লক্ষ্মীপুরে বিয়ে বাড়িতে সম্মানি না পেয়ে বরের কাপড় ছিঁড়ে ফেলল কনেপক্ষ!

লক্ষ্মীপুরে বিয়ে বাড়িতে সম্মানি না পেয়ে বরের কাপড় ছিঁড়ে ফেলল কনেপক্ষ!

লক্ষ্মীপুরে বিয়ে বাড়িতে সম্মানি না পেয়ে বরের কাপড় ছিঁড়ে ফেলল কনেপক্ষ!
লক্ষ্মীপুরে বিয়ে বাড়িতে সম্মানি না পেয়ে বরের কাপড় ছিঁড়ে ফেলল কনেপক্ষ!

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি- লক্ষ্মীপুরে এক বিয়ে বাড়িতে স্টেজে বরের হাত ধোয়া’র সম্মানি নিয়ে তুমুল মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এতে বর ও নারীসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। তাদের সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

শুক্রবার (২৬ জুলাই) দুপুরে পৌরসভার সাহাপুর এলাকার বলিন্টিয়ার বাড়িতে (কনে পিত্রালয়) এ ঘটনা ঘটে। এ দিকে এ ঘটনায় আহত বর নিজেই লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানায় তিনজনের নাম উল্লেখসহ ১০-১২ জনকে অজ্ঞাত করে একটি অভিযোগ করেন।

আহত বরের নাম মো: মোরশেদুল আলম মুসা (২৮)। তিনি পৌরশহরের বাঞ্চানগর গ্রামের বোর্ড স্কুল এলাকার আবদুল মুনাফের ছেলে। অপর আহতরা হলেন, বরের ভাই মো: ফারুক (৩৬), বোন আমেনা আক্তার (২৬) ও ফেরদৌসী (২৪) এবং ভগ্নিপতি মো: হাছান (২৯)। বরযাত্রী রুবি আক্তার (৩০), মহি উদ্দিন (৪০) ও গাড়ি চালক সুমনসহ ১০ জন।

বরের স্বজন ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত তিন মাস পূর্বে পারিবারিকভাবেই মো: মোরশেদুল আলমের সাথে পার্শ্ববর্তি সাহাপুর গ্রামের আবু তাহেরের মেয়ে তানিয়া আক্তারের আত্-বিয়ে হয়। দুই পক্ষের সিদ্ধান্ত মতে আজ শুক্রবার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার আয়োজনও করা হয়। দুপুরে কনের পিত্রালয়ে স্টেজে বরকে কয়েকজন মেয়ে হাত ধুয়ে সম্মানি দাবি করে। পরে তাদের ৫’শ টাকা সম্মানি দেয় বরপক্ষ। চাহিদা মতো সম্মানির টাকা না পাওয়ায় উত্তেজিত হয়ে পড়ে কনে পক্ষের লোকজন। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে কনের মামা তোফায়েল ও মামাতো ভাই ইসমাইল এবং শরীফসহ কয়েকজন উত্তেজিত হয়ে বরের উপর হামলা চালায়। পিটিয়ে ছিড়ে তছনছ করে ফেলে বরের পাঞ্জাবি ও পায়জামা।

এ সময় বাধা দিতে এলে বরের ভাই-বোন ও বরযাত্রীসহ অন্তত ১০ জনকে মারধর করা হয়। পরে আহতদের উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। বিয়ে বাড়িতে মারামারির সময় বরপক্ষের লোকজনের ২টি স্মার্ট মোবাইল ফোন, নগদ ১২ হাজার টাকা ও দুই জোড়া কানের দুল ছিনিয়ে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ করা হয়। এ ঘটনায় কনের মামা তোফায়েল ও মামাতো ভাই ইসমাইল এবং শরীফসহ ১০-১২ জনের নাম উল্লেখ করে অভিযোগ করেন।

এ বিষয়ে বরের বড় ভাই আহত ফারুক বলেন, দফায় দফায় কনেপক্ষের লোকজন টাকা দাবি করেন। তাদের চাহিদা অনুযায়ী টাকা দেওয়ার পরও আমাদের উপর হামলা করা হয়ে। তাই তিনি মনে করেন, পূর্ব পরিকল্পিতভাবে এ হামলা করা হয়েছে। এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার দাবি করেন ফারুক।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম আজিজুর রহমান বলেন, বিয়ে বাড়িতে মারামারির ঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ করা হয়েছে। এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com