লবণের উপকারিতা ও অপকারিতা

লবণের উপকারিতা ও অপকারিতা

লবণের উপকারিতা ও অপকারিতা
লবণের উপকারিতা ও অপকারিতা

লাইফস্টাইল ডেস্ক: ‘লবণ’ আমাদের সবারই সুপরিচিত। রান্নায় লবণ ব্যবহৃত হয়। লবণ শুধু রান্নার কাজেই লাগে তা নয়। এর অন্যান্য ব্যবহারও আছে। হার্ট, লিভার থেকে শুরু করে কিডনি, অ্যাড্রিনাল গ্ল্যান্ডের মতো শরীরের বিশেষ অংশগুলোর কাজকর্ম কিছুটা হলেও লবণের ওপর নির্ভর করে। তবে সাধারণত আমাদের ধারণা লবণ খেলেই ব্লাড প্রেশার বেড়ে যায়। কিন্তু বেশি লবণ খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্যও ক্ষতিকর।

চলুন জেনে নেওয়া যাক লবণের উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে –

লবণের উপকারিতা –

নার্ভ সেলের কার্যকলাপের জন্য লবণ খুবই দরকারি।

লো ব্লাড প্রেশারের জন্য লবণ উপকারী।

সর্দি কমানোর জন্য, সাইনাসের কনজেশন ভাব দূর করার জন্যও লবণ বেশ কাজ করে।

পেশীর ব্যথা প্রতিরোধের ক্ষেত্রেও লবণ সমান জরুরি।

শুকনো কাশির সময় মুখে সামান্য লবণ রাখলে ঘন ঘন কাশির হাত থেকে রেহাই পাওয়া যায়।

ব্লাড ভেসেল ও সেলগুলোকে লবণ কিছুটা সংকুচিত করে রাখে বলে শরীর গরম থাকে। এ কারণেই শীতকালে লবণ খাওয়া হয় বেশি।

লবণের অপকারিতা –

লবণ এক ধরনের স্ট্রেস ফুড। সিমপ্যাথেটিক নার্ভ সিস্টেমকে উদ্দীপিত করে।

লবণ শরীরে পানি ধরে রাখে। বেশি লবণ খেলে হাই ব্লাড প্রেশারের আশঙ্কা থাকে।

হাড় থেকে ক্যালসিয়াম শুষে নিয়ে লবণ হাড়ের ক্ষতি করে।

শরীর থেকে বর্জ্য পদার্থ বের হবার কাজে লবণ ব্যাঘাত ঘটায়। এর জন্য ইউরিক অ্যাসিড, বাত দেখা দেয়।

অতিরিক্ত লবণ খেলে কিডনির ওপর চাপ পড়ে। কিডনি দুর্বল হয়ে যায়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com