায়েস্তাগঞ্জে পচাঁবাসি খাবার বিক্রির অভিযোগে ফার্দিন মার্দিন রেষ্টুরেন্টকে জরিমানা চুনারুঘাটে ৮ বছরের শিশু ধর্ষণের শিকার অনিয়মের দায়ে এয়ার লিংক ক্যাবল টিভি নেটওয়ার্ককে জরিমানা বানিয়াচংয়ে এক নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার হবিগঞ্জে অকৃতকার্য বেড়েছে ৩ গুণের বেশি
শায়েস্তাগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী রেল জংশনের পার্কিং স্ট্যান্ডে পরিণত ॥ মাসোয়ারা নিচ্ছেন আইডøবিও

শায়েস্তাগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী রেল জংশনের পার্কিং স্ট্যান্ডে পরিণত ॥ মাসোয়ারা নিচ্ছেন আইডøবিও

স্টাফ রিপোর্টার ॥ শায়েস্তাগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী রেল জংশনের পার্কিং এখন অলিখিত স্ট্যান্ডে পরিণত হয়েছে। অভিযোগ রয়েছে আইডøবিও উর্ধ্বতন সহকারি প্রকৌশলী (পূত) মিঠুন দাসের ছত্রছায়ায় স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তিরা অবৈধ স্ট্যান্ড বসিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। যে কারণে ট্রেনের কোনো যাত্রীরা গাড়ি নিয়ে পার্কিংয়ে প্রবেশ করতে পারছে না। এতে অনেক যাত্রীরা রাতের বেলা বিড়ম্বনার পাশাপাশি দূর্ঘটনার শিকার হন। তৎকালীন রেল মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত শায়েস্তাগঞ্জ জংশনটিকে মডেল জংশনে পরিণত করেন এবং যাত্রীদের গাড়ি পার্কিংয়ের জন্য জায়গাটি নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে আইডøবিও উর্ধ্বতন সহকারি প্রকৌশলী (পূত) মিঠুন দাসে নেতৃত্বে স্থানীয় কতিপয় নেতা এটি দখল করে ইমা, মাইক্রেবাস, নোহা, হাইয়েস, ম্যাক্সি ও সিএনজিসহ বিভিন্ন যানবাহনের স্ট্যান্ড হিসেবে পরিণত করেন। আর প্রতিদিন এসব গাড়ি থেকে ১০ টাকা থেকে শুরু করে ১শ টাকা করে চাঁদা নেয়া হচ্ছে। যার ফলে যানজট লেগেই থাকে। অনেক যাত্রীরা জংশনে প্রবেশ করার আগেই ট্রেন ছেড়ে যায়। ভুক্তভোগী বেশ কয়েকজন যাত্রী জানান, তারা কোনো অবস্থাতেই গাড়ি নিয়ে জংশনে প্রবেশ করতে পারেন না। প্রবেশ করার আগেই স্ট্যান্ডে থাকা দায়িত্বপ্রাপ্ত অবৈধ চেকার ও গার্ডরা তাদের বাঁধা দেন। তবে কোনো কোনো সময় ভিআইপি গাড়ি দেখলে ছেড়ে দেন। এ কারণে তাদের মালামাল নিয়ে ট্রেনে উঠতে বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। পাশাপাশি বিভিন্ন দূর্ঘটনা ঘটে। শায়েস্তাগঞ্জের এক রেল কর্মকর্তা জানান, এটি সম্পূর্ণ সরকারি এবং যাত্রীদের গাড়ি পার্কিংয়ের জায়গা এবং তাদের একজন কর্মকর্তার ছত্রছায়ায় এটি দখল করে প্রতিদিন হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। আর এক ভাগ কতিপয় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও পেয়ে থাকেন। যার ফলে তারা ব্যবস্থা নেন না। তাই তিনি অচিরেই জায়গাটি দখলমুক্ত করার দাবি জানান।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com