রাজস্থানকে প্লে-অফে তুললেন চেন্নাইর ধোনি!

রাজস্থানকে প্লে-অফে তুললেন চেন্নাইর ধোনি!

রাজস্থানকে প্লে-অফে তুললেন চেন্নাইর ধোনি!
রাজস্থানকে প্লে-অফে তুললেন চেন্নাইর ধোনি!

আগে ব্যাটিংয়ে নামলে চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে ন্যূনতম ৫৩ রানে জিততে হতো কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে। কিংবা পরে ব্যাটিংয়ে নামলে ১৩.৪ ওভারের মধ্যে জিততে হতো তাঁদের। পাঞ্জাব আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৫৩ রান তুললেও চেন্নাইকে ১০০ রানের মধ্যে বেঁধে ফেলতে পারেনি। উল্টো ম্যাচটা ৫ উইকেটে জিতেছে চেন্নাই। এই হারে এবার আইপিএল থেকে বিদায় নিল পাঞ্জাব। আর চতুর্থ দল হিসেবে প্লে অফে উঠল রাজস্থান রয়্যালস

আগের ম্যাচের মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের হারে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের আশার বাতি জ্বলে উঠেছিল। প্লে অফে উঠতে চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে পাঞ্জাবের সমীকরণটা ছিল এমন—আগে ব্যাট করলে ন্যূনতম ৫৩ রানের ব্যবধানে জিততে হবে। পরে ব্যাট করলে সেই জয়টা আসতে হবে ১৩.৪ ওভারের মধ্যে।

পাঞ্জাব আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৫৩ রানে অলআউট হয়। কিন্তু দলটির বোলারেরা চেন্নাইকে ১০০ রানের মধ্যে বেঁধে ফেলা দূরের কথা ম্যাচটা জিততেও পারেনি। ৫ উইকেটের জয়ে পাঞ্জাবের আইপিএল প্লে অফে খেলার স্বপ্ন ধূলিসাৎ করে দেয় চেন্নাই। ধোনিদের এই জয়ে চতুর্থ দল হিসেবে প্লে অফ নিশ্চিত হলো রাজস্থান রয়্যালসের।

টস হেরে আগে ব্যাটিংয়ে নামা পাঞ্জাবকে টপ অর্ডারের প্রথম তিন ব্যাটসম্যান ভালো শুরু এনে দিতে পারেননি। ৪ ওভারের মধ্যে মাত্র ১৬ রানে বিদায় নেন ক্রিস গেইল (০), অ্যারন ফিঞ্চ (৪) ও লোকেশ রাহুল (৭)। মাঝের ব্যাটসম্যানেরা দৃঢ়তা দেখানোয় মোটামুটি একটা সংগ্রহ পায় দলটি। এর মধ্যে করুণ নায়ারের ২৬ বলে ৫৪ রানের ইনিংসটা পাঞ্জাবকে দেড় শ রান টপকে যেতে সাহায্য করেছে। মনোজ তিওয়ারির ব্যাট থেকে এসেছে ৩৫ রান।

জিততে তো হবেই সঙ্গে প্রতিপক্ষ দলকে ১০০ রানের মধ্যে বেঁধে ফেলার চ্যালেঞ্জটা পাঞ্জাবের বোলারেরা নিতে পারেনি। সুরেশ রায়না (৬১*), দীপক চাহারদের দৃঢ়তায় ১৫তম ওভারেই ১০০ রান টপকে যায় চেন্নাই। এর মধ্য দিয়ে পাঞ্জাবের প্লে অফে খেলার স্বপ্নেরও অপমৃত্যু ঘটে। বিদায় নিশ্চিত হওয়ার পর দলটি ম্যাচও জিততে পারেনি। চেন্নাই অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি আর রায়না আসলে পাঞ্জাবকে জিততে দেননি। জয়ের জন্য শেষ দুই ওভারে ২৩ রান দরকার ছিল চেন্নাইয়ের। অ্যান্ড্রু টাইয়ের করা ১৯তম ওভার থেকেই ২২ রান তুলেছেন রায়না। শেষ ওভারের প্রথম বলে ধোনির ‘উইনিং শট’টা ছিল ছক্কা।
অথচ পাঞ্জাব বোলারদের শুরুটা ছিল আশা জাগানিয়া। দ্বিতীয় ওভারেই চেন্নাই ওপেনার অম্বতি রাইড়ুকে (১) ফেরান পাঞ্জাবের পেসার মোহিত শর্মা। আরেক ওপেনার ফাফ ডু প্লেসিও (১৪) ফিরেছেন দ্রুতই। তাঁকে গেইলের ক্যাচে পরিণত করেন অঙ্কিত রাজপুত। কিন্তু পঞ্চম উইকেটে ৫৬ রানের জুটি গড়ে চেন্নাইকে পথে ফেরান রায়না-চাহার। এরপর ষষ্ঠ উইকেটে ধোনিকে সঙ্গে নিয়ে ম্যাচটা জিতিয়েছেন রায়নাই। ৪৮ বলে ৬১ রানে অপরাজিত ছিলেন রায়না। ৭ বলে ১৬ রান নিয়ে অন্যপ্রান্তে অপরাজিত ছিলেন ধোনি।

পাঞ্জাবের বিদায়ে চূড়ান্ত হলো আইপিএল প্লে অফের চার দল—সানরাইজার্স হায়দরাবাদ, চেন্নাই সুপার কিংস, কলকাতা নাইট রাইডার্স ও রাজস্থান রয়্যালস। ১৪ ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে সাকিব আল হাসানদের সানরাইজার্স। চেন্নাইয়ের সংগ্রহও ১৮ পয়েন্ট। কিন্তু নেট রান রেটে পিছিয়ে থাকায় দলটি পয়েন্ট টেবিলে দ্বিতীয়। মঙ্গলবার প্রথম কোয়ালিফায়ারে সানরাইজার্সের মুখোমুখি হবে চেন্নাই।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © 2017 Lokaloy24

Desing & Developed BY ThemesBazar.Com